কেভিন পার্কার

অস্ট্রেলীয় সুরকার

কেভিন রিচার্ড পার্কার (জন্ম: ২০ জানুয়ারী ১৯৮৬) একজন অস্ট্রেলীয় সংগীতশিল্পী, গীতিকার, সংগীতজ্ঞ, এবং রেকর্ড প্রযোজক। তিনি তাঁর সংগীত প্রকল্প টেম ইম্পালার জন্য সর্বাধিক পরিচিত, যার জন্য তিনি লেখেন, সরাসরি সঙ্গীত পরিবেশনা করেন, রেকর্ড করেন এবং সংগীত তৈরি করেন।

কেভিন পার্কার
Tame Impala at Flow Festival Helsinki Aug 10 2019 -23.jpg
২০১৯ সালে কেভিন পার্কার
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম নামকেভিন রিচার্ড পার্কার
জন্ম (1986-01-20) ২০ জানুয়ারি ১৯৮৬ (বয়স ৩৬)
সিডনি, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
উদ্ভবপার্থ, পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রেলিয়া
ধরন
পেশা
  • গায়ক
  • গীতিকার
  • সঙ্গীতজ্ঞ
  • রেকর্ড প্রযোজক
বাদ্যযন্ত্র
  • কণ্ঠ
  • গিটার
  • ড্রাম
  • ব্যাস
  • কীবোর্ড
কার্যকাল২০০৫-বর্তমান
লেবেল
ওয়েবসাইটtameimpala.com

পার্কার চারটি টেম ইম্পালা অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন: ইনারস্পিকার (২০১০), লোনারিজম (২০১২), কারেন্টস (২০১৫) এবং দ্য স্লো রাশ (২০২০)। তিনি ১৩টি এআরআইএ মিউজিক অ্যাওয়ার্ড, দু'টি এপিআরএ অ্যাওয়ার্ড, একটি ব্রিট অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন এবং চারটি গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড মনোনয়ন পেয়েছেন।[৭]

টেম ইম্পালার কাজ ছাড়াও, পার্কার ২০০৯ সাল থেকে ২০১১ অবধি পন্ড নামক সাইকেডেলিক রক ব্যান্ডের ড্রামবাদক ছিলেন। তিনি এর আগে তাদের রেকর্ড প্রযোজনাতেও ছিলেন; বিয়ার্ড, ওয়াইভস, ডেনিম (২০১২), হোবো রকেট (২০১৩), ম্যান, ইট ফিলস লাইক স্পেস অ্যাগেইন (২০১৫), দ্য ওয়েদার (২০১৭) এবং তাসমানিয়া (২০১৯) নামক ষ্টুডিও অ্যালবামগুলিতে ব্যান্ডের সাথে কাজ করছেন, তবে তিনি গ্রুপটির অতি সাম্প্রতিক ষ্টুডিও অ্যালবাম, ৯ (উচ্চারিত:নাইন) তৈরিতে কাজ করেন নি।[৮]

নির্মাতা হিসাবে, পার্কার মার্ক রনসন, লেডি গাগা, কানইয়ে ওয়েস্ট, ট্র্যাভিস স্কট, মেলোডি'স ইকো চেম্বার এবং ফ্লেমিং লিপসের মতো শিল্পীদের সাথে কাজ ও সহযোগিতা করেছেন।[৯]

ডিস্কোগ্রাফিসম্পাদনা

টেম ইম্পালার হয়েসম্পাদনা

  • ইনারস্পিকার (২০১০)
  • লোনারিজম (২০১২)
  • কারেন্টস (২০১৫)
  • দ্য স্লো রাশ (২০২০)

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Calvert, John (১৪ জুলাই ২০১৫)। "Tame Impala Interview: Inside The Mind Of A Psych-Pop Shaman"NME। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৬ 
  2. Gregory Heaney (৮ অক্টোবর ২০১২)। "Lonerism – Tame Impala | Songs, Reviews, Credits, Awards"। AllMusic। ২৩ জুন ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুলাই ২০১৪ 
  3. Bychawski, Adam (২৯ নভেম্বর ২০১২)। "Tame Impala react to winning NME's Album Of The Year"NME। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৬ 
  4. "Tame Impala"The Guardian। ১৪ জুলাই ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুলাই ২০১৪ 
  5. Andrew Hatt (১৮ ডিসেম্বর ২০১৮)। "A New Trip for a New Era: The Neo-Psychedelia Explosion of the 2010s"। Backyard Collusions। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুন ২০১৯ 
  6. Breihan, Tom (২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০)। "Watch Tame Impala Go Full Synthpop, Playing 'Borderline' on Fallon"Stereogum। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  7. Cooper, Nathanael (২০২০-১১-২৬)। "Is Tame Impala a group? Kevin Parker explains"The Sydney Morning Herald (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২২ 
  8. Newstead, Al (২০২১-০৫-২০)। "POND announce new album with anti-gentrification boogie 'America's Cup'"triple j (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২২ 
  9. "Camila Cabello and Mark Ronson's "Find U Again" is mind-blowing pop"The FADER (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২২