"রুম (২০১৫-এর চলচ্চিত্র)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(সংশোধন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
==কাহিনী সংক্ষেপ==
অ্যাকরন, ওহহাইওতে, ২৪ বছর বয়সী জয় নিউসাম এবং তার ৫ বছরের সন্তান জ্যাক একটি ঝুপড়ি ঘরে বাস করে, যেটিকে তারা "রুম" বলে। সেখানে তারা শুধুমাত্র একটি বিছানা, বাথরুম, বাথটাব, টেলিভিশন, এবং একটি অসম্পূর্ণ রান্নাঘর ব্যবহার করে;করে। একটিমাত্র জানালা দিয়ে ঘরে সূর্যের আলো প্রবেশ করে। তারা জ্যাকের জৈবিক পিতাপিতার কর্তৃককাছে বন্দি, যাকে তারা "ওল্ড নিক" বলে ডাকে। সে জয়কে সাতবছর পূর্বে অপহরণ করেছেকরেছিল এবং জ্যাক যখন আলমারিতে ঘুমায় তখন সে জয়কে নিয়মিতভাবে ধর্ষণ করে। হতাশা ও অপুষ্টিতে ভোগার পরও জয় তার নিজের সন্তান জ্যাকের জন্য আশাবাদী থাকার চেষ্টা করে। সে জ্যাককে বিশ্বাস করতে দেয় যে, শুধুমাত্র "রুম" ও এর আসবাবগুলোই বাস্তব এবং বাকী জগতের অস্তিত্ব শুধু টেলিভিশনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।
 
ওল্ড নিক জয়কে বলে যে, সে তার চাকরি হারিয়েছে এবং হুমকি দেয় সে হয়তো ভবিষ্যতে তাদের অতিপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের যোগান দিতে পারবেনা। ঐ রাতে, যখন ওল্ড নিক জয়ের সাথে বিছানায় ঘুমিয়ে ছিল তখন জ্যাক কৌতুহলবশত আলমারি থেকে বেরিয়ে আসে। জয় জেগে যায় এবং জ্যাকের সামনে তাদের অন্তরঙ্গতা দেখে আতঙ্কিত হয়ে ঘুমন্ত ওল্ড নিককে চড় মেরে সরিয়ে দেয়। এর শাস্তি হিসেবে ওল্ড নিক তাদের ঘরের তাপ ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়।
জয় জ্যাককে বাইরের জগতের কথা বলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। বাস্তব জগতের কথায় জ্যাকজ্যাকের প্রতিক্রিয়া ছিল অবিশ্বাস ও কৌতুহল মিশ্রিত প্রতিক্রিয়া দেখায়।মিশ্রিত।
ওল্ড নিক জ্যাককে হাসপাতালে নিয়ে যাবে,গেলে যেখানেসেখানে জ্যাক তাদের মুক্তির জন্য কারও কাছে সাহায্য চাইতে পারে এই আশায় জয় জ্যাকের অসুস্থ হওয়ার নাটক সাজায়। কিন্তু ওল্ড নিক জানায় সে পরেরদিন অ্যান্টিবায়োটিক নিয়ে আসবে।
 
জয় জ্যাককে মরে যাওয়ার অভিনয় করতে বলে তাকে একটি মাদুরে মুড়িয়ে ফেলে এবং আশা করে যে, এর ফলে ওল্ড নিক তাকে "রুম" থেকে বের করবে। এবার তার কৌশল সফল হয় এবং ওল্ড নিক জ্যাককে তার পিকআপ ভ্যানের পেছনে তুলে, তা একটি আবাসিক এলাকার মধ্য দিয়ে চালিয়ে নিয়ে যায়। এদিকে বাস্তব জগতের সাথে প্রথমবার পরিচিত হয়ে জ্যাক স্তব্ধ হয়ে যায়, যায়। সে ট্রাক থেকে লাফ দিয়ে এক পথচারির দৃষ্টি আকর্ষণে সমর্থ হয়। পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে। তারা জয়কেও খুজে পায় এবং তাকে ও জ্যাককে হাসপাতালে নিয়ে যায় আর ওল্ড নিককে গ্রেপ্তার ও আটক করা হয়।
 
পরিবারের সাথে পুনরায় মিলিত হয়ে, জয় জানতে পারে তার বাবা-মায়ের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছে এবং তার মায়ের এখন লিও নামের একজন নতুন সঙ্গী রয়েছে, লিও।রয়েছে। সে জ্যাককে নিয়ে তার শৈশবে বাস করা বাড়িতে ফিরে যায়,যায়। যেখানেসেখানে এখন তার মা ও লিও বাস করে। তার বাবা জ্যাককে নাতি হিসেবে মেনে নিতে চায় না এবং বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। বাস্তবের বড় জগতের সাথে জ্যাক নিজেকে মানিয়ে নিতে পারেনা,ভীষণ সমস্যা হয়। সে শুধু তার মায়ের সাথে কথা বলে এবং পুনরায় "রুমে" ফিরে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে। জয়ও রাগ ও হতাশায় ভোগে এবংআর সে জ্যাকের "বাস্তব" জিনিসগুলোর সাথে সংযোগহীনতা নিয়ে চিন্তিত। পরিবারের আইনজীবীর পরামর্শে জয় টেলিভিশনেেটেলিভিশনে সাক্ষাতকারসাক্ষাৎকার দিতে রাজি হয়,হয়। কিন্তু সে বিব্রত হয়ে পড়ে যখন উপস্থাপিকা ওল্ড নিকের জ্যাককে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে প্রশ্ন করার পরিবর্তে জ্যাককে রেখে দেওয়ায় তার নিজের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন করে।করলে অপরাধবোদসে বিব্রত হয়ে পড়ে। অপরাধবোধ থেকে জয় আত্মহত্যার চেষ্টা করে;করে। জ্যাক তাকে বাথরুমে অচেতন অবস্থায় খুজেখুঁজে পায় এবং তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
 
জ্যাকের তার মায়ের কথা মনে পড়ে,পড়ে। কিন্তু এখন সে নতুন জীবনের সাথে মানিয়ে নিতে শুরু করেছে। সে তার নতুন পরিবারের সাথে সম্পর্ক গড়ে তোলেতুলেছে, লিওর কুকুর শেমাসের সাথে সখ্যতা করে এবং তার সমবয়সী এক ছেলের সাথে বন্ধুত্ব করে।করেছে। সে বিশ্বাস করে তার লম্বা চুল জয়কে সুস্থ হওয়ার জন্য শক্তি যোগাবে,যোগাবে। এজন্য সে তার দাদীর সাহায্যে তারনিজের চুল কাটে যাতে এগুলো সে তার মায়ের কাছে এগুলো পাঠাতে পারে। জয় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে জ্যাকের কাছে ক্ষমা চায় এবং পাশে থাকার জন্য তাকে ধন্যবাদ জানায়। জ্যাকের অনুরোধে তারা শেষবারের জন্য পুলিশি পাহারায় "রুমে" যায়। জ্যাক বিভ্রান্ত;বিভ্রান্ত। তার মনে হয় এটি আগের থেকে অনেক বেশি সঙ্কুচিতছোট হয়ে গেছেগেছে। এবংএখন দরজা খোলা অবস্থায় এটিকেজায়গাটিকে অন্যরকম জায়গা বলে মনে হচ্ছে। সে এবং জয় "রুমকে" বিদায় জানায় এবং সেখান থেকে বেরিয়ে যায়।
 
==কুশীলব==