বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ

বাংলাদেশের ফরিদপুরে অবস্থিত সরকারি মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতাল

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ (বশেমুমেক, পূর্বনাম: ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ) ১৯৯২ সালে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশের ফরিদপুর শহরে অবস্থিত একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ।[১] এটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত একটি কলেজ। এখানে ৫ বছর মেয়াদি এমবিবিএস কোর্সে বর্তমানে ১৮০টি আসন রয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজের লোগো
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজের লোগো
প্রাক্তন নাম
ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ
ধরনসরকারি মেডিকেল কলেজ
স্থাপিত১৯৯২; ৩০ বছর আগে (1992)
প্রাতিষ্ঠানিক অধিভুক্তি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
অধ্যক্ষঅধ্যাপক ডাঃ মো. মোস্তাফিজুর রহমান
শিক্ষার্থী৯০০
অবস্থান,
২৩°৩৬′২৯″ উত্তর ৮৯°৫০′২৮″ পূর্ব / ২৩.৬০৮০০০° উত্তর ৮৯.৮৪১০০০° পূর্ব / 23.608000; 89.841000
শিক্ষাঙ্গনশহুরে
ভাষাইংরেজী
ওয়েবসাইটbsmmc.edu.bd

১৫ জুন ২০১৭ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজের সকল কার্যক্রম নতুন এবং স্থায়ী ক্যাম্পাসে শুরু হয়। নতুন ক্যাম্পাসটি পশ্চিম খাবাসপুর, বরিশাল রোডে অবস্থিত। কলেজটির সাথে ৫০০ শয্যার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল রয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ জার্নাল কলেজটি প্রাতিষ্ঠানিক সাময়িকী।

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৭৮-৭৯ সালের দিকে বাংলাদেশ সরকার চিকিৎসা শিক্ষাকে উন্নত করার জন্য কয়েকটি মেডিকেল কলেজ তৈরির পরিকল্পনা করে। তার মধ্যে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ তখন প্রস্তাবনায় ছিল। কিছুদিন পরে প্রস্তাবনা বাতিল করা হয় এবং ১৯৮০-৮১ এর দিকে কার্যক্রম শুরু করার আগেই ছাত্র-ছাত্রীদের তৎকালীন চালু ৮টি মেডিকেল কলেজে স্থানন্তর করা হয়।

দেশের স্বল্প কয়েকটি মেডিকেল কলেজ থেকে চাপ কমানোর জন্য এবং পরিপূর্ণ চিকিৎসা শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য ১৯৯২-৯৩ এর দিকে সরকার নতুন কয়েকটি মেডিকেল কলেজ তৈরির প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে। সরকার ফরিদপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, খুলনা, ও কুমিল্লায় নতুন ৫ টি মেডিকেল কলেজ তৈরির প্রতিশ্রুতি দেয়।

সেই প্রস্তাবনায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রথমে হাসপাতালের একটি অংশে কার্যক্রম শুরু হয় এবং কিছুদিনের মধ্যেই “মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেইনিং স্কুল” (ম্যাটস) এর ভবনে কার্যক্রম স্থানান্তরিত করা হয়। ১৫ জুন ২০১৭ সালে মেডিকেল কলেজের সকল কার্যক্রম নতুন এবং স্থায়ী ক্যাম্পাসে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে নতুন স্থায়ী ক্যাম্পাসে কলেজ কার্যক্রম চলছে।

এপ্রিল ২০২১ সালে, সরকার ‘ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ’ ও ‘ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল’ এর নাম পরিবর্তন করে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ, ফরিদপুর’ এবং ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ফরিদপুর’ নামকরণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করে। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে প্রজ্ঞাপনে স্বাক্ষর করেন স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মো. আলী নুর। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ ফরিদপুরের অধ্যক্ষ ডা. মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, নাম পরিবর্তনের খবরে আমরা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ সবাই উচ্ছ্বসিত।[২]

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসম্পাদনা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট। দুইটি ভিন্ন ভিন্ন ভবনে হাসপাতালের কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। পূর্বে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ২৫০ শয্যা ছিল, ২০১৩ সালে ৭ তলা একটি ভবনে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সহ আরও ২৫০ শয্যা সেট মোট ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল উদ্ভোধন করা হয়।

অনুষদ ও বিভাগসম্পাদনা

প্রি-ক্লিনিক্যালসম্পাদনা

ক্লিনিক্যালসম্পাদনা

  • মেডিসিন বিভাগ
  • সার্জারি বিভাগ
  • কার্ডিওলজি বিভাগ
  • পেডিএট্রিক্স বিভাগ
  • নাক কান গলা (অটোরাইনোল্যারিংগোলজি) বিভাগ
  • এনেস্থিওলজি বিভাগ
  • অপথালমোলজি বিভাগ
  • গাইনোকোলজি ও অবসটেট্রিক্স বিভাগ
  • গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি বিভাগ
  • রেডিওলজি বিভাগ
  • দন্তচিকিৎসা বিভাগ
  • ব্লাড ট্রাসনফিউশন বিভাগ
  • স্কিন ও ভিডি বিভাগ
  • অর্থোপেডিক্স বিভাগ
  • ইউরোলজি বিভাগ
  • রেসপাইরেটরি মেডিসিন বিভাগ
  • ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগ
  • মনোরোগ বিশেষজ্ঞ বিভাগ[৩]

ছাত্রাবাসসম্পাদনা

আবাসন ব্যবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ স্বয়ংসম্পূর্ণ। ছেলেদের জন্য একাডেমিক ভবন থেকে অদূরে একটি ছাত্রাবাস রয়েছে যা ৬ তলা বিশিষ্ট। মেয়েদের জন্য হাসপাতাল সংলগ্ন স্থায়ী ক্যাম্পাসের পাশে দুটি মহিলা ছাত্রাবাস করা হয়েছে। ইন্টার্নী ছাত্রাবাসের সকল কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া, ছাত্রদের নামাজ পড়ার জন্য রয়েছে একটি মসজিদ যা "মেডিকেল কলেজ জামে মসজিদ" নামে পরিচিত ।

সংগঠনসম্পাদনা

এই কলেজে বর্তমানে ৬টি ক্লাব ও সংগঠন রয়েছে ।

  • সন্ধানী[৪]
  • মেডিসিন ক্লাব[৫]
  • প্রতীতি
  • চলচ্চিত্র ও সঙ্গীত সোসাইটি
  • বিএসএমএমসি যুব গবেষক ক্লাব

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. http://www.platform-med.org/ফরিদপুর-মেডিকেল-কলেজ
  2. "ফরিদপুর মেডিকেলের নাম পরিবর্তন"যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১২ 
  3. "Departments – Faridpur Medical College" (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৮-১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-২৯ 
  4. "Faridpur Medical College Unit – SANDHANI" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৮ 
  5. "Faridpur Medical College Unit – Medicine Club" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা