গৌহাটি উচ্চ ন্যায়ালয়

(গৌহাটি হাইকোর্ট থেকে পুনর্নির্দেশিত)

গৌহাটি উচ্চ ন্যায়ালয় (অসমীয়া: গুৱাহাটী উচ্চ ন্যায়ালয়) ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইন অনুযায়ী ১ মার্চ, ১৯৪৮ প্রতিষ্ঠিত হয়। আদি নাম ছিল আসাম ও নাগাল্যান্ড হাইকোর্ট। ১৯৭১ সালে উত্তর-পূর্বাঞ্চল এলাকা (পুনর্বিন্যাস) আইন অনুযায়ী নাম হয় গৌহাটি হাইকোর্ট। রাজ্যের সংখ্যার হিসেবে গৌহাটি হাইকোর্ট সবচেয়ে বড়ো এক্তিয়ার এলাকার অধিকারী। আসাম, অরুণাচল প্রদেশ, মণিপুর, মেঘালয়, নাগাল্যান্ড, ত্রিপুরামিজোরাম এই উচ্চ আদালতের এক্তিয়ারভুক্ত।

গৌহাটি উচ্চ ন্যায়ালয়
Vikramjit-Kakati-HC.jpg
প্রতিষ্ঠাকাল৫ এপ্রিল ১৯৪৮
অধিক্ষেত্রভারত
অবস্থানগৌহাটি, আসাম
প্রণয়ন পদ্ধতিভারতের প্রধান বিচারপতি এবং স্ব রাজ্যপালের পরামর্শ নিয়ে রাষ্ট্রপতি
অনুমোদনকর্তাভারতের সংবিধান
রায় পুনর্বিচারের আবেদন স্থানভারতের সর্বোচ্চ ন্যায়ালয়
বিচারকের মেয়াদ৬২ বছর বয়স পর্যন্ত
পদের সংখ্যা২৪
তথ্যক্ষেত্রhttp://ghconline.gov.in/
সম্প্রতিঅজয় লাম্বা

প্রধান সীট এবং বেঞ্চসম্পাদনা

গৌহাটি হাইকোর্টের প্রধান কার্যালয় আসামের গুয়াহাটিতে। তাছাড়া ছ-টি আউটলেইং বেঞ্চ আছে। এগুলি হল:

  1. কোহিমা বেঞ্চ, নাগাল্যান্ডের জন্য (১ ডিসেম্বর, ১৯৭২-এ প্রতিষ্ঠিত)।
  2. ইম্ফল বেঞ্চ, মণিপুরের জন্য (২৪ জানুয়ারি, ১৯৭২-এ প্রতিষ্ঠিত)।
  3. আগরতলা বেঞ্চ, ত্রিপুরার জন্য (১ ডিসেম্বর, ১৯৭২-এ প্রতিষ্ঠিত)।
  4. শিলং বেঞ্চ, মেঘালয়ের জন্য (১ ডিসেম্বর, ১৯৭২-এ প্রতিষ্ঠিত)।
  5. আইজল বেঞ্চ, মিজোরামের জন্য (১ ডিসেম্বর, ১৯৭২-এ প্রতিষ্ঠিত)।
  6. ইটানগর বেঞ্চ, অরুণাচলের জন্য (১ ডিসেম্বর, ১৯৭২-এ প্রতিষ্ঠিত)।

ইতিহাসসম্পাদনা

স্বাধীনতার পর আসাম বিধানসভা রাজ্যে একটি হাইকোর্ট স্থাপনের প্রস্তাব পাস করে। ১ মার্চ, ১৯৪৮ ভারতের গভর্নর-জেনারেল ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইন অনুযায়ী নিজ ক্ষমতাবলে আসাম হাইকোর্ট স্থাপন করেন। ৫ এপ্রিল, ১৯৪৮ ভারতের প্রধান বিচারপতি হরিলাল কানিয়া হাইকোর্ট ভবন উদ্বোধন করেন। সেই দিনই স্যার আর. এফ. লজ প্রথম মুখ্য বিচারপতি হিসেবে শপথ নেন। প্রথমে শিলং-এ চালু হলেও ১৪ আগস্ট ১৯৪৮ গুয়াহাটিতে সরিয়ে আনা হয়। ১ ডিসেম্বর ১৯৬৩-এ নাগাল্যান্ড রাজ্য গঠিত হলে হাইকোর্টের নাম পালটে রাখা হয় আসাম ও নাগাল্যান্ড হাইকোর্ট। ১৯৭১ সালে উত্তর-পূর্বাঞ্চল এলাকা (পুনর্বিন্যাস) আইন বলে উক্ত অঞ্চলের এলাকা পুনর্বিন্যাস করে পাঁচটি নতুন রাজ্য গঠিত হয় - আসাম, নাগাল্যান্ড, মণিপুর, মেঘালয় ও ত্রিপুরা। সেই সঙ্গে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলও গঠিত হয় - মিজোরাম ও অরুণাচল প্রদেশ। এই সময় হাইকোর্টের নাম পালটে গৌহাটি হাইকোর্ট করা হয়।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা