প্রধান মেনু খুলুন
ভেনিজুয়েলায় একজন হস্তচালিত শ্রমিক। হস্তচালিত শ্রমিকদের সাধারণত সর্বহারার অংশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়

সর্বহারা বা প্রলেতারিয়েত (ইংরেজি: Proletariat) হচ্ছে আধুনিক পুঁজিবাদী সমাজের প্রধানতম শ্রেণি। সর্বহারা বলতে মজুরি শ্রমিকদের সেসব শ্রেণিকে বোঝানো হয় যারা উৎপাদনের উপায় থেকে বঞ্চিত। সর্বহারাগণ নিজ শ্রমশক্তি বিক্রয় করে জীবনধারণ করেন এবং তারা বুর্জোয়াদের দ্বারা শোষিত হন।

মার্কসবাদী তত্ত্বে, সর্বহারার একনায়কত্ব হচ্ছে সর্বহারার জন্য, সর্বহারার দ্বারা চালিত। মার্কসবাদী দৃষ্টিতে, সর্বহারার একনায়কত্ব সর্বহারা শ্রেণির নিজেদের বিলুপ্তি ঘটায় এবং সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠা করে।

ব্যুৎপত্তিসম্পাদনা

ল্যাটিন শব্দ proles শব্দ থেকে ইংরেজি proletariat শব্দটি এসেছে; যার বাংলা প্রতিশব্দ সর্বহারা।

মার্কসবাদী মতবাদসম্পাদনা

মার্কসীয় দৃষ্টিতে, উৎপাদনে ব্যবস্থায় যাদের কোন মালিকানা থাকে না এবং শ্রমশক্তি বিক্রি[১] থেকে প্রাপ্ত মজুরির আয়ে যাদের জীবন চলে তারাই সর্বহারা। অর্থনৈতিক উৎপাদন ব্যবস্থায় এই শ্রেণীর সম্পদ বলে কিছু থাকে না। এঁদের শ্রম মূলত কায়িক। বুর্জোয়া শ্রেণী দ্বারা শোষিত হয়। বুর্জোয়া শক্তির বিরুদ্ধে শ্রেণী সংগ্রাম ও সমাজতন্ত্রী বিপ্লবের সবচে বড় চালিকা শক্তি এবং কৃষক ও অন্যান্য শোষিত শ্রেণীকে সর্বহারা শ্রেণী নেতৃত্বদান করে।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Marx, Karl (১৮৮৭)। "Chapter Six: The Buying and Selling of Labour-Power"। Frederick Engels। Das Kapital, Kritik der politischen Ökonomie [Capital: Critique of Political Economy]। Moscow: Progress Publishers। সংগ্রহের তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  2. সৌরেন্দ্রমোহন গঙ্গোপাধ্যায়; রাজনীতির অভিধান; আনন্দ পাবলিশার্স প্রাইভেট লিমিটেড কলকাতা; তৃতীয় মুদ্রণ জুলাই ২০১৩, পৃষ্ঠা-৩২৩।