"মেদিনীপুরের যুদ্ধ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎যুদ্ধের ঘটনাবলি: তথ্য সংযোজন
(→‎পটভূমি: তথ্য সংযোজন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
(→‎যুদ্ধের ঘটনাবলি: তথ্য সংযোজন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
== যুদ্ধের ঘটনাবলি ==
 
[[মীর জাফর]] তাঁর সৈন্যবাহিনী নিয়ে মারাঠা-অধিকৃত [[মেদিনীপুর|মেদিনীপুরের]] দিকে অগ্রসর হন। ১৭৪৬ সালের ডিসেম্বরে তিনি মেদিনীপুরের নিকটে মারাঠা সৈন্যবাহিনীর মুখোমুখি হন। মারাঠা বাহিনীর নেতৃত্বে ছিলেন [[মীর হাবিব|মীর হাবিবের]] সেনাপতি সাঈদ নূর<ref name=''১''/>। উভয়পক্ষে তীব্র যুদ্ধ হয় এবং মারাঠারা শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয়<ref name=''মারাঠা আক্রমণ''/><ref name=''১''/>। পরাজিত মারাঠারা পশ্চাৎপসরণ করে এবং মীর জাফর মেদিনীপুর পুনরুদ্ধার করে নেন<ref name=''মারাঠা আক্রমণ''/>।
 
== ফলাফল ==
 
মীর জাফরের সাফল্যে খুশি হয়ে নবাব আলীবর্দী তাঁকে [[ওড়িশা|উড়িষ্যার]] প্রাদেশিক শাসনকর্তা নিযুক্ত করেন<ref name=''১''/> (যদিও উড়িষ্যা এসময় মারাঠাদের দখলে ছিল)। কিন্তু মীর জাফরের সাফল্য ছিল ক্ষণস্থায়ী, কারণ কিছুদিন পরেই [[ওড়িশা|উড়িষ্যা]] থেকে [[মীর হাবিব]] এবং [[জানুজী ভোঁসলে]]র নেতৃত্বে মারাঠা সৈন্যরা আবার মেদিনীপুর আক্রমণ করে এবং মীর জাফর বিনা যুদ্ধে পলায়ন করেন<ref name=''মারাঠা আক্রমণ''/><ref name=''১''/>।
 
== আরো দেখুন ==