গণতান্ত্রিক কেন্দ্রিকতাবাদ

গণতান্ত্রিক কেন্দ্রিকতাবাদ বলতে সকল লেনিনবাদী রাজনৈতিক দলের অভ্যন্তরীণ কাঠামোগত নীতিসমূহকে অভিহিত করা হয়। মাঝে মাঝে এর দ্বারা আবার যে কোনো রাজনৈতিক দলের অভ্যন্তরে গৃহীত কোনো লেনিনপন্থী নীতিকেও একইভাবে চিহ্নিত করা হয়ে থাকে। এই সাংগঠনিক পদ্ধতির গণতান্ত্রিক শব্দবন্ধটি দ্বারা বোঝানো হয় যে কোন নীতি নির্ধারণের পূর্বে সকল দলীয় সদস্যের সে বিষয়ে আলোচনা, বিতর্ক এবং মতবিনিময় করার অধিকার রয়েছে; কিন্তু যখনই সংখ্যাগরিষ্ঠের সমর্থন লাভ করে একটি সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে তখন দলের প্রতিটি সদস্যই সেই সিদ্ধান্তটিকেই মান্য করবেন। পরের শব্দটি দ্বারা কেন্দ্রিকতাবাদ প্রকাশ করা হয়। গণতান্ত্রিক কেন্দ্রিকতাবাদ শব্দবন্ধটিকে লেনিন ব্যাখ্যা করেছিলেন এইভাবে যে এটি হলো "মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং কার্যক্ষেত্রে ঐক্য"।[১]

গণতান্ত্রিক কেন্দ্রিকতাবাদ বলতে সকল লেনিনবাদী রাজনৈতিক দলের অভ্যন্তরীণ কাঠামোগত নীতিসমূহকে অভিহিত করা হয়। মাঝে মাঝে এর দ্বারা আবার যে কোনো রাজনৈতিক দলের অভ্যন্তরে গৃহীত কোনো লেনিনপন্থী নীতিকেও একইভাবে চিহ্নিত করা হয়ে থাকে। এই সাংগঠনিক পদ্ধতির গণতান্ত্রিক শব্দবন্ধটি দ্বারা বোঝানো হয় যে কোন নীতি নির্ধারণের পূর্বে সকল দলীয় সদস্যের সে বিষয়ে আলোচনা, বিতর্ক এবং মতবিনিময় করার অধিকার রয়েছে; কিন্তু যখনই সংখ্যাগরিষ্ঠের সমর্থন লাভ করে একটি সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে তখন দলের প্রতিটি সদস্যই সেই সিদ্ধান্তটিকেই মান্য করবেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Lenin, V. (১৯০৬)। "Report on the Unity Congress of the R.S.D.L.P."। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৮-০৯