ফখরুল হাসান বৈরাগী

ফখরুল হাসান বৈরাগী একজন বাংলাদেশী চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন অভিনেতা যিনি চলচ্চিত্র ও টিভি নাটকে অভিনয় করেন। তিনি কি যে করি (১৯৭৬), রাজিয়া সুলতানা (১৯৮৪), প্রেম যুদ্ধ (১৯৯৪) চলচ্চিত্রে সহকারি পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। তার পরিচালনায় ১৯৮৫ সালে "নাদিরা" নামে একটি চলচ্চিত্র মুক্তি পায়। সূর্য দীঘল বাড়ী (১৯৭৯), সুরুজ মিয়া (১৯৮৪), দহন (১৯৮৫) এবং মরণের পরে (১৯৯০) এর মত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। এছাড়াও অসংখ্য বাংলা নাটকে অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করেন এই অভিনয়শিল্পী। বিটিভির জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান "ইত্যাদি" এর বিভিন্ন চরিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন।

২০১৬ সালের ৭ আগস্ট, তার স্ত্রী রাজিয়া হাসান একটি ডায়েরি দায়ের করেন কারণ তিনি ৪০ দিনেরও বেশি সময় ধরে নিখোঁজ ছিলেন। পরে, তিনি বাড়ি ফিরে আসেন।[১][২]

পুরস্কারসম্পাদনা

শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতার জন্য বাচসাস পুরস্কার - ১৯৮৪ : সুরুজ মিয়া চলচ্চিত্রে পার্শ্বচরিত্রে অভিনয়ের জন্য।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Veteran actor Fakhrul Hasan Bouragi missinh for 40 days!"। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জানুয়ারি ২০১৮ 
  2. সংবাদদাতা, নিজস্ব। "প্রবীণ অভিনেতা নিখোঁজ, খোঁজ চেয়ে অনলাইনে ছেলের আবেদন"anandabazar.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-১৯