জর্জ ফ্লয়েড

আফ্রিকান আমেরিকান ব্যক্তি, যিনি ২০২০ খ্রিষ্ঠাব্দের ২০ মে মিনেসোটা শহরের মিনিয়াপোলিসে পুলিশ দ্বারা আটককৃত অবস্থায় মারা যান।

জর্জ পেরি ফ্লয়েড (১৪ অক্টোবর ১৯৭৩-২৫ মে ২০২০) ছিলেন একজন আফ্রিকান আমেরিকান ব্যক্তি, যিনি ২০২০ খ্রিষ্ঠাব্দের ২০ মে মিনেসোটা শহরের মিনিয়াপোলিসে পুলিশ দ্বারা আটকৃত অবস্থায় মারা যান। ফ্রয়েডের মৃত্যু এবং আরো বিস্তৃতভাবে বললে, অন্যান্য কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকানদের বিরুদ্ধে পুলিশের সহিংসতার প্রতিক্রিয়ায় বিক্ষোভ শুরু হয়; যা সমগ্র যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে এবং আন্তর্জাতিক পরিসরে ছড়িয়ে পরে।

জর্জ ফ্লয়েড
জন্ম
জর্জ পেরি ফ্লয়েড জে.আর

(১৯৭৩-১০-১৪)১৪ অক্টোবর ১৯৭৩[১]
মৃত্যু (বয়স ৪৬)
শিক্ষাসাউথ ফ্লোরিডা কমিউনিটি কলেজ
পেশাট্রাক চালক, নিরাপত্তারক্ষী
আদি নিবাসহাউস্টন, টেক্সাস, যুক্তরাষ্ট্র।
সন্তান

ফ্লয়েড টেক্সাসের হাউস্টোনে বেড়ে ওঠেন। তিনি মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং কলেজ জীবনে ফুটবল এবং অন্যান্য খেলাধূলায় পারদর্শী ছিলেন। তার বন্ধু এবং আত্মীয় স্বজনরা তাকে পেরি বলে ডাকলেও, যেসব মানুষ তাকে চিনতেন তাদের কাছে তিনি পরিচিত ছিলেন ভদ্র দানো (gentle giant) হিসেবে। হাউস্টোন হিপ হপ সঙ্গীতের ক্রমবিকাশে তিনি প্রথমদিকের অবদানকারী ছিলেন এবং যারা তার ধর্্মীয় সম্প্রদায়ের মানুষ ছিলেন তাদের পরামর্শদাতা হিসেবে কাজ করতেন। তিনি চৌর্যবৃত্তি এবং অবৈধ মাদক কারবারের জন্য একাধিকবার গ্রেফতার হন; ২০০৯ সালে অস্ত্রসহ ডাকাতির কারণে প্লি চুক্তি করে চারবছরের জন্য কারাভোগ করেন।

২০১৪ সালে ট্রাক চালক এবং দ্বার নিরাপত্তারক্ষী হিসেবে কাজের জন্য মিনিয়াপোলিসের মিনেসোটা এলাকায় স্থানান্তরিত হন। ২০২০ সালে তিনি কোভিড-১৯ মহামারীর সময় চাকরি হারান। তিনি জাল নোট ব্যবহার করে সিগারেট ক্রয়ের অভিযোগে গ্রেফতার হন। গ্রেফতারের সময় একজন শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার ডেরেক চাওভিন কর্তৃক আট মিনিট ছেচল্লিশ ধরে ঘাড়ের পিছনে হাটু গেড়ে বসে থাকার জন্য তার মৃত্যু হয়। তার গ্রেফতার, মৃত্যু এবং পুলিশের কার্যাবলীড় প্রতিবাদে আন্তর্জাতিক পরিসরে ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার্স নামক বিক্ষোভের সূত্রপাত হয়।

