"কেশব চন্দ্র নাগ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎অঙ্কের বই: সম্প্রসারণ
(→‎অঙ্কের বই: তথ্যসূত্র)
(→‎অঙ্কের বই: সম্প্রসারণ)
 
=== অঙ্কের বই ===
মিত্র ইনস্টিটিউশনে কেশবচন্দ্রের সহকর্মী কবিশেখর কালিদাস রায়ের বাড়িতে বসত সাহিত্যিকদের আড্ডা ''রসচক্র সাহিত্য সংসদ''। [[শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়]], শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায়, জলধর সেনের মতো দিকপাল সাহিত্যিকরা সেখানে নিয়মিত আসতেন। কেশবচন্দ্রও সেখানে অন্যতম সদস্য হয়ে ওঠেন। সম্ভবতঃ কবিশেখর [[কালিদাস রায়|কালিদাস রায়ে]]র প্রধান অনুপ্রেরণায় তিরিশের দশকের মাঝামাঝি প্রকাশক ইউ এন ধর অ্যান্ড সন্সের মাধ্যমে ১৯৫২ সালে প্রকাশিত হল '''নব পাটীগণিত'''।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=The Calcutta Gazette, 1952, January-June, Reg No.c207 |ইউআরএল=https://archive.org/details/in.ernet.dli.2015.40377/page/n199 |সংগ্রহের-তারিখ=২৫ জানুয়ারি ২০১৯ |তারিখ=১৯৫২}}</ref> কিছুদিনের মধ্যেই পঞ্চম-ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে অসম্ভব জনপ্রিয় হয়ে পড়ে বইটি। পাঠ্যপুস্তক হিসাবেও স্বীকৃত হয়।
১৯৪২ সাল নাগাদ ক্যালকাটা বুক হাউসের পরেশচন্দ্র ভাওয়ালের আগ্রহাতিশয্যে কেশবচন্দ্রের বাঁধানো অঙ্কের খাতা প্রকাশিত হয় অঙ্কের সহায়িকা '''ম্যাট্রিক ম্যাথমেটিক্স''' নামে। বইটি বিশাল জনপ্রিয় হয়।
 
৩,৫১২টি

সম্পাদনা