ডিমাপুর জেলা

নাগাল্যান্ডের একটি জেলা

ডিমাপুর (উচ্চারণ:/ˌdɪməˈpʊə/) নাগাল্যান্ড-এর একটি জেলা৷ এর সদর শহর হল ডিমাপুর শহর৷ ২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে এই জেলা নাগাল্যান্ডের এগারটি জেলার মধ্যে অন্যতম জনবহুল জেলা৷[১]

ডিমাপুর জেলা
নাগাল্যান্ডের জেলা
নাগাল্যান্ডে ডিমাপুরের অবস্থান
নাগাল্যান্ডে ডিমাপুরের অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যনাগাল্যান্ড
সরকার
 • লোকসভা কেন্দ্রনাগাল্যান্ড
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৩,৭৯,৭৬৯
স্থানাঙ্ক২৫°৪৮′ উত্তর ৯৩°৪৭′ পূর্ব / ২৫.৮০০° উত্তর ৯৩.৭৮৩° পূর্ব / 25.800; 93.783স্থানাঙ্ক: ২৫°৪৮′ উত্তর ৯৩°৪৭′ পূর্ব / ২৫.৮০০° উত্তর ৯৩.৭৮৩° পূর্ব / 25.800; 93.783
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

জনসংখ্যাসম্পাদনা

২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে ডিমাপুর জেলার জনসংখ্যা ৩৭৯,৭৬৯ জন[১], তুলনামূলকভাবে মালদ্বীপ দেশের সমান৷[২] ভারতের মোট ৬৪০ টি জেলার মধ্যে জনসংখ্যার দিক থেকে ডিমাপুরের স্থান ৫৬৩তম৷[১] ২০০১-২০১১ সালে ডিমাপুরের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল শূন্য৷[১] ডিমাপুর জেলার প্রতি ১০০০ জন পুরুষের মধ্যে মহিলার সংখ্যা হল ৯১৬ জন [১] এবং সাক্ষরতার হার হল ৮৫.৪৪ শতাংশ[১]

এই জেলার জনসংখ্যা ভিন্ন জাতি ও ধর্মের লোকের সমষ্টি৷ জনগণের বেশিরভাগই খ্রিস্টান (৬১.৮৪ শতাংশ ), উল্লেখযোগ্য হিন্দু সম্প্রদায়ের জনসংখ্যা ২৮.৭৫ শতাংশ। [১] এখানকার সংখ্যাগরিষ্ঠ লোকরা হল নাগা উপজাতির লোক৷

জৈববৈচিত্র্যসম্পাদনা

১৯৮৬ সালে ডিমাপুরের একাংশ রঙাপাহাড় বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য হিসাবে ঘোষণা করা হয়৷ এই অভয়ারণ্যের ক্ষেত্রফল হল ৪.৭ বর্গ কিলোমিটার৷[৩]

শিক্ষাসম্পাদনা

ডিমাপুর জেলাটিতে অনেক সংখ্যক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে৷ এর বেশিরভাগ বিদ্যালয়ে শিক্ষার মাধ্যম ইংরাজী ও বিদ্যালয়সমূহ নাগাল্যান্ড বোর্ড অব স্কুল এড্যুকেশ্যনের অধীনে পরিচালিত হয়৷ নাগাল্যান্ডের প্রধান বিদ্যালয়সমূহের মধ্যে পাটকাই বিদ্যালয়, হোলি ক্রস বিদ্যালয়, সেইন্ট পল উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কারমেল উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, এস ডি জৈন উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, প্রণব বিদ্যাপীঠ, ডিমাপুর রেলওয়ে উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সেইন্ট জোসেফ উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয় (চুমুকেডিমা), সরকারী উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, এম.জি.এম. উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, খ্রিস্টান উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পূর্ব একাডেমী উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কুইন মেরি বিদ্যালয় চেকিয়ে ইত্যাদি প্রধান।

জাতীয় প্রযুক্তিবিদ্যা প্রতিষ্ঠান, নাগাল্যান্ড ডিমাপুরের সুমুকেডিমায় সম্প্রতি আরম্ভ হয়। এছাড়াও ডিমাপুর জেলায় মোট ১৮ টি প্রতিষ্ঠিত মহাবিদ্যালয় আছে৷ এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য মহাবিদ্যলয়সমূহ হল, পাটকাই খ্রিষ্টিয়ান কলেজ (উত্তর-পূর্ব ভারতের একমাত্র স্বায়ত্তশাসিত কলেজ), ডিমাপুর সরকারী মহাবিদ্যলয়, এস. ডি. জৈন মহাবিদ্যালয়, প্রণবানন্দ মহিলা মহাবিদ্যালয়, সেলসিয়ান কলেজ, বসকো বি এড কলেজ, সল্ট ক্রিশ্চিয়ান কলেজ, টেটসো কলেজ ইত্যাদি। হোস্টেলের থাকার ব্যবস্থা কয়েকটি কলেজের পাশাপাশি মিঠুন জাতীয় গবেষণা কেন্দ্রের পশুপালনে জড়িত একটি গবেষণা কেন্দ্রও পাওয়া যায়।

ভোকেশনাল সেন্টারসম্পাদনা

কর্মসংস্থান অধিদফতর দ্বারা পরিচালিত মহিলাদের 'শিল্প প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট' (ডাব্লুআইটিআই), বহু বেসরকারী আইটি প্রতিষ্ঠান ছাড়াও বৃত্তিমূলক / দক্ষতামূলক প্রশিক্ষণ দেয়।

ক্রীড়াসম্পাদনা

ডিমাপুরের এক উল্লেখযোগ্য ফুটবল ক্লাব হল ডিমাপুর ইউনাইটেড৷ এই ক্লাবটি নাগাল্যান্ড প্রিমিয়ার লীগে নিয়মিতভাবে অংশগ্রহণ করে৷

সংস্কৃতিসম্পাদনা

ডিমাপুরের ডিজেফে গ্রামে কারুশিল্পের সংগ্রহশালা অবস্থিত৷[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০ 
  2. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-০১Maldives 394,999 July 2011 est. 
  3. Indian Ministry of Forests and Environment। "Protected areas: Nagaland"। ২৩ আগস্ট ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  4. 101 pilgrimages। Outlook India Publishing। ২০০৬। পৃষ্ঠা 311। আইএসবিএন 9788189449032 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

টেমপ্লেট:নাগাল্যান্ডের জেলা