কিং অব দ্য জাঙ্গল (১৯৩৩-এর চলচ্চিত্র)

চলচ্চিত্র

কিং অফ দ্য জাঙ্গল হল ১৯৩৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত মার্কিন রোমাঞ্চকর সাদাকালো চলচ্চিত্র। যেটি পরিচালনা করেছেন এইচ. ব্রুস হাম্বারস্টোন এবং ম্যাক্স মার্সিন। এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন মার্কিন সাঁতারু ও অলিম্পিক স্বর্ণ পদক বিজয়ী বুস্টার ক্রাব[২]

কিং অব দ্য জাঙ্গল
কিং অব দ্য জাঙ্গল (১৯৩৩-এর চলচ্চিত্র) পোস্টার.jpg
King of the Jungle
পরিচালকএইচ. ব্রুস হাম্বারস্টোন
ম্যাক্স মার্সিন
চিত্রনাট্যকার
  • চার্লস থার্লি স্টোনহ্যাম
  • ম্যাক্স মার্সিন
  • ফিলিপ ওয়াইলি
  • ফ্রেড নিবলো জুনিয়র
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকার
  • হার্মান হ্যাম
  • রুডল্‌ফ জে. কপ
  • জন লেইপল্ড
চিত্রগ্রাহকআর্নেস্ট হলার
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকপ্যারামাউন্ট পিকচার্স
মুক্তি
  • ১০ মার্চ ১৯৩৩ (1933-03-10)
দৈর্ঘ্য৭৩ মিনিট[১]
দেশযুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

আফ্রিকার এক জঙ্গলে কাসপা পর্বতের চূড়া থেকে নেমে আসে। কিছু সিংহের বাচ্চার সাথে তার দেখা হয় এবং সে তাদের সাথে খেলতে থাকে। মা সিংহ এসে তাকে নিয়ে যায় এবং তার বাচ্চাদের সাথে খেলতে দেয়। বছর বিশেক পরে কাসপা পরিপূর্ণ মানুষ এখন তার সিংহ বন্ধুদের সাহায্য করে। কিছু শিকারি বনে প্রবেশ করে তাকে দেখতে পায় এবং দেখে সে তর্জন গর্জন ছাড়া তাদের সাথে কথা বলতে পারছে না। তারা তাকে বন্দী করে এবং সিংহের সাথে খাঁচায় ভরে আমেরিকায় সার্কাসে বিক্রি করতে নিয়ে যায়। কাসপা বন্দীদশা থেকে নিজেকে মুক্ত করে এবং সাঁতরে নদী পাড়ি দিয়ে শহরে চলে যায়। সেখানে এক পথচারী তাকে দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ তার পিছনে লাগলে সে পালিয়ে গিয়ে একটি জানালা দিয়ে স্কুল শিক্ষক অ্যানি রজার্স ও তার রুমমেট সুয়ের অ্যাপার্টমেন্টে ঢোকে যায়। তাকে খাবার দেওয়ার পর অ্যানি তাকে শিক্ষাদান করে সভ্য করে তুলতে চায়। কিন্তু কাসপা নিজেকে এই নতুন জীবনে সুখী মনে করে না এবং সে আফ্রিকায় ফিরে যেতে চায়।

কুশীলবসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "King of the Jungle (1933)"টার্নার ক্লাসিক মুভিজ। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৭ 
  2. HALL, MORDAUNT (২৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৩৩)। "Buster Crabbe as a Wild Jungle Man Who Under- stands Lions Better Than He Does Human Beings."দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৭ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা