ব্রেইভ নিউ ওয়ার্ল্ড

ব্রেইভ নিউ ওয়ার্ল্ড ইংরেজ উপন্যাসিক অ্যালডাস হাক্সলির একটি উপন্যাস যেটি ১৯৩১ সালে লেখা হয় এবং ১৯৩২ সালে প্রকাশিত হয়। উপন্যাসটির স্থান -কাল ২৫৪০ খ্রিষ্টাব্দ লন্ডনে ( উপন্যাসে যেটি ৬৩২ এ এফ— আফটার ফোর্ড)। এই উপন্যাসে পুনরুৎপাদন প্রযুক্তি, স্লিপ লার্নিং, মনস্তাত্ত্বিক কৌশল এবং ক্ল্যাসিকাল কন্ডিশনিং এর উন্নতির কথা বলা হয়েছে যা একসাথে সমাজকে গভীরভাবে পরিবর্তন করতে ব্যবহার করা হয়। হাক্সলি এই বইয়ের প্রতিউত্তর দেন তার ব্রেইভ নিউ ওয়ার্ল্ড রিভিজিটেড (১৯৫৮) প্রবন্ধে এবং তার শেষ উপন্যাস আইল্যান্ড (১৯৬২) এ।

ব্রেইভ নিউ ওয়ার্ল্ড
ব্রেইভ নিউ ওয়ার্ল্ড প্রথম সংস্করণ.jpg
প্রথম সংস্করণের প্রচ্ছদ
লেখকঅ্যালডাস হাক্সলি
প্রচ্ছদ শিল্পীলেজলি হল্যান্ড
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরেজি
ধরনবৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী
প্রকাশিত১৯৩২
ওসিএলসি২০১৫৬২৬৮

১৯৯৯ সালে মডার্ণ লাইব্রেরী বিংশ শতাব্দীর ইংরেজি ভাষার ১০০ উৎকৃষ্ট উপন্যাস এর তালিকায় ব্রেইভ নিউ ওয়ার্ল্ডকে পঞ্চম স্থান দেন।[১] ২০০৩ সালে রবার্ট ম্যাকক্রাম, যিনি দ্য অবজার্ভারের জন্য লেখেন, ব্রেইভ নিউ ওয়ার্ল্ড উপন্যাসটিকে দ্য টপ 100 গ্রেটেস্ট নোভেলস অফ আল টাইম এর তালিকায় কালানুক্রমিকভাবে ৫৩-তম স্থানে অন্তর্ভুক্ত করেন।[২] এবং উপন্যাসটি বিবিসির দ্য বিগ রিড জরিপে ৮৭- তম স্থানে তালিকাভূক্ত করা হয়।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "100 Best Novels"। Random House। ১৯৯৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০০৭  This ranking was by the Modern Library Editorial Board of authors.
  2. McCrum, Robert (১২ অক্টোবর ২০০৩)। "100 greatest novels of all time"। London: Guardian। সংগ্রহের তারিখ ১০ অক্টোবর ২০১২ 
  3. "BBC – The Big Read". BBC. April 2003, Retrieved 26 October 2012