বাল্যজীবন এবং শিক্ষাসম্পাদনা

ফ্লয়েড ফায়েত্তাভিল,নর্থ ক্যারোলিনাতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং টেক্সাস, হিউস্টোনের থার্ড ওয়ার্ডের কিউনি হোমসে বড় হয়েছিলেন।[২][৩][৪][৫] বন্ধু এবং আত্মীয় স্বজনরা তাকে পেরি নামে ডাকলেও[৬]ময়নাতদন্তে বের হয়ে আসা ৬ ফু ৪ ইঞ্চি (১.৯৩ মি) উচ্চতাধারী এবং ২২৩ পাউন্ড (১০১ কেজি) ওজনবিশিষ্ট[৭] মানুষটি সবার কাছে পরিচিত ছিলেন "ভদ্র দানো" হিসেবে।[৮]

ইয়েট হাই স্কুলে বাস্কেটবল টিমে খেলতেন[২][৫] এবং টেক্সাস স্টেট চ্যাম্পিয়নশিপে ফুটবল টিমকে নের্তৃত্ব দিয়েছিলেন।[৯] ১৯৯৩ খ্রিষ্ঠাব্দে তিনি স্নাতক সম্পন্ন করেন।[৯] তিনি সাউথ ফ্লোরিডা কমিউনিটি কলেজে দুই বছরের জন্য ভর্তি হন এবং বাস্কেটবল টিমে খেলাধুলা করেছেন।[১০][১১] টেক্সাস এ&এম বিশ্ববিদ্যালয়-কিংসভালেতে তিনি বাস্কেটবল খেলায় অংশ নেন কিন্তু পরবর্তীতে ড্রপড আউট হন।[৯]

পেশা এবং পরবর্তী জীবনসম্পাদনা

ফ্লয়েড হিউস্টোনে ফিরে আসেন [১২] এবং বাস্কেটবল খেলা শুরু করেন।[৯].১৯৯৪ এর শুরুতে তিনি "বিগ ফ্লয়েড" মঞ্চ ব্যবহার করে র‍্যাপার হিসেবে শিল্প নৈপুণ্য প্রদর্শন করেন।[৯][১৩][১৪][১৫] তিনি অনানুষ্ঠানিক সম্প্রদায় নেতা ছিলেন এবং তরুণদের পরামর্শদাতা ছিলেন।[১৬]

একাধিক চৌর্যবৃত্তি এবং ড্রাগের অবৈধ কারবারের জন্য গ্রেফতার হন,[২] ফ্লয়েড ২০০৭ খ্রিষ্ঠাব্দে পাঁচজন ব্যক্তিসহ ঘরে ঢুকে ডাকাতির অভিযোগে অভিযুক্ত হন।[১৭] তিনি ২০০৯ সালে প্লি ডিল করেন এবং পাঁচ বছরের জন্য কারাভোগের শাস্তি পান।[১৮][১৯] ২০১৩ সালে ডিবোল ইউনিটে চারবছর কারাভোগের পর তিনি প্যারোলে মুক্তি পান।[৯]

২০১৪ সালে তিনি মিনিয়াপলিস মিনেসোটাতে স্থানান্তরিত হন,[২০] সেখানে তিনি ট্রাক চালক এবং রেস্তোরায় নিরাপত্তারক্ষী হিসেবে নিয়োগ পান।[৩] তিনি এস টি লুইস পার্কে বসবাস করতে শুরু করেন।[৯] ২০১৭ খ্রিষ্টাব্দে, তিনি অস্ত্র নিয়ে সহিংসতা বিরোধী একটি চলচ্চিত্র করেন।[২][৮] ২০২০ সালে তিনি কোভিড-১৯ মহামারীর সময় চাকরি হারান।[২১]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

তার পাঁচজন সন্তান ছিল,[২২][২৩][২৪][২৫][২৬]

মৃত্যুসম্পাদনা

 
কোনও দর্শকের দ্বারা নেওয়া ভিডিওর একটি চিত্র। পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চৌভিন ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু গেড়ে বসেছিলেন।

২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২৫শে মে মিনিয়াপোলিস শহরের নিকটবর্তী এলাকা পাওডারহর্ন পার্কের একটি মুদী দোকানে সিগারেট কিনতে গিয়ে জাল নোট ব্যবহার ব্যবহার করেন। বিক্রেতা ব্যাপারটা ধরতে পেরে সিগারেট ফেরত দিতে বললে ফ্লয়েড তা প্রত্যাখান করেন।[২৭]

শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার ডেরেক চাওভিন ফ্লয়েডকে গ্রেফতারের সময় মাটিতে শায়িত করে আট মিনিট ছেচল্লিশ সেকেন্ড ধরে হাঁটু দিয়ে গলা চেপে ধরে রাখে। ফ্লয়েডের হাতে হ্যান্ডকাফ পরা ছিল, পুলিশের নির্দেশনা মেনে মাথা মাটির দিকে রেখে মাটিতে শুয়েই ছিলেন তিনি।[২৮][২৯][৩০] দুইজন পুলিশ অফিসার তাকে নিয়ন্ত্রণ করছিলেন এবং চতুর্থ পুলিশ অফিসার ভীড় করে থাকা দর্শকদের এগিয়ে আসার গতি রোধ করছিলেন।[৩১]:6:24[৩২][৩৩] শেষ তিন মিনিটে ফ্লয়েড নিস্তেজ হয়ে পড়েছিলন এবং কোনো পালস পাওয়া যাচ্ছিল না।[২৮][৩০] কিন্তু সে সময়ে চৌভিন হাটু দিয়ে ফ্লয়েডের মাথা চেপে ধরে রেখেছিলেন।[৩৪]:6:46 ইমার্জেন্সি মেডিকেল টেকনিশিয়ান যখন ফ্লয়েডকে চিকিৎসার চেষ্টা করছিল, চাওভিন তখন ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাটু গেড়ে বসে ছিল।[৩৪]:7:21

প্রথম সরকারি ময়নাতদন্তের ফলাফল অনুসারে ফ্লয়েডের উপর দমন পীড়নের কারণে হৃদরোগে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।[৭][৩৫] বিষ বিশেষজ্ঞদের মতে তার শরীরে বিভিন্ন স্নায়ু উত্তেজক উপাদানের উপস্থিতি ছিল এবং ময়নাতদন্তকারীর প্রতিবেদন অনুসারে ফেনটানিল (ব্যথার ওষুধ) এবং মেথঅ্যামফিটামিনের (রিক্রিয়েশনাল ড্রাগ) কারণে তার হার্ট এটাক ত্বরান্বিত হয়।[৭][৩৬] ফ্লয়েডের পরিবারের নিয়োগ করা বেসরকারী ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন অনুসারে পুলিশ অফিসারের ভারী ওজনের কারণে শ্বাস নেওয়া জর্জের পক্ষে কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। ঘাড়ের উপর ক্রমাগত হাঁটুর চাপ পড়ায়, মস্তিষ্কে রক্ত যাওয়ার পথ সরু হয়ে যাওয়ার কারণে তার মৃত্যু হয়।[৩৭]

ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর পুলিশের অতিরিক্ত বল প্রয়োগের বিরুদ্ধে বিশ্বজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পরে। এই বিক্ষোভে লুট, সহিংসতা এবং পুলিশি নির্মমতা সংগঠিত।[৩৮][৩৯][৪০] যুক্তরাষ্ট্রের ৫০ টি রাজ্য সহ ৪০০ টি শহরে এবং আন্তর্জাতিকভাবে এই বিক্ষোভ ছড়িয়ে পরে।[৪][৪১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Mr. George Floyd Jr. - View Obituary & Service Information"Mr. George Floyd Jr. Obituary 
  2. "An athlete, friend and father - who was George Floyd?"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। মে ৩১, ২০২০। জুন ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  3. Richmond first=Todd (মে ২৮, ২০২০)। "Who was George Floyd? Unemployed due to coronavirus, he'd moved to Minneapolis for a fresh start."Chicago Tribune। জুন ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩, ২০২০ 
  4. Murphy, Esme (মে ২৬, ২০২০)। "'I Can't Breathe!': Video Of Fatal Arrest Shows Minneapolis Officer Kneeling On George Floyd's Neck For Several Minutes"KSTP-TV। মে ২৬, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৬, ২০২০While lying facedown on the road, Floyd repeatedly groans and says he can't breathe. 
  5. Gill, Julian (মে ২৭, ২০২০)। "In Houston, friends and family mourn 'gentle giant' George Floyd amid calls for murder charges for cops"Houston Chronicle। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৯, ২০২০ 
  6. Wallace, Danielle (জুন ৪, ২০২০)। "Hundreds, including Al Sharpton, Eric Garner's mom, mourn at George Floyd memorial in Minneapolis"Fox News (ইংরেজি ভাষায়)। জুন ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  7. "Hennepin County ME Autopsy Report"Hennepin County। জুন ১, ২০২০। জুন ৪, ২০২০ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  8. "Who was George Floyd? The 'gentle giant' who was trying to turn his life around"Sky News (ইংরেজি ভাষায়)। জুন ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  9. "The Houston Years of George Floyd"Texas Monthly (ইংরেজি ভাষায়)। মে ৩১, ২০২০। জুন ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৫, ২০২০ 
  10. Ebrahimji, Alisha (মে ২৯, ২০২০)। "This is how loved ones want us to remember George Floyd"CNN। মে ২৯, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১, ২০২০ 
  11. Holton, Jennifer (মে ২৯, ২০২০)। "'A good guy:' College classmate, coach remember George Floyd"WTVT। জুন ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১, ২০২০ 
  12. Lance Scott Walker (২০১৯)। Houston Rap Tapes: An Oral History of Bayou City Hip-Hop। University of Texas Press। পৃষ্ঠা 83। জুন ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  13. Julian, Gill (মে ২৭, ২০২০)। "Before dying in Minneapolis police custody, George Floyd grew up in Houston's Third Ward"Houston Chronicle। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩০, ২০২০ 
  14. Burney, Lawrence (মে ২৯, ২০২০)। "The Rap Report: To George Floyd a.k.a. Big Floyd of the legendary Screwed Up Click"FADER। জুন ১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১, ২০২০ 
  15. Holmes, Charles (জুলাই ২, ২০২০)। "'He Shook the World': George Floyd's Legendary Houston Legacy"Rolling Stone। জুন ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৫, ২০২০ 
  16. "George Floyd Left a Gospel Legacy in Houston"Christianity Today। জুন ৫, ২০২০। জুন ১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১, ২০২০ 
  17. Lapin, Tamar (মে ২৮, ২০২০)। "George Floyd was out of work during coronavirus before he was killed"। জুন ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৬, ২০২০ 
  18. Toone, Stephanie (জুন ৩, ২০২০)। "George Floyd, man killed in Minneapolis police encounter, had started new life in Minnesota"The Atlanta Journal-Constitution (English ভাষায়)। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  19. Walters, Joanna (মে ২৯, ২০২০)। "An athlete, a father, a 'beautiful spirit': George Floyd in his friends' words"The Guardian। জুন ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  20. Toone, Stephanie (মে ২৯, ২০২০)। "Floyd's brother tearfully asked for justice and peace following the 46-year-old bouncer's death Thursday"। Atlanta Journal-Constitution। Associated Press। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩০, ২০২০ 
  21. Richmond, Todd (মে ২৮, ২০২০)। "George Floyd had started a new life in Minnesota before he was killed by police"Boston Globe। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৮, ২০২০ 
  22. "George Floyd was killed on May 25"The Economist। জুন ৪, ২০২০। জুন ৪, ২০২০ তারিখে মূল  থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৫, ২০২০ 
