"সূরা আয-যারিয়াত" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

+
(বিষয়বস্তু যোগ)
(+)
 
== আয়াতসমূহ ==
{| class="wikitable sortable mw-collapsible mw-collapsed"
|+
!আয়াতের ক্রম
|-
|৪
|فَالْمُقَسِّمَاتِ أَمْرًا
|
|অতঃপর কর্ম বন্টনকারী ফেরেশতাগণের
|
|-
|৫
|إِنَّمَا تُوعَدُونَ لَصَادِقٌ
|
|তোমাদের প্রদত্ত ওয়াদা অবশ্যই সত্য।
|
|-
|৬
|وَإِنَّ الدِّينَ لَوَاقِعٌ
|
|ইনসাফ অবশ্যম্ভাবী।
|
|-
|৭
|وَالسَّمَاء ذَاتِ الْحُبُكِ
|
|পথবিশিষ্ট আকাশের কসম,
|
|-
|৮
|إِنَّكُمْ لَفِي قَوْلٍ مُّخْتَلِفٍ
|
|তোমরা তো বিরোধপূর্ণ কথা বলছ।
|
|-
|৯
|يُؤْفَكُ عَنْهُ مَنْ أُفِكَ
|
|যে ভ্রষ্ট, সেই এ থেকে মুখ ফিরায়,
|
|-
|১০
|قُتِلَ الْخَرَّاصُونَ
|
|অনুমানকারীরা ধ্বংস হোক,
|
|-
|১১
|الَّذِينَ هُمْ فِي غَمْرَةٍ سَاهُونَ
|
|যারা উদাসীন, ভ্রান্ত।
|
|-
|১২
|يَسْأَلُونَ أَيَّانَ يَوْمُ الدِّينِ
|
|তারা জিজ্ঞাসা করে, কেয়ামত কবে হবে?
|
|-
|১৩
|يَوْمَ هُمْ عَلَى النَّارِ يُفْتَنُونَ
|
|যেদিন তারা অগ্নিতে পতিত হবে,
|
|-
|১৪
|ذُوقُوا فِتْنَتَكُمْ هَذَا الَّذِي كُنتُم بِهِ تَسْتَعْجِلُونَ
|
|তোমরা তোমাদের শাস্তি আস্বাদন কর। তোমরা একেই ত্বরান্বিত করতে চেয়েছিল।
|
|-
|১৫
|إِنَّ الْمُتَّقِينَ فِي جَنَّاتٍ وَعُيُونٍ
|
|খোদাভীরুরা জান্নাতে ও প্রস্রবণে থাকবে।
|
|-
|১৬
|آخِذِينَ مَا آتَاهُمْ رَبُّهُمْ إِنَّهُمْ كَانُوا قَبْلَ ذَلِكَ مُحْسِنِينَ
|
|এমতাবস্থায় যে, তারা গ্রহণ করবে যা তাদের পালনকর্তা তাদেরকে দেবেন। নিশ্চয় ইতিপূর্বে তারা ছিল সৎকর্মপরায়ণ,
|
|-
|১৭
|كَانُوا قَلِيلًا مِّنَ اللَّيْلِ مَا يَهْجَعُونَ
|
|তারা রাত্রির সামান্য অংশেই নিদ্রা যেত,
|
|-
|১৮
|وَبِالْأَسْحَارِ هُمْ يَسْتَغْفِرُونَ
|
|রাতের শেষ প্রহরে তারা ক্ষমাপ্রার্থনা করত,
|
|-
|১৯
|وَفِي أَمْوَالِهِمْ حَقٌّ لِّلسَّائِلِ وَالْمَحْرُومِ
|
|এবং তাদের ধন-সম্পদে প্রার্থী ও বঞ্চিতের হক ছিল।
|
|-
|২০
|
|-
|৩২
|
|
|-
|৩৩
|
|
|-
|৩৪
|
|
|-
|৩৫
|
|
|-
|৩৬
|
|
|-
|৩৭
|
|
|-
|৩৮
|
|
|-
|৩৯
|
|
|-
|৪০
|
|
|-
|৪১
|
|
|-
|৪২
|
|
|-
|৪৩
|
|
|-
|৪৪
|
|
|-
|৪৫
|
|
|-
|৪৬
|
|
|-
|৪৭
|
|
|-
|৪৮
|
|
|-
|৪৯
|
|
|-
|৫০
|
|
|-
|৫১
|
|
|-
|৫২
|
|
|-
|৫৩
|
|
|-
|৫৪
|
|
|
|-
|৫৫
|
|
|
|-
|৫৬
|
|
|
|-
|৫৭
|
|
|-
|৫৮
|
|
|-
|৫৯
|
|
|-
|৬০
|
|
৪,৩১০টি

সম্পাদনা