বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিষদ

বাংলাদেশ সংবাদপত্রে পরিষদ বাংলাদেশের সংবাদপত্রগুলির একটি জাতীয় বাণিজ্য সংস্থা।[১][২] আমাদের সময়ের মালিক এবং ইউনিক গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নূর আলী এই সমিতির সভাপতি। দৈনিক জনকণ্ঠের মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিতু সাধারণ সম্পাদক।[৩]

বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিষদ
সংক্ষেপেবাসপ [BSP]
সদরদপ্তরঢাকা, বাংলাদেশ
যে অঞ্চলে কাজ করে
বাংলাদেশ
দাপ্তরিক ভাষা
বাংলা

ইতিহাস সম্পাদনা

২০০৬ সালে, বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিষদ স্থানীয় বাজারে নিউজপ্রিন্টের দাম হ্রাস করার জন্য নিউজপ্রিন্ট আমদানিতে শুল্ক হ্রাস করার আহ্বান জানিয়েছিল। বাংলাদেশে নিউজপ্রিন্টের দাম তখন আন্তর্জাতিক বাজারের চেয়ে বেশি ছিল। বাংলাদেশ আইন অনুসারে সংবাদপত্রের জন্য আমদানি করা নিউজপ্রিন্টের উপর ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক রয়েছে; এটি হ্রাস করা হয় যদি সংবাদপত্র তার নিউজপ্রিন্টের ৫০ শতাংশ স্থানীয় উৎপাদকদের কাছ থেকে ক্রয় করে থাকে।[৪] ২০১৮ সালের জানুয়ারীতে সমিতি প্রস্তাবিত ডিজিটাল সুরক্ষা আইনকে বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার জন্য ক্ষতিকারক বলে সমালোচনা করেছে।[৫]

২০২০ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ পুলিশ বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিষদের আহ্বায়ক এবং দৈনিক জাতীয় আর্থোটিটির সম্পাদক এমজি কিবরিয়া চৌধুরীকে তার সংবাদপত্রের ঢাকা সদর দফতর থেকে গ্রেপ্তার করে। সোনাইমুড়ি থানায় ডিজিটাল সুরক্ষা আইনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নোয়াখালী জেলা শাখার সহ-সভাপতি ও তমা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোঃ আতাউর রহমান ভূঁইয়া মানিক তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পরে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।[৬]

বাংলাদেশ সংবাদপত্রে পরিষদ বাংলাদেশের কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে সংবাদপত্র শিল্পের জন্য ২০২০ সালে বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে ১০ হাজার কোটি টাকার টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ বা অনুদানের আবেদন করেছে।[৭] [৮]

বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিষদ বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে একটি যুগান্তকারী জনস্বার্থ মামলায় লড়াই করে।[৯] সরকার ১৯৯১ সালে সংবাদপত্রের কর্মীদের ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণের বিষয়ে সমিতি কর্তৃক মামলাটি দায়ের করা হয়েছিল। বিচারপতি তাদের মামলা জনস্বার্থ মামলা হিসাবে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। প্রথম স্বীকৃত জনস্বার্থ মামলা ১৯৯৬ সালে দায়ের করা হয়েছিল।[১০] বাংলাদেশ হাই কোর্ট রায় দিয়েছে যে সমিতির মামলার কোনো লোকাস স্ট্যান্ডি নেই।[১১]

আরো দেখুন সম্পাদনা

  • সংবাদপত্রের মালিক সমিতি বাংলাদেশ

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. Banerjee, Indrajit; Logan, Stephen (২০০৮)। Asian Communication Handbook 2008 (ইংরেজি ভাষায়)। AMIC। পৃষ্ঠা 110। আইএসবিএন 978-981-4136-10-5 
  2. "9th wage board for journalists formed"theindependentbd.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  3. "বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিষদের নতুন কমিটি"jagonews24.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  4. "Newspapers hit by rising newsprint price"bdnews24.com। ৯ জুন ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  5. "Spectre of controversial section 57 remains"Prothomalo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  6. "Jatio Arthonitee editor Kibria arrested under Digital Security Act"New Age (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  7. "BSP urges govt to declare Tk10,000 crore grant to save newspaper industry"The Business Standard (ইংরেজি ভাষায়)। ১০ মে ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  8. "Tk 10,000cr grant for journos sought"Daily Sun। ১১ মে ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  9. "Public Interest Litigations"clcbd.org। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০২০ 
  10. Hoque, Ridwanul (২০১১)। Judicial Activism in Bangladesh: A Golden Mean Approach (ইংরেজি ভাষায়)। Cambridge Scholars Publishing। পৃষ্ঠা 141-142। আইএসবিএন 978-1-4438-2822-2 
  11. Razzaque, Jona (২০০৪)। Public Interest Environmental Litigation in India, Pakistan, and Bangladesh (ইংরেজি ভাষায়)। Kluwer Law International B.V.। পৃষ্ঠা 290। আইএসবিএন 978-90-411-2214-8