প্রধান মেনু খুলুন

বড় ইঁদুর[২] (বৈজ্ঞানিক নাম:Bandicota indica) (ইংরেজি: Greater bandicoot rat) হচ্ছে Muridae পরিবারের এক প্রজাতির ইঁদুর। বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের রক্ষিত বন্যপ্রাণীর তালিকার তফসিল ৩ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।[২] এরা বাংলাদেশের সবচেয় বড় আকারের ইঁদুর।[৩] একে কখনও কখনও বড় ইঁদুর বা বড় ধাড়ি ইঁদুর নামেও অভিহিত করা হয়। এটি বিবরবাসী, নিশাচর জীব। জনপদের কাছাকাছি থাকতে ভালবাসে।[৪]

বড় ইঁদুর
Bonner zoologische Beiträge - Herausgeber- Zoologisches Forschungsinstitut und Museum Alexander Koenig, Bonn (1984) (20205337978).jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: প্রাণী জগৎ
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: Mammalia
বর্গ: Rodentia
পরিবার: Muridae
গণ: Bandicota
প্রজাতি: B. indica
দ্বিপদী নাম
Bandicota indica
(Bechstein, 1800)

বহিরাঙ্গসম্পাদনা

বড় ইঁদুরের কান মাঝারি আকারের, আকৃতি গোলাকার। এর লেজের দৈর্ঘ্য মস্তকসহ দেহের সমান। গায়ের লোম রুক্ষ, কিছু অংশকণ্টকাকীর্ণ। পৃষ্ঠদেশের মধ্যবর্তী স্থানে দীর্ঘ কালো রঙয়ের চুল থাকে যে জন্য কালচে বাদামী দেখায়। দেহের পাশ্র্ব ধূসরাভ, দেহতল ধূসরাভ বাদামী বর্ণের হয়ে থাকে। মস্তকসহ দেহের দৈর্ঘ্য ২১ থেকে ৩৪ সেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। এঁদের লেজের দৈঘ্র্য ১৬ থেকে ৩৪ সেন্টিমিটার পর্যন্ত দেখা গেছে।

বিস্তৃতিসম্পাদনা

গ্রামে এবং শহরাঞ্চলে এদের প্রচুর দেখা যায়, দেখা যায় আবাদি জমি এবং অগভীর জঙ্গলে। সুন্দরবন বাদে বাংলাদেশের সর্বত্র পাওয়া যায়। এছাড়া ভারত, চীন, মিয়ানমার, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, লাওস, মালযয়শিয়া, নেপাল, শ্রীলংকা, তাইওয়ান ও থাইল্যাণ্ডে এই ইঁদুর প্রচুর দেখা যায। মরুভূমি ও পার্বত্য অঞ্চলে লভ্য নয়। এর মানব জনপদের কাছাকাছি থাকতে পছন্দ করে। বাগান, আস্তাবল, পোষা প্রাণীর খোঁয়ার, রান্না ঘর, ভাাঁড়ার ইত্যাদি স্থানে এদের ঘোরাফেরা।

খাদ্যসম্পাদনা

বড় ইঁদুর নানা অমেরুদণ্ডী প্রাণী যেমন পোকামাকড়, কাঁকড়া খেয়ে থাকে। তবে ধাড়ি ইঁদুর সর্বভূক বলে খ্যাত: যা পায় সবই খায়৤ শাক-সব্জি, ঘাস, শেকড়-বাকড়, গৃহের পরিত্যাক্ত খাদ্য বস্তু, মাটির নিচের আলু, গাজর, মূলা, ধান-চাল, শামুক ইত্যদি সবই এরা সাগ্যহে গলধকরণ করে। [৫]

প্রজননসম্পাদনা

বড় ইঁদুরের প্রজনন মৌসুম সারা বছর ধরে ব্যাপ্ত। প্রতিবারে একটি মাদি ইঁদুর ১ থেকে ১৯ পর্যন্ত বাচ্চা প্রসব করে৤ গুদামের বাৎসরিক হিসাব থেকে দেখা যায় যে একটি মাদি ইঁদুর বৎসরে গড়ে প্রায় ৭০টি বাচ্চা প্রসব করে৤[৬]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Baillie J. (1996). "Bandicota indica". 2006 IUCN Red List of Threatened Species. Downloaded on 19 July 2007.
  2. বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জুলাই ১০, ২০১২, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, পৃষ্ঠা- ১১৮৫৩৭
  3. CERo Path তথ্যতীর্থ
  4. ব্রিট্যানিকা
  5. ধাড়ি ইঁদুরের খাদ্যাভ্যাস
  6. Reproductive biology of Bandicota indica