কোমর-উচ্চতা অনুপাত

দেহে মেদের বিতরণ ও সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্যঝুঁকি নির্দেশকারী সংখ্যাভিত্তিক সূচক

কোনও ব্যক্তির কোমর-উচ্চতা অনুপাত বলতে কোনও নির্দিষ্ট এককে (যেমন ইঞ্চি বা সেন্টিমিটার এককে) কোমরের বেড় বা পরিধির পরিমাপকৃত মানকে ঐ ব্যক্তির উচ্চতার পরিমাপকৃত মান (একই এককে) দিয়ে ভাগ করলে ০ ও ১-এর মধ্যবর্তী যে এককবিহীন ভগ্নাংশটি পাওয়া যায়, তাকে বোঝায়। যেমন কোনও ব্যক্তির পরিমাপকৃত উচ্চতা যদি ৫ ফুট ১০ ইঞ্চি (=অর্থাৎ ৭০ ইঞ্চি) হয় এবং তার কোমরের পরিমাপকৃত পরিধি বা বেড় যদি ৩৫ ইঞ্চি হয়, তাহলে তার কোমর-উচ্চতা অনুপাত হলো ৩৫ ইঞ্চি ÷ ৭০ ইঞ্চি = ০.৫।

কোমর-উচ্চতা অনুপাতটি দিয়ে কোনও ব্যক্তির দেহে মেদ বা স্নেহপদার্থের বিতরণ সম্পর্কে ধারণা করা যায়। যদি কারও কোমর-উচ্চতা অনুপাত বেশি হয়, তাহলে তার অতিশয় মেদবাহুল্য অর্থাৎ অতিস্থূলতাজনিত কারণে হৃদপিণ্ড ও রক্তসংবহনতন্ত্রের রোগ হবার ঝুঁকি বেশি থাকে। কোমর-উচ্চতা অনুপাতের সাথে ঔদরিক অতিস্থূলতা অর্থাৎ পেটে ও তলপেটে মাত্রাতিরিক্ত মেদবাহুল্যের সরাসরি সম্পর্ক আছে।[১]

আট বছর ধরে ১১ হাজার ব্যক্তির উপরে পরিচালিত একটি গবেষণার ফলাফল ২০১০ সালে প্রকাশিত হয়, যাতে গবেষকেরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হন যে বহুল প্রচলিত দেহ ভর সূচক (বডি ম্যাস ইনডেক্স, Body mass index) অপেক্ষা কোমর-উচ্চতা অনুপাতটি হৃৎপিণ্ড অকেজো হওয়া (হার্ট অ্যাটাক), পক্ষাঘাত (স্ট্রোক) বা মৃত্যুর ঝুঁকি পরিমাপ করার ক্ষেত্রে অধিকতর উন্নত একটি নির্দেশক।[২] তবে ২০১১ সালে প্রকাশিত একটি ১৩ বছরব্যাপী (৬০ হাজার ব্যক্তির উপরে পরিচালিত) গবেষণার ফলাফল অনুসারে কোমর-নিতম্ব অনুপাত (দেহ ভর সূচকের সাথে সামঞ্জস্য রেখে) রক্ত সরবরাহে বিঘ্নের কারণে সৃষ্ট হৃদরোগের ফলে মৃত্যু ভবিষ্যৎবাণী করার ক্ষেত্রে একটি উন্নততর নির্দেশক।[৩]

সাধারণত কোমর-উচ্চতা অনুপাত যদি ০.৫-এর বেশি হয়, তাহলে সেটিকে উচ্চ ঝুঁকি নির্দেশকারী সঙ্কটজনক মান হিসেবে গণ্য করা যায়। ২০১০ সালে কোমর-উচ্চতা অনুপাতের উপরে পরিচালিত বিভিন্ন গবেষণার একটি পর্যালোচনাতে বলা হয় যে "কোমর-উচ্চতা অনুপাত সম্ভবত সুবিধাজনক কারণ এটির জন্য বয়স, লিঙ্গ বা জাতিভিত্তিক সীমান্ত মানের কোনও প্রয়োজন হয় না।"[৪] ৪০ বা তার কম বয়সীদের জন্য সঙ্কটজনক মান হল ০.৫; ৪০-৫০ বছর বয়সী ব্যক্তিদের জন্য সঙ্কটজনক মান ০.৫ থেকে ০.৬-এর মধ্যে অবস্থিত; অন্যদিকে ৫০-ঊর্ধ্ব বয়সী ব্যক্তিদের জন্য সঙ্কটজনক মানটি ০.৬ বা এর বেশি হয়।[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. CM Lee, Huxley RR, Wildman RP, Woodward M (জুলাই ২০০৮)। "Indices of abdominal obesity are better discriminators of cardiovascular risk factors than BMI: a meta-analysis'"। Journal of Clinical Epidemiology61 (7): 646–653। ডিওআই:10.1016/j.jclinepi.2007.08.012পিএমআইডি 18359190 
  2. Schneider; ও অন্যান্য (২০১০)। "The predictive value of different measures of obesity for incident cardiovascular events and mortality."The Journal of Clinical Endocrinology & Metabolism95 (4): 1777–1785। ডিওআই:10.1210/jc.2009-1584পিএমআইডি 20130075 
  3. Mørkedal, Bjørn; Romundstad, Pål R; Vatten, Lars J. (২০১১)। "Informativeness of indices of blood pressure, obesity and serum lipids in relation to ischaemic heart disease mortality: the HUNT-II study"European Journal of Epidemiology26 (6): 457–461। আইএসএসএন 0393-2990ডিওআই:10.1007/s10654-011-9572-7পিএমআইডি 21461943পিএমসি 3115050  
  4. "WHtR may be advantageous because it avoids the need for age-, sex- and ethnic-specific boundary values".. Browning Lucy M, ও অন্যান্য (২০১০)। "A systematic review of waist-to-height ratio as a screening tool for the prediction of cardiovascular disease and diabetes: 0·5 could be a suitable global boundary value."Nutrition research reviews23 (02): 247–69। ডিওআই:10.1017/S0954422410000144 
  5. "Waist-Height Ratio Better Than BMI for Gauging Mortality"। ১৮ জুন ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০১৬