চর্বি

প্রাণীদেহ থেকে প্রাপ্ত কঠিন স্নেহপদার্থ

চর্বি বলতে প্রাণীদেহ থেকে প্রাপ্ত স্নেহ পদার্থ জাতীয় উপাদানকে বোঝায়। তেল কক্ষ তাপমাত্রায় তরল অবস্থায় থাকে; এর বিপরীতে চর্বি কঠিন অবস্থায় থাকে। রাসায়নিকভাবে তেল ও চর্বি উভয়েই ট্রাইগ্লিসেরাইড নামক পদার্থ দিয়ে গঠিত। সাধারণত হাঁস-মুরগী, গরু-বাছুর, (পাশ্চাত্যের দেশগুলিতে) শূকর, ইত্যাদির দেহ থেকে চর্বিকলা সংগ্রহ করা হয়। দুগ্ধজাত দ্রব্য যেমন পনির, মাখন ও ননীযুক্ত দুধ প্রাণীজাত স্নেহ পদার্থের কিছু উদাহরণ।

বাছুরের পেটের বসা চর্বির টুকরো

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিক্রিকৃত প্রাণিজ অবশিষ্ট দ্রব্যের মধ্যে যদি বিশুদ্ধ স্নেহ পদার্থের পরিমাণ ৩০%-এর বেশি থাকে এবং আমিষের পরিমাণ ১৪%-এর কম থাকে, তাহলে তাকে চর্বি হিসেবে গণ্য করা হয়।[১]

ইংরেজিতে "অ্যানিমাল ফ্যাট" (Animal fat) পরিভাষাটি দিয়ে প্রাণীদেহ থেকে প্রাপ্ত শক্ত চর্বি ও চর্বিজাত তেল, উভয়কেই বোঝানো হয়ে থাকে।

রান্নায় ব্যবহারসম্পাদনা

চর্বি গলিয়ে প্রাপ্ত তেল সেঁকা ময়দার সুখাদ্যকে খাস্তা করতে, এর বুনট আরও ঝুরঝুরে করতে ব্যবহার করা হতে পারে। চর্বি গলানো তেল বিশেষ স্বাদের জন্য নির্বাচন করা হতে পারে। অনেক সময় তেল অন্যান্য উপাদানের স্বাদ ধারণ ও বহন করতে পারে। এছাড়া চর্বিজাত তেল গরম করে তাতে অন্য খাবার রান্না করা হতে পারে (এক্ষেত্রে তেলের প্রজ্জ্বলন বিন্দু উচ্চ হতে হয়)।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Definitions and Standards of Identity, FDA.gov, ১৯৭৮-০৬-১৩, ২০১০-০৮-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা, সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৩-১৬