কৌশলগত পরিকল্পনা

কৌশলগত পরিকল্পনা বলতে কোনও সংগঠনের কৌশল বা দিক সংজ্ঞায়িত করা এবং ঐ কৌশল অনুসরণ করার জন্য সংগঠনের সম্পদগুলি বিলিবণ্টন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার প্রক্রিয়াটিকে বোঝায়।

এছাড়া ঐ কৌশল বাস্তবায়নকে পরিচালনাকারী নিয়ন্ত্রক কর্মপদ্ধতিগুলিও কৌশলগত পরিকল্পনার আওতায় পড়তে পারে। ১৯৬০-এর দশকে বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা কর্পোরেশনগুলিতে কৌশলগত পরিকল্পনা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে এবং অদ্যাবধি এটি কৌশলগত ব্যবস্থাপনার একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। কৌশলগত পরিকল্পনাবিদ বা কৌশলবিদেরা এগুলি সৃষ্টি করেন। তারা সংগঠন ও যে পরিবেশে সেটি অবস্থিত, তার সাথে সংগঠনের সম্পর্ক বিশ্লেষণ করেন এবং এই সব কাজে বহু পক্ষ ও গবেষণার উৎস অন্তর্ভুক্ত করেন।[১]

কৌশল কথাটির অনেক সংজ্ঞা আছে। তবে সাধারণত কৌশল বলতে কৌশলগত লক্ষ্য স্থির করা, ঐ সব লক্ষ্য অর্জনের জন্য কাজকর্মগুলি নির্ধারণ করা এবং সংগঠনের সম্পদগুলিকে গতিশীল করে ঐ কাজগুলি সম্পাদন করাকে বোঝায়। কীভাবে কোনও লক্ষ্য বা শেষ পরিণাম কোন উপায়ে (কোন সম্পদ ব্যবহার করে) অর্জিত হবে একটি কৌশল সেটির বর্ণনা দেয়। সাধারণত কোনও সংগঠনের জ্যেষ্ঠ নেতারা সেটির কৌশল নির্ধারণের দায়িত্ব পান। কৌশল পরিকল্পিত হতে পারে (অভিপ্রেত কৌশল) কিংবা প্রতিযোগিতার পরিবেশের সাথে উপযোজনশীল সংগঠনের কাজকর্মের বিন্যাস থেকে এটিকে পর্যবেক্ষণ করা যেতে পারে (উদ্ভূত কৌশল)।

কৌশলের মধ্যে সূত্রায়ন ও বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াগুলি অন্তর্ভুক্ত থাকে এবং কৌশলগত পরিকল্পনা দুইটির মধ্যে সমন্বয় সাধনে সহায়ক হয়। তবে কৌশলগত পরিকল্পনা বিশ্লেষণী প্রকৃতির (অর্থাৎ এটির কাজ হল "সংযোগ করার বিন্দুগুলি খুঁজে বের করা"); অন্যদিকে কৌশল সৃষ্টিকরণ হল কৌশলগত চিন্তার মাধ্যমে সংশ্লেষণ (অর্থাৎ "বিন্দুগুলি সংযুক্ত করা")। তাই কৌশলগত পরিকল্পনা কৌশল সৃষ্টিকরণের প্রক্রিয়াটিকে ঘিরে ঘটে থাকে।[১]

কৌশলগত পরিকল্পনার প্রভাবের প্রমাণসম্পাদনা

যদিও কৌশলগত পরিকল্পনাকে ঘিরে অনেক নেতিবাচক সমালোচনা বিদ্যমান, সাক্ষ্যপ্রমাণে দেখা গেছে এটি আসলেই কাজ করে। ২০১৯ সালে প্রকাশিত একটি অধি-বিশ্লেষণ অনুযায়ী (যেটিতে প্রায় নয় হাজার সরকারি ও বেসরকারি সংগঠনের উপাত্ত বিশ্লেষণ করা হয়) কৌশলগত পরিকল্পনা সংগঠনের কর্মসাধনের উপরে ইতিবাচক প্রভাব রাখে। কৌশলগত পরিকল্পনা কোনও সংগঠনের লক্ষ্য অর্জনের ক্ষমতা (অর্থাৎ সেটির কার্যকারিতা) জোরদার করতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। তবে গবেষণাটিতে এই যুক্তিও প্রদান করা হয় যে কেবলমাত্র একটি পরিকল্পনা থাকলেই চলবে ন। কৌশলগত পরিকল্পনা সফল হতে হলে এটিতে কিছু আনুষ্ঠানিকতা (অর্থাৎ অভ্যন্তরীণ ও বহিঃস্থ পরিবেশের বিশ্লেষণ ও ঐ বিশ্লেষণের ভিত্তিতে কৌশল, লক্ষ্য ও পরিকল্পনা নির্ধারণ), সর্বাঙ্গীণ সমন্বয় (অর্থাৎ অনেকগুলি কৌশলগত পছন্দের থেকে একটি পথ বাছাই করা) এবং সতর্কতামূলক অংশীজন ব্যবস্থাপনা (অর্থাৎ কৌশলগত পরিকল্পনা প্রক্রিয়ার ভিন্ন ভিন্ন ধাপে কাকে কাকে, কেন, কখন ও কীভাবে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে) - এই ব্যাপারগুলি থাকতে হয়।[২]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Mintzberg, Henry; Quinn, James B. (১৯৯৬)। The Strategy Process: Concepts, Contexts, Cases। Prentice Hall। আইএসবিএন 978-0-132-340304 
  2. George, Bert; Walker, Richard; Monster, Joost (১৫ অক্টোবর ২০১৯)। "Does Strategic Planning Improve Organizational Performance? A Meta‐Analysis"। Public Administration Review79 (6): 810–819। ডিওআই:10.1111/puar.13104  

আরও পড়ুনসম্পাদনা

  • Michael Allison and Jude Kaye (2005). Strategic Planning for Nonprofit Organizations. Second Edition. John Wiley and Sons.
  • John Argenti (1968). Corporate Planning – A Practical Guide. Allen & Unwin.
  • John Argenti (1974). Systematic Corporate Planning. Wiley.
  • Bradford and Duncan (2000). Simplified Strategic Planning. Chandler House.
  • Patrick J. Burkhart and Suzanne Reuss (1993). Successful Strategic Planning: A Guide for Nonprofit Agencies and Organizations. Newbury Park: Sage Publications.
  • L. Fahey and V. K. Narayman (1986). Macroenvironmental Analysis for Strategic Management. West Publishing.
  • Stephen G. Haines (2004). ABCs of strategic management: an executive briefing and plan-to-plan day on strategic management in the 21st century.
  • T. Kono (1994) "Changing a Company's Strategy and Culture", Long Range Planning, 27, 5 (October 1994), pp. 85–97
  • Philip Kotler (1986), "Megamarketing" In: Harvard Business Review. (March–April 1986)
  • Theodore Levitt (1960) "Marketing myopia", In: Harvard Business Review, (July–August 1960)
  • M. Lorenzen (2006). "Strategic Planning for Academic Library Instructional Programming." In: Illinois Libraries 86, no. 2 (Summer 2006): 22–29.
  • R. F. Lusch and V. N. Lusch (1987). Principles of Marketing. Kent Publishing,
  • Max Mckeown (2012), The Strategy Book, FT Prentice Hall.
  • John Naisbitt (1982). Megatrends: Ten New Directions Transforming our Lives. Macdonald.
  • Erica Olsen (2012). Strategic Planning Kit for Dummies, 2nd Edition. John Wiley & Sons, Inc.
  • Brian Tracy (2000). The 100 Absolutely Unbreakable Laws of Business Success. Berrett, Koehler Publishers.