কামার একটি প্রাচীন পেশা যার কাজ লোহার জিনিসপত্র তৈরি করা। মূলত হিন্দু ধর্মের জনগোষ্ঠী এই পেশায় জড়িত। একসময় গৃহস্থালি ও কৃষিকাজে ব্যবহৃত অধিকাংশ লৌহযাত যন্ত্রপাতি কামাররা প্রস্তুত করতেন। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল দা, বটি, পেরেক, শাবল, কুড়াল, ছুরি ইত্যাদি।

কামার
Blacksmiths India 1774-1781.jpg
প্রাচীন কামারশালার ছবি - একজন কামার হাতুড়ি পেটাচ্ছে, আরেকজন হাপর চালাচ্ছে
পেশা
পেশার ধরন
পেশা
প্রায়োগিক ক্ষেত্র
কারবার
বিবরণ
যোগ্যতাশারীরিক শক্তি, ধারণা
কর্মক্ষেত্র
শিল্পী, কারিগর
সম্পর্কিত পেশা
যুদ্ধাশ্বপাল

কৃষিকাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতির মধ্যে ছিল লাঙ্গলের ফলা, কাস্তে, নিড়ানি, খুন্তি ইত্