চরমক্ষণ

কোনও আখ্যানের ক্রমবর্ধমান নাটকীয় উত্তেজনার শেষ ধাপ

কোনও গল্প বা আখ্যানমূলক রচনার চরমক্ষণ বা সন্ধিক্ষণ বলতে সেটির ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা ও নাটকীয়তার চরম পরিণতি নির্দেশকারী শীর্ষবিন্দুকে বোঝায়, বা এমন একটি ক্ষণকে বোঝায়, যখন কোনও সমস্যার সমাধান প্রদান করার উদ্দেশ্যে সক্রিয় কার্যকলাপ শুরু হয়।[১][২][টীকা ১] গল্পের চরমক্ষণ এক ধরনের সাহিত্যিক উপাদান

সিজারের মৃত্যু, শেকসপিয়রের নাটক জুলিয়াস সিজার-এর চরমক্ষণ

ভাবাবরোহসম্পাদনা

চরমক্ষণের বিপরীত ধারণাটি হল ভাবাবরোহ[টীকা ২] এটি গল্পের কাহিনীতে এমন একটি পরিস্থিতির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য যেখানে ক্রমবর্ধমান নাটকীয়তা ও উৎকণ্ঠা-উত্তেজনায় ভরপুর আপাতদৃষ্টিতে খুবই কঠিন কোনও সমস্যা শেষ পর্যন্ত খুবই তুচ্ছ কিছুর মাধ্যমে সমাধান করা হয়।

টীকাসম্পাদনা

  1. চরমক্ষণের ইংরেজি পরিভাষা হল "ক্লাইম্যাক্স" (Climax), যা প্রাচীন গ্রিক শব্দ κλῖμαξ থেকে এসেছে, যার অর্থ "সিঁড়ি" বা "মই"। সন্ধিক্ষণকে ইংরেজিতে "টার্নিং পয়েন্ট" (Turning point) বলে।
  2. ইংরেজি: Anti-climax

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Robert Herrick; Lindsay Todd Damon (১৯০২)। Composition and Rhetoric for Schools। Original from Harvard University: Scott, Foresman and Co.। পৃষ্ঠা 382। 
  2. Jefferson Butler Fletcher; George Rice Carpenter (১৮৯৩)। Introduction to Theme-writing। Original from Harvard University: Allyn & Bacon। পৃষ্ঠা 84।