প্রধান মেনু খুলুন

গাছবাড়িয়া সরকারি কলেজ

গাছবাড়িয়া সরকারি কলেজ
Gachbaria Government College
অবস্থান
চট্টগ্রাম- কক্সবাজার মহাসড়ক, চন্দনাইশ উপজেলা
চট্টগ্রাম,  বাংলাদেশ
তথ্য
ধরনসরকারি
ভাষার মাধ্যমবাংলা
ক্যাম্পাসের ধরনগ্রাম্য
রঙ, , এবং                 
ক্রীড়াফুটবল, ক্রিকেট,
অন্তর্ভুক্তিজাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
শিক্ষা বোর্ডচট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার গাছবাড়িয়াতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশেই এ কলেজের অবস্থান।

অবস্থানসম্পাদনা

চট্টগ্রাম শহর থেকে প্রায় ৩৫ কিলোমিটার দক্ষিন-পূর্বে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পশ্চিম পাশে চন্দনাইশ থানার গাছবাড়ীয়া প্রামের ৭.৬৪ একর জমির উপর অত্যন্ত মনোরম পরিবেশে এ কলেজের অবস্থান।

ইতিহাসসম্পাদনা

শিক্ষা একটি জীবনব্যাপী প্রক্রিয়া. সৃষ্টির আদিকাল থেকে সভ্যতার উন্মেষ ঘটাতে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা অনস্বীকার্য। এই লক্ষ্যে দক্ষিণ চট্টগ্রামস্থ চন্দনাইশ উপজেলার গাছবাড়ীয়া এলাকার শিক্ষানুরাগী সুধীজন, বিভিন্ন পেশাজীবী ও জ্ঞান তাপসের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ১৯৬৯ সালের ১ জুলাই গাছাবাড়ীয়া কলেজে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। প্রতিষ্ঠা লগ্নে কলেজের নিজস্ব জমি না থাকায় গাছবাড়ীয়া নিত্যানন্দ গৌর চন্দ্র উচ্চবিদ্যালয় অংশে পাঠদান শুরু হয়। ১৯৮০ সালের ১মার্চ কলেজটি সরকারী কলেজ নামে আত্মপ্রকাশ করে। পরবর্তীতে ১৯৯৫ সালে গাছবাড়ীয়া সরকারী কলেজ নিজস্ব জমিতে অনুষদভিত্তিক ভবন, প্রশাসনিক ভবন, দ্বিতল বিশিষ্ট লাইব্রেরী ভবন ও প্রশস্ত মাঠসহ সবুজে ঘেরা নান্দনিক পরিবেশে নতুন মহিমায় উদ্ভাসিত হয়। বর্তমানে এ কলেজ বৃহত্তর দক্ষিন চট্টগ্রামের একটি স্বনামধন্য সরকারী কলেজ হিসেবে সুপরিচিত।

অবকাঠামোসম্পাদনা

কলেজের নতুন ক্যাম্পাসের বিরাট এলাকা জুড়ে রয়েছে সুসজ্জিত চারটি বৃহৎ ভবন। এগুলো হলো প্রশাসনিক ভবন, বানিজ্য ভবন, কলাভবন ও বিজ্ঞান ভবন। এছাড়াও রয়েছে দ্বিতল গ্রন্থাগার ভবন, শিক্ষকদের জন্য একটি নতুন ডরমেটরী ও পাম্প হাউজ। পুরানো ক্যাম্পেসে শিক্ষকদের জন্যে জন্য একটি ডরমেটরী ও ছাত্রাবাস অবস্থিত। সেমিনারঃ অর্থনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, হিসাববিজ্ঞান, ব্যবস্থাপনা বিভাগে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার জন্য সুসজ্জিত সেমিনার কক্ষ রয়েছে। সেমিনারে মূলবান বই এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নালে সমৃদ্ধ।

ল্যাবরেটরিঃ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিটি বিভাগে রয়েছে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ ল্যাবরেটরি। এতদঞ্চলে খুব কম সংখ্যক কলেজে এ রকম ল্যাবরেটরি আছে।

কম্পিউটার ল্যাবঃ কম্পিউটার বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্যে কলেজে বেশ কয়েকটি কম্পিউটার আছে। তাছাড়া আইসিটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দানের জন্য ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে।

অনুষদসমূহসম্পাদনা

ক) কলেজ প্রতিষ্ঠালগ্নে থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক (পাশ) শ্রেনিতে কলা, বানিজ্য, বিজ্ঞান ও সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগে পাঠদান করা হচ্ছে। সহ-পাঠ কার্যক্রম ও কলেজের একটি উল্লেখযোগ্য দিক।

অনার্স বিষয়ঃ খ) বর্তমানে অর্থনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান,হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু রয়েছে।হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ১৮০টি এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও অর্থনীতি বিষয়ে ১২০টি করে আসন রয়েছে। ভবিষ্যতে আসন সংখ্যা দ্বিগুন করার পরিকল্পনা আছে।

প্রস্তারিত অনার্স বিষয়/মাস্টার্স কোর্সঃ এ কলেজের ৭টি বিষয়ে অনার্স চালু করার প্রস্তাব মন্ত্রাণালয়ে বিবেচনাধীন আছে। বিষয়গুলো হলো বাংলা, ইংরেজী, ইসলামের ইতিহাস ও সাংস্কৃতি,দর্শন, পাদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন,গনিত। অনার্স বিষয়গুলোর বিভাগে মাস্টার্স কোর্স চালু করা প্রক্রিয়াধীন।