  23. Evelyn, Kenya (জুন ৩, ২০২০)। "'I miss him': George Floyd's daughter speaks out for first time"The Guardian। জুন ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৫, ২০২০She added Floyd was a good father who wanted his daughter 'to have the best'. 
  24. "George Floyd Memorial Service In Minneapolis"। NBC News। জুন ৪, ২০২০। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  25. Ellis, Nicquel Terry; Davis, Tyler J. (মে ২৮, ২০২০)। "George Floyd remembered as 'gentle giant' as family calls his death 'murder'"Milwaukee Journal Sentinel। জুন ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২, ২০২০ 
  26. "George Floyd's son joins Texas protesters in peaceful demonstration ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৪ জুন ২০২০ তারিখে," KTRK-TV, (a local ABC News affiliate), June 1, 2020.
  27. Furber, Matt; Burch, Audra D. S.; Robles, Frances (মে ২৯, ২০২০)। "George Floyd Worked With Officer Charged in His Death"The New York Timesআইএসএসএন 0362-4331। মে ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩০, ২০২০ 
  28. Complaint – State of Minnesota v. Derek Michael Chauvin ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৩০ মে ২০২০ তারিখে, Minnesota District Court, Fourth Judicial District, File No. 27-CR-20-12646. May 29, 2020.
  29. Brooks, Jennifer (মে ২৮, ২০২০)। "George Floyd and the city that killed him"Star Tribune। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৯, ২০২০Down the road, people were marching and mourning Floyd, whose irreplaceable life ended after an arrest face-down on the asphalt of E. 38th Street. 
  30. Silverman, Hollie (মে ২৯, ২০২০)। "Floyd was "non-responsive" for nearly 3 minutes before officer took knee off his neck, complaint says"CNN। মে ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৯, ২০২০Chauvin had his knee on Floyd's neck for 8 minutes and 46 seconds in total, and 2 minutes and 53 seconds after Floyd was unresponsive, the complaint said. 
  31. Bennett, Dalton; Lee, Joyce; Cahlan, Sarah (মে ৩০, ২০২০)। "The death of George Floyd: What video and other records show about his final minutes"The Washington Post। সংগ্রহের তারিখ জুন ১, ২০২০  (video @ YouTube ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২ জুন ২০২০ তারিখে)
  32. Mannix, Andy (মে ২৬, ২০২০)। "What we know about Derek Chauvin and Tou Thao, two of the officers caught on tape in the death of George Floyd"Star Tribune। মে ২৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৭, ২০২০ 
  33. "Officer Charged With George Floyd's Death as Protests Flare"The New York Times। Associated Press। মে ২৯, ২০২০। জুন ৬, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  34. Hill, Evan; Tiefenthäler, Ainara; Triebert, Christiaan; Jordan, Drew; Willis, Haley; Stein, Robin (মে ৩১, ২০২০)। "8 Minutes and 46 Seconds: How George Floyd Was Killed in Police Custody"The New York Times। জুন ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১, ২০২০  (video @ YouTube ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১ জুন ২০২০ তারিখে)
  35. "George Floyd death was homicide, says updated medical examiner's report"www.abc.net.au (ইংরেজি ভাষায়)। জুন ১, ২০২০। জুন ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৪, ২০২০ 
  36. "Hennepin County Press Release on George Floyd's Death" (PDF)Hennepin County। জুন ১, ২০২০। জুন ৫, ২০২০ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৫, ২০২০ 
  37. Furber, Matt; Burch, Audra D. S.; Robles, Frances (মে ২৯, ২০২০)। "George Floyd Worked With Officer Charged in His Death"The New York Timesআইএসএসএন 0362-4331। মে ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩০, ২০২০ 
  38. AP (মে ২৮, ২০২০)। "Violent protests rock Minneapolis for 2nd straight night over in-custody death"KABC-TV। সংগ্রহের তারিখ মে ২৮, ২০২০ 
  39. Jimenez, Omar; Chavez, Nicole; Hanna, Jason (মে ২৮, ২০২০)। "As heated protests over George Floyd's death continue, Minnesota governor warns of 'extremely dangerous situation'"। CNN। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৮, ২০২০ 
  40. DeMarche, Edmund (মে ২৮, ২০২০)। "Deadly shooting near George Floyd protest as looting, arson grip Minneapolis"। Fox News Channel। মে ২৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৮, ২০২০Some protesters skirmished with officers, who fired rubber bullets and tear gas in a repeat of Tuesday night's confrontation 
  41. Donaghue, Erin (মে ২৯, ২০২০)। "Mayor makes emotional call for peace after violent protests: "I believe in Minneapolis""। CBS News। মে ২৯, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৯, ২০২০ 

বহিঃস্থ সংযোগসম্পাদনা


টেমপ্লেট:Death of George Floyd টেমপ্লেট:Black Lives Matter