ফ্রন্টিস (Phrontis) (প্রাচীন গ্রিক : Φροντις) ছিলেন ফ্রিক্সাসক্যালসিওপির চার (অথবা পাঁচ) পুত্রের একজন। তিনি কলচিসের রাজা ঈটিজ এর নাতিও ছিলেন।

ফ্রন্টিস

ফ্রন্টিস ও তার ভাইরা কলচিসে বড় হয়, এবং তাদের পিতা ফ্রিক্সাসের মৃত্যুর পর, তিনি আর তার ভাইরা অরকোমেনাসের রাজা অ্যাথামাসের হাতে তার পিতার প্রতি দুর্ব্যবহারের প্রতিশোধ নেবার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। কিন্তু যাত্রাপথে তারা কৃষ্ণ সাগরে যুদ্ধের দেবতা আরেসের দ্বীপে আটকে যায়। পরবর্তীতে জ্যাসনআর্গোনটরা তাদেরকে উদ্ধার করেন। ফ্রন্টিস ও তার ভাইরা ঈটিজের পৌত্র জানার পর জ্যাসন তাদেরকে তাদের সাথে কলচিসে ফিরে যেতে এবং স্বর্ণের পশম আনতে সাহায্য করতে রাজি করান। জ্যাসন তাদেরকে সেই অঞ্চলের নিরাপত্তা ও নকশার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করেন। কলসিচ থেকে স্বর্ণের পশম উদ্ধারের পর, ফ্রন্টিস ও তার ভাইরা আর্গোর যাত্রীদের সাথে গ্রিসে ফিরে আসে। তার ভাইরা ছিল সাইটিসোরাস, আরগুস ও মেলাস, এবগ্ন কিছু সূত্র অনুযায়ী তার আরেক ভাই ছিল প্রেসবন

আরেকটি ঘটনা আরগোনটের ভ্রমণের অনেক বছর পর ঘটে যা ফ্রন্টিসের ভাই মেলাসের বাণিজ্যযাত্রার সাথে সম্পর্কিত। তাকে ককেশাসের সাইরাস নদীর তীরের নগর আয়োনেট্রিয়া এর অত্যাচারী রাজা টেলিক্রেটিস বন্দী করেন। মেলাসের সাথে ককেশাস হয়ে যাত্রা করা অনেক বণিককেই তিনি বন্দী করেছিলেন। তিনি মনে করতেন, গ্রিস ও আনাতোলিয়া থেকে আসা যত বেশি সম্ভব বণিককে বন্দি করতে হবে, তাতে গ্রিক ও আনাতোলিয়ার নগররাষ্ট্রগুলোর অর্থনীতি দুর্বল হয়ে যাবে, যার ফলে তার পক্ষে সেই সব নগররাষ্ট্র জয় করা সুবিধাজনক হবে। ভাইয়ের বন্দিত্বের খবর পেয়ে ফ্রন্টিস তার ভাইকে উদ্ধার করতে রওয়ানা হলেন। ফ্রন্টিস জিউসের কাছে সাহায্যের জন্য প্রার্থনা করেছিলেন এবং জিউস ফ্রন্টিসকে টেম্পেস্ট্রিস নামক একটি ঘোড়া দান করেন, যার ইগলের মত ডানা রয়েছে (জিউসের পবিত্র প্রাণী)। এর ফলে ফ্রন্টিস ককেশাসের উঁচু পর্বতমালার উপর দিয়ে উড়ে গিয়ে নিরাপদে আয়োনেট্রিয়ায় পৌঁছতে সক্ষম হন। আয়োনেত্রিয়ায় পৌঁছানোর পরে, ফ্রন্টিস তার ভাই মেলাস এবং আরও অনেক গ্রীক এবং আনাতোলিয়ান ভ্রমণকারী ব্যবসায়ীকে কারাগারের বন্ধন থেকে মুক্তি দিয়েছিলেন। এরপরে তিনি আয়োনেট্রিয়ার বাসিন্দাকে বিদ্রোহ করতে এবং টেলিক্রেটসকে উৎখাত ও হত্যা করতে সহায়তা করেছিলেন, এভাবে আয়োনেট্রীয়দেরকে তাদের অত্যাচারী রাজার হাত থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। লিস্ট্রা নামে এক আয়োনেট্রিয়ান নারী ফ্রন্টিস ও মেলাসের সাথে গ্রিসে ফেরার পথে যোগ দেন, পরবর্তীতে ফ্রন্টিস লিস্ট্রাকে বিয়ে করেছিলেন। মেলাসের বিবাহ হয় অ্যাথামাস ও থেমিস্টোর কন্যা ইউরিক্লেইয়া এর সাথে, তাদের হাইপেরেস নামে এক পুত্রসন্তানের জন্ম হয়।[১] হাইপেরিস একটি ঝড়নার কাছে বাস করতেন, হাইপেরিসের নামের সাথে মিলিয়ে যার নাম দেয়া হয় হাইপেরিয়া।[২]

অন্যান্য ব্যবহার সম্পাদনা

  • ফ্রন্টিস প্যানথুয়াসের স্ত্রী এবং ইউফরবাসহাইপেরেনরের মা ছিলেন।
  • ফ্রন্টিস ছিলেন মেনেলাউসের নৌকার কাণ্ডারী।
  • অ্যাডেল গেরাসের ট্রয়- এ অ্যালাস্টারের মা ছিলেন ফ্রন্টিস।

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. Scholia on Pindar, Pythian Odes 4.221
  2. Scholia on Pindar, Pythian Ode 4. 221c