সহশিক্ষা কার্যক্রমসম্পাদনা

কলেজ ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে আছে একটি বিস্তৃত খেলার মাঠ। এতে ছাত্ররা ফুটবল, ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টনসহ সকল আউটডোর গেমস-এ অংশগ্রহণ করতে পারে।তাছাড়া ছাত্র ও ছাত্রী মিলনায়তনে অভ্যন্তরীণ খেলাধুলার ব্যবস্থা আছে। বার্ষিক সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সাপ্তাহ উদযাপন, বিতর্ক প্রতিযোগিতা এবং অন্তরঙ্গণ ও বহিরঙ্গণ ক্রিড়ানুষ্ঠান কলেজের পাঠ্যক্রমে বহির্ভূত কার্যক্রমের একটা উল্লেখ্যযোগ্য দিক।

  • বি.এন.সি.সি শৃংখলা ও দায়িত্ববোধ অর্জনের জন্য কলেজে বি.এন.সি.সি ক্যাডেট হিসেবে যোগদানের সুযোগ আছে। অংশগ্রহনকারী ক্যাডেটবৃন্দ সামরিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ, সেনাবাহিনীর সাথে শীতকালীন মহড়া, সেনাবাহিনীতে যোগদান,দেশ বিদেশে ভ্রমণ, বিনা খরচে ইউনিফর্ম, স্নাতক পর্যায়ে সামরিক বিজ্ঞান পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ ভোগ করে থাকে। গৌরবের বিষয় অতি সম্প্রতি এ কলেজের একজন বি.এন.সি.সি ক্যাডেট বি.এন.এ লং কোর্সে ভর্তি হবার যোগ্যতা অর্জন করেছে। রোভার-স্কাউটঃ লেখাপড়ার পাশাপাশি একজন ছাত্রকে আদর্শ, চরিত্রবান,কর্মঠ ও আত্মনির্ভরশীল সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য রোভার স্কাউটের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষন দেয়া হয়। এ ছাড়াও বিনামূল্যে রোভার পোশাকসহ দেশ-বিদেশের বিভিন্ন অনুষ্ঠান স্কাউটের পক্ষ হতে অংশগ্রহণের সুযোগ রয়েছে।


বিবিধসম্পাদনা

  • ক্লাসে উপস্থিতিঃ ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাসে উপস্থিতির ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষাবোর্ডের বিধি বিধান কঠোরভাবে প্রয়োগ করা হয়। ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাসে উপস্থিতি থাকা বাধ্যতামূলক। ভিজিল্যান্স টীমঃ সাপ্তাহের প্রতিদিন আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও ছাত্র-ছাত্রীদের শ্রেনীকার্যক্রম তদারকি করার জন্যে অধ্যাপকের সমন্বয়ে ভিজিল্যান্স টীম কার্যকর রয়েছে।
  • আর্থিক সাহায্যঃ কলেজে অধ্যয়নরত গরীব ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের দরিদ্র তহবিল থেকে স্টাইপেন্ড প্রদান করা হয়। পরীক্ষাঃ সাময়িক, বার্ষিক ও নির্বাচনী পরীক্ষাসমূহে ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহন বাধ্যতামূলক। পরীক্ষার ফলাফল অভিভাবকদের নিকট পাঠানো হয়। টিউটোরিয়াল ও ক্লাস টেস্ট এ কলেজের উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য।
  • নির্ধারিত পোষাকঃ ডিগ্রী পাস ও অনার্স কোর্সের ছাত্রদের হালকা নীল (আকাশী) শার্ট ও কালো ফুল প্যান্ট এবং ছাত্রীদের সাদা এপ্রোণ ও আকাশী স্কার্ফ পরা বাধ্যতামূলক।
  • ছাত্রাবাসঃ কলেজের পুরানো ক্যাম্পাসে রয়েছে একটি ছাত্রাবাস যেখানে প্রায় ৫০জন ছাত্র অবস্থান করতে পারে।
  • শিক্ষক ডরমিটরীঃ ৫০সীটের একটি বাস ও কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের আনা-নেয়ার ব্যবহৃত হচ্ছে।
  • অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষের প্রস্তাবিত বাসভবনঃ অত্র কলেজে অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষের বাসভবন তৈরীর প্রস্তাব মন্ত্রাণালয়ে সক্রিয় বিবেচনাধীন রয়েছে। গভীর টিউবওয়েলঃ ছাত্র-ছাত্রীদের সুপেয় পানি সরবরাহের জন্য কলেজ ক্যাম্পাসে একটি গভীর টিউবওয়েল আছে। সাব পাওয়ার স্টেশনঃ এ কলেজে ২০০ কে.বি ক্ষমতা সম্পন্ন একটি সাবপাওয়ার স্টেশন রয়েছে। ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্যে এ পাওয়ার স্টেশন স্থাপন করা হয়।
  • কলেজে ভর্তির নিয়মাবলীঃ ডিগ্রী পাস ও অনার্স কোর্সে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে/বিশ্ববিদ্যালয়ে বিধি মোতাবেক মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়। ভর্তি সংক্রান্ত জ্ঞাতব্য সকল বিষয় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে যথাসময়ে জানানো হয়। তাছাড়া কলেজ ওয়েব সাইটে সকল তথ্য দেয়া হয়।

ব্যবস্থাপনাসম্পাদনা

শিক্ষকবৃন্দসম্পাদনা

কৃতি শিক্ষার্থীসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা