"ভারতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ইতিহাস" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(৩টি উৎস উদ্ধার করা হল ও ০টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল। #IABot (v2.0beta15))
৪৫০০ খৃ: পূ: সালে সিন্ধু সভ্যতার অধিবাসীরা [[সেচ|সেচে]]র উদ্ভাবন করে।<ref name=R&U/> এই উদ্ভাবনার ফলে অনেক পরিকল্পিত বসতি গড়ে ওঠে যেখানে পয়ঃপ্রণালী ছিল। ফলে সিন্ধু সভ্যতার ব্যপ্তি ও সমৃদ্ধি বেড়ে গিয়েছিল, যা পরবর্তী পর্যায়ে নিকাশি ও পয়ঃপ্রণালীর ব্যবহার করে আরও পরিকল্পিত বসতি স্থাপন করতে সাহায্য করে।<ref name=R&U>Rodda & Ubertini, 279</ref> ৩০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে তৈরী করা গিরনারের কৃত্রিম [[জলাধার]] গুলি এবং ২৬০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দের সেচ[[খাল]] ব্যবস্থা সিন্ধু সভ্যতার পরিশীলিত সেচ ও জল সংরক্ষণ ব্যবস্থার উজ্বল নিদর্শন।<ref>Rodda & Ubertini, 161</ref> খৃষ্টপূর্বাব্দ ৫ম-৪র্থ শহস্রাব্দেই এই অঞ্চলে [[তুলা]] চাষ প্রচলিত ছিল।<ref>Stein, 47</ref> [[আখ]] মূলত গ্রীষ্মমন্ডলীয় দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ফসল।<ref name=Sharpe/> তবে আখের বিভিন্ন প্রজাতি সম্ভবত বিভিন্ন স্থানে উদ্ভুত হয়েছে; যেমন এস. বারবেরি (S. barberi) ভারতে, এবং এস. এডুল (S. edule) ও এস. অফিসিনারুম(S. officinarum) এসেছে [[নিউ গিনি]] থেকে।<ref name=Sharpe>Sharpe (1998)</ref>
 
সিন্ধু উপত্যকার অধিবাসীরা ওজন ও পরিমাপের ব্যবহারে প্রমিতিকরণের একটি পদ্ধতি গড়ে তোলেন, যা সিন্ধু উপত্যকায় বিভিন্ন খনন থেকে সুস্পষ্ট।<ref name=Baber_b>Baber, 23</ref> এই প্রযুক্তিগত মানক থাকায় পরিমাপের যন্ত্রগুলি [[কোণ|কৌনিক পরিমাপ]] ও নির্মাণের পরিমাপে কার্যকরভাবে ব্যবহার করা সম্ভব হয়েছিল।<ref name=Baber_b/> কিছু যন্ত্রের ক্ষেত্রে একাধিক উপবিভাগের পাশাপাশি পরিমাপের যন্ত্রে ক্রমাঙ্কনও পাওয়া যায়।<ref name=Baber_b/> এই অঞ্চলের প্রাচীনতম বন্দরগুলির মধ্যে একটি [[লোথাল|লোথালে]] (খৃঃপূঃ ২৪০০) এমনভাবে মূল স্রোতের থেকে দূরে তৈরী করা হয়েছিল যাতে বন্দরে পলি জমা এড়ানো যায়।<ref name="RaoQ"/> আধুনিক সমুদ্রবিজ্ঞানীদের মতে [[হরপ্পা]] অধিবাসীদের নিশ্চয়ই জোয়ার-ভাঁটা, [[জললেখচিত্রবিদ্যা]] ও সামুদ্রিক প্রকৌশল সম্পর্কে গভীর জ্ঞান ছিল। না হলে, নিয়ত-পরিবর্তনশীল [[সবরমতি নদী|সবরমতি]] নদীখাতে এরকম বন্দর নির্মাণ করা সম্ভব ছিল না।<ref name="RaoQ">Rao, ২৭–২৮</ref>
 
অধুনা পাকিস্তানের বালাকোটের উৎখনন থেকে সেখানে চুল্লীর (খৃঃপূঃ ২৫০০-১৯০০) উপস্থিতির প্রমাণ পাওয়া যায়।<ref name=Dales/> সম্ভবতঃ চীনামাটির সামগ্রী প্রস্তুত করতে এই চুল্লীর ব্যবহার হত।<ref name=Dales>Dales, 3–22 [10]</ref> সিন্ধু সভ্যতার পরিণত পর্য্যায়ের (খৃঃ পূঃ ২৫০০-১৯০০) রান্নার উনুনও এই বালাকোটেই পাওয়া গেছে।<ref name=Dales/> এছাড়াও কালিবঙ্গা প্রত্নতাত্তিক স্থলে অনেক পাত্র আকৃতির রান্নার চুলার অস্তিত্ব পাওয়া যায়, যা মাটির উপরে ও নিচে উভয় ক্ষেত্রেই দেখা গেছে।<ref name=Baber20>Baber, 20</ref> কালিবঙ্গাতে ভাটিখানারও সন্ধান পাওয়া গেছে।<ref name=Baber20/> [[File:Ashoka pillar at Vaishali, Bihar, India.jpg|thumb|left|[[বৈশালী (প্রাচীন শহর)|বৈশালী]] শহরে অশোকের বাণী সমৃদ্ধ [[অশোক স্তম্ভ]]। এমন একটি অশোকের বাণী (খৃঃ পূঃ ২৭২-২৩১) হল: "রাজা পিয়াদসী (অশোক) সর্বত্র দুটি করে হাসপাতালের স্থাপনা করেছেন, একটি মানুষের জন্য একটি পশুদের জন্য। যেখানে মানুষ বা পশুর চিকিৎসার জন্য ওষধি গুল্মের অভাব আছে, তিনি আজ্ঞা দিয়েছেন সেগুলি ক্রয় করে রোপণ করতে।<ref name=finger12>Finger, 12</ref>]]
৩,৫১২টি

সম্পাদনা