প্রধান মেনু খুলুন

পরিবর্তনসমূহ

→‎ইতিহাস: একই কথার পুনরাবৃত্তি সংশোধন করা হল।
সিন্ধুর বিশিষ্ট স্থপতি [[আব্দুল হুসেন থারিয়ানি]]কে মসজিদ কমপ্লেক্সটির নকশার জন্য নিযুক্ত করা হয়। পুরো কমপ্লেক্স নকশার মধ্যে দোকান, অফিস, গ্রন্থাগার ও গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা অন্তর্ভুক্ত হয়। মসজিদটির নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবার পর শুক্রবার, ২৫ জানুয়ারী ১৯৬৩ সালে প্রথমবারের জন্য এখানে নামাজ পড়া হয়।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম |ইউআরএল=https://www.ntvbd.com/religion-and-life/137003/%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A7%80%E0%A7%9F-%E0%A6%AE%E0%A6%B8%E0%A6%9C%E0%A6%BF%E0%A6%A6-%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A7%9F%E0%A6%A4%E0%A7%81%E0%A6%B2-%E0%A6%AE%E0%A7%8B%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%B0%E0%A6%AE |ওয়েবসাইট=এনটিভি অনলাইন |তারিখ=১৫ জুন ২০১৭}}</ref>
 
১৯৭৫ সালের ২৮ মার্চ থেকে [[ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ]] এই মসজিদের রক্ষণাবেক্ষণ করে আসছে। বর্তমানে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদটি আটতলা। মূল মসজিদ এবং উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব সাহান মিলিয়ে সর্বমোট ৪০ সহস্রাদিক মুসল্লী একত্রে নামায আদায় করতে পারে। মসজিদের অভ্যন্তরে ওযুর ব্যবস্থাসহ মহিলাদের জন্য পৃথক নামায কক্ষ ও পাঠাগার রয়েছে। মসজিদের নিচতলায় রয়েছে একটি বৃহত্তর অত্যাধুনিক ও সুসজ্জিত মার্কেট কমপ্লেক্স।
 
২০০৮ সালে সৌদি সরকারের অর্থায়নে মসজিদটি সম্প্রসারিত করা হয়। বর্তমানে এই মসজিদে একসঙ্গে ৪০ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারেন। এ মসজিদের শোভাবর্ধন এবং উন্নয়নের কাজ এখনও অব্যাহত রয়েছে।
 
== স্থাপত্যশৈলী ==
[[চিত্র:Baitul Mukarram (Arabic, بيت المكرّم; Bengali, বায়তুল মুকাররম; The Holy House).jpg|alt= বায়তুল মুকাররমের অবকাঠামো মক্কা শরীফের কাবার মত|thumb|বাম|বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের অবকাঠামো মক্কা শরীফের '''[[কাবা]]'''র মত]]
৪৭টি

সম্পাদনা