নির্মলা গোবিন্দরাজন

ভারতীয় লেখিকা

নির্মলা গোবিন্দরাজন একজন ভারতীয় ঔপন্যাসিক এবং সাংবাদিক। তাঁর উপন্যাস ট্যাবু (২০১৯) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সাহিত্য পুরস্কারের জন্য সংক্ষিপ্ত তালিকাভুক্ত হয়েছিল এবং ২০২০ সালে আত্তা গালাত্তা ব্যাঙ্গালোর সাহিত্য উৎসব বই পুরস্কারের জন্য দীর্ঘ তালিকাভুক্ত ছিল।

নির্মলা গোবিন্দরাজন
নির্মলা গোবিন্দরাজন
নির্মলা গোবিন্দরাজন
পেশাঔপন্যাসিক ও সাংবাদিক
ভাষাইংরেজি
জাতীয়তাভারতীয়
ওয়েবসাইট
দাপ্তরিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

জীবনী সম্পাদনা

নির্মলা গোবিন্দরাজন বেঙ্গালুরুতে থাকেন। তিনি কলেজে পড়ার সময় লেখালেখি শুরু করেছিলেন এবং পরে সাংবাদিক হিসেবে নিজের কর্মজীবন শুরু করেন।[১] তিনি বর্তমানে সামাজিক ক্ষেত্রের প্রামাণ্য তথ্য নথিবদ্ধ করার কাজ (ডকুমেন্টারিয়ান) করেন। ২০১৪ সালে, নির্মলা ব্যাঙ্গালোরে প্রথম টাইমস লিটারারি কার্নিভালে সহ-ব্যবস্থাপনা করেছিলেন এবং ২০১৬ সালে, ব্যাঙ্গালোরের ব্রিটিশ কাউন্সিলের সাহিত্য লাউঞ্জ সিরিজে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন।[২]

কাজ সম্পাদনা

নির্মলা গোবিন্দরাজন বেশিরভাগ লেখাই পাচার, শোষণ এবং শিশুশ্রমের বিষয়গুলি নিয়ে তৈরি এবং সেগুলিতে অর্থালংকার, রূপকচেতনার কৌশল ব্যবহার করা হয়েছে।[১][৩] তাঁর লেখাগুলি গীতিমূলক গদ্যে রচিত হয়েছে।[৪] তিনি ২০১৬ সালে তাঁর প্রথম উপন্যাস কমিউনিটি ক্যাটালিস্ট প্রকাশ করেন। এটি কর্ণাটকের উচ্চ শিক্ষা বিভাগের প্রাক্তন অতিরিক্ত মুখ্য সচিব ভারত লাল মীনার বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে অনুপ্রাণিত।[৫][৬][৭]

ভারতের গ্রামীণ হৃদয়ভূমিতে নির্মলা গোবিন্দরাজনের অভিজ্ঞতা নথিভুক্ত করার ওপর ভিত্তি করে লেখা উপন্যাস হাঙ্গার'স ডটারস (২০১৮)। উপন্যাসটি দুর্বল জীবনের কাব্যিক চিত্রায়ন। উপন্যাসটি ব্যক্তিস্বাধীনতা, ব্যক্তিত্ব এবং স্বাধীনতার গল্প বলে। এর প্রধান চরিত্রগুলি হলো ওড়িশা, ঝাড়খণ্ড এবং কর্ণাটকের অপরিচিত বনাঞ্চলের ছোট মেয়েরা। এটি ওড়িশার একটি প্রত্যন্ত গ্রামে বসবাসকারী একটি ছোট মেয়ে সুশান্তি বোদ্রার কথা বলে। তাকে খুব অল্প বয়সে বাধ্য হয়ে উপার্জন করতে হয়, কারণ ধরে নেওয়া হয়েছে তার বাবা মারা গেছে এবং তার মা নিখোঁজ। আরেকটি মেয়ে, নেলি, বয়স ৮, তার প্রভুপত্নীর বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়, অপহৃত হয় এবং তাকে নাগপুরের একটি পতিতালয়ে বিক্রি করা হয়। দুই দশক ধরে, তার মা গৌরাভা, কিঠাপুর গ্রামে তার বাড়িতে ফিরে আসার জন্য অপেক্ষা করছে।[৮][৯]

তাঁর আর একটি উপন্যাস ট্যাবু (২০১৯), অপহৃত হয়ে পাচার হয়ে যাওয়া অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের নিয়ে লেখা। এটি নারী শক্তি এবং পরিচয়ের কথা বলে। গল্পটি লেডি উইথ দ্য স্লেণ্ডার হ্যাণ্ডসের চারপাশে আবর্তিত হয়েছে, যে মেয়েটি মানুষ, অবৈধ ব্যবসা এবং অঞ্চলগুলিতে তার মানচিত্র তৈরি করতে চায়, সে কে ছিল জানার জন্য; যাতে সে শেষ পর্যন্ত কে হতে চায় সেই স্বাধীনতা দাবি করতে পারে। ট্যাবুর ঘটনা ঘুরে বেরিয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায়, স্পেন থেকে শ্রীলঙ্কা এবং তামিলনাড়ু পর্যন্ত। এটি যৌন ব্যবসায় মেয়েদের মনস্তাত্ত্বিক এবং শারীরবৃত্তীয় দিকগুলি অন্বেষণ করে। এটি মানব পাচার এবং শিশু পতিতাবৃত্তির আখ্যান চিত্রিত করে। উপন্যাসটি একটি গণতান্ত্রিক সমাজ এবং এর রাজনীতি সম্পর্কে বেশ কয়েকটি প্রশ্ন উত্থাপন করে এবং এই অভ্যাসগুলি বন্ধ করতে তাদের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন করে।[১০][১১][১২][১৩][১৪]

নির্মলা গোবিন্দরাজন দুটি বইয়ের সহ-লেখক, বইদুটি হলো: মাইণ্ড ব্লগ ১.০ এবং ট্রেলব্লেজারস অফ ব্যাঙ্গালোর[৬][১৫] তিনি টাইমস অফ ইন্ডিয়া, দ্য হিন্দু, ডেকান হেরাল্ড, ইন্ডিয়া টুডে এবং দ্য সানডে গার্ডিয়ানের জন্য লিখেছেন।

সম্মান সম্পাদনা

নির্মলা গোবিন্দরাজনের উপন্যাস ট্যাবু (২০১৯) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সাহিত্য পুরস্কারের জন্য সংক্ষিপ্ত তালিকাভুক্ত হয়েছিল এবং ২০২০ সালে আত্তা গালাত্তা ব্যাঙ্গালোর সাহিত্য উৎসব বই পুরস্কারের জন্য দীর্ঘ তালিকাভুক্ত ছিল।[১৬][১৭] উপন্যাসটি জে কে পেপার অথার অ্যাওয়ার্ডের ফিকশন বিভাগের জন্য দীর্ঘ তালিকাভুক্ত ছিল।

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. Dhanaraj, Ruth (২৪ জানুয়ারি ২০২০)। "Author Nirmala Govindarajan talks about her latest book, style of writing and what inspires her"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  2. "Literary Lounge"British Council | India। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ 
  3. Dhanaraj, Ruth (24 January 2020). "Author Nirmala Govindarajan talks about her latest book, style of writing and what inspires her". The Hindu. Retrieved 1 February 2021.
  4. Mitra, Ipshita (১৫ মার্চ ২০২০)। "Marquez's Eréndira Inspired This Author to Write About the Identity of a Sex Worker"The Wire। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  5. Dakshina, Yogita (৩ ডিসেম্বর ২০১৬)। "Book Review: What it takes to be a part of a people's movement"The Sunday Guardian Live। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  6. "Looking at life through the eyes of a bureaucrat"Deccan Chronicle। ২০১৬-১০-২৪। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  7. Roy, Supriya (১১ জুলাই ২০১৭)। "The Community Catalyst Speaks"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  8. Datta, Sravasti (২৪ জানুয়ারি ২০১৯)। "Activist fiction"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  9. "Hunger's Daughters by Nirmala Govindarajan – Review"Free Press Journal। ১৩ এপ্রিল ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  10. "Nirmala Govindarajan's 'Taboo' documents stories of girls pushed into sex trade"Deccan Herald। ১২ মার্চ ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  11. "Love in the time of identity politics"The Sunday Guardian Live। ৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  12. "Die Sprache der Leere"F.A.Z. (জার্মান ভাষায়)। ৮ জুন ২০২০। ৯ মার্চ ২০২৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  13. Munir, Rehana (১৭ নভেম্বর ২০১৯)। "Books of the week: From Love, Loss, and Longing in Kashmir to the India story of the Panama Papers, our picks"Firstpost। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  14. Saujata, Tushar (১ আগস্ট ২০২০)। "Taboo By Nirmala Govindarajan - A Journey into The Soul Of Its Characters"Explocity Bangalore। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  15. "Looking at life through the eyes of a bureaucrat". Deccan Chronicle. 2016-10-24. Retrieved 1 February 2021.
  16. "Rabindranath Tagore Literary Prize shortlist announced"The Indian Express। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  17. "Atta Galatta–Bangalore Literature Festival Book Prize longlist announced"The Indian Express। ১৫ অক্টোবর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা