"উইকিপিডিয়া:খেলাঘর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট: স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিষ্কার করেছে
(জীবনী তৈরি করেছি। তথ্যসূত্র, তাঁর অনূদিত বই 'ঈমান-কুফর ও তাকফির' বই থেকে সংগৃহীত।)
ট্যাগ: পুনর্বহালকৃত
(বট: স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিষ্কার করেছে)
ট্যাগ: প্রতিস্থাপিত হাতদ্বারা প্রত্যাবর্তন
{{খেলাঘর}}<!-- অনুগ্রহপূর্বক এই লাইনটি অপসারণ করবেন না -->
মাওলানা সফিউল্লাহ ফুআদ
 
সফিউল্লাহ ফুআদ। পিতা আবদুল কাদির। জন্মেছেন কুমিল্লার চান্দিনা থানাধীন বসন্তপুর গ্রামের পূর্ব ভূঁইয়াপাড়ায়; ১৩৯২ হিজরির ১২ই সফর / ১৩৭৮ বঙ্গাব্দের ৪ঠা চৈত্র / ১৯৭২ ঈসায়ির ১৮ই মার্চ শনিবার দিবাগত রাতে।
 
লেখাপড়ায় হাতেখড়ি পিতামাতার কাছে। প্রথম মাদরাসা পার্শ্ববর্তী গ্রামের 'জামিয়া ইসলামিয়া আলতাফিয়া' ওরফে 'দারোরা মাদরাসা'। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পড়াশোনা ঢাকাস্থ বড়কাটারা ও ফরিদাবাদ মাদরাসায়। তারপর জামিয়া মাদানিয়া বারিধারা ঢাকায়। দাওরায়ে হাদিস সমাপ্ত করেন প্রথমে ১৪১৫-১৬ হিজরি শিক্ষাবর্ষে বারিধারা মাদরাসায়; তারপর ১৪১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দে। ১৪১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে দেওবন্দেই নিয়েছেন 'উচ্চতর আরবি সাহিত্যে'র পাঠ।
 
আধ্যাত্মিক জীবন
 
আত্মিক-দীক্ষা লাভ করেন মাওলানা আবদুল মতিন বিন হোসাইন হাফিজাহুল্লাহর নিকট। তাঁর কাছ থেকে সোহবত ও বাইয়াতের ইজাযতপ্রাপ্ত হন ১৪৩৩ হিজরিতে।
 
যাদের দ্বারা প্রভাবিত তিনি
 
ব্যক্তি জীবনে শায়খ ফুআদ বিশেষভাবে প্রভাবিত হয়েছেন সাইয়েদ আবুল হাসান আলি নাদাবি ও মাওলানা মুহাম্মাদ মনজুর নোমানি রাহিমাহুল্লাহর চিন্তাধারায়।
 
কর্মজীবন
 
বর্ণাঢ্য কর্মজীবন শুরু করেন 'জামিয়া নাজমুল হুদা' কেরালা ভারতে। ২ বছর পর ফিরে আসেন জন্মভূমি বাংলাদেশে। ২ বছর 'মারকাযুদ দাওয়াহ আলইসলামিয়া ঢাকা'য় 'আরবিভাষা ও সাহিত্য বিভাগে'র তত্ত্বাবধায়ক উস্তাদের দায়িত্ব পালনের পর 'জামালুল কুরআন মাদরাসা' গেণ্ডারিয়া ঢাকায় ২ বছর হাদিসের খেদমত করেন। তারপর দীর্ঘ ১৬ বছর 'আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদানীনগর ঢাকা'য় হাদিসের উস্তাদ এবং আরবিভাষা ও সাহিত্য বিভাগে'র তত্ত্বাবধায়ক উস্তাদের দায়িত্ব পালন করেন। ১৪৩৯ হিজরির রমজান থেকে তিনি 'মাহাদুশ শায়খ ফুআদ লিদ্দিরাসাতিল ইসলামিয়া ঢাকা'য় অবস্থান করছেন। তিনি এখানকার শিক্ষাবিষয়ক তত্ত্বাবধায়ক।<ref>{{বই উদ্ধৃতি |শেষাংশ1=ও তাকফির |প্রথমাংশ1=ঈমান-কুফর |শিরোনাম=অনুবাদকের জীবনকথা |তারিখ=ডিসেম্বর ২০২০ ঈসায়ি |প্রকাশক=সওগাত প্রকাশন |পাতা=২৯১ |পাতাসমূহ=২৯৬ |সংস্করণ=প্রথম |সংগ্রহের-তারিখ=১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১}}</ref>
১,০৭,৮৪০টি

সম্পাদনা