নলীন সেনেবীরত্ন

জেনারেল গানেগোদা আপ্পুহামেলাগে ডন গ্র্যানভিল নলীন সেনেবীরত্ন (আগস্ট ২৫, ১৯৩১-আগস্ট ১২, ২০০৯) শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনীর কমান্ডার ছিলেন। এছাড়াও তিনি উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের প্রথম গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

নলীন সেনেবীরত্ন
আনুগত্যশ্রীলঙ্কা শ্রীলঙ্কা
সার্ভিস/শাখা শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী
কার্যকাল১৯৫৩-১৯৮৮
পদমর্যাদাজেনারেল
ইউনিটশ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী কোর অব ইঞ্জিনিয়ার্স
নেতৃত্বসমূহসেনা কমান্ডার
যুদ্ধ/সংগ্রামশ্রীলঙ্কার সাম্যবাদী রাজনৈতিক দলের সশস্ত্র বিদ্রোহ বিরোধী যুদ্ধ,
শ্রীলঙ্কার গৃহযুদ্ধ
পুরস্কারবিশিষ্ট সেবা বিভূষণ
অন্য কাজউত্তর পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের গভর্নর

সামরিক চাকরীসম্পাদনা

১৯৫১ সালে সেনেবীরত্ন তৎকালীন সিলন সেনাবাহিনীতে ক্যাডেট হিসেবে যোগ দেন, তাকে যুক্তরাজ্যের স্যান্ডহার্স্ট সেনা একাডেমীতে পাঠানো হয় এবং ওখান থেকে তিনি ১৯৫৩ সালে সিলন ইঞ্জিনিয়ার্স (এখন শ্রীলঙ্কা নামে পরিচিত) কোরে কমিশন প্রাপ্ত হন।

১৯৫৫ সালে তিনি লেঃ, '৫৮ সালে ক্যাপ্টেন এবং '৬৩ সালে মেজর হন। এই সময়ের মধ্যে তিনি সেনাবাহিনী সদর দপ্তরে স্টাফ এবং টাস্ক ফোর্স অ্যান্টি ইলিসিট ইমিগ্রেশনে দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। একাত্তরে তিনি লেঃ কর্নেল হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে ১ ফিল্ড ইঞ্জিনিয়ার্স রেজিমেন্টের অধিনায়ক হিসেবে নিয়োগ পান এবং পরে তাকে শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতির এডিসি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। ১৯৭৭ সালে তিনি পূর্ণ কর্নেল হন, এই পদবীতে তিনি ইঞ্জিনিয়ার গ্রুপের অধিনায়ক ছিলেন। তাকে ১৯৮১ সালে ব্রিগেডিয়ার পদবীতে উঠানো হয়, তিনি এ পদবীতে পানাগোদার সাপোর্ট ফোর্সের অধিনায়ক ছিলেন।

১৯৮৫ সালের ১১ আগস্ট তিনি মেজর জেনারেল পদে শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনীর কমান্ডার নিযুক্ত হন এবং পরের বছর তাকে লেঃ জেনারেল পদে উন্নীত করা হয়; তিনি ১৯৮৮ সালের ১৬ আগস্ট সেনাবাহিনী থেকে অবসর গ্রহণ করেন।[১][২] ২০০৭ সালে তাকে বিশেষ সম্মান হিসেবে পূর্ণ জেনারেল পদবীর অবসর ভাতা দেওয়া হয়।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Former service chiefs promoted
  2. "General Nalin Seneviratna passes away"। ১৬ আগস্ট ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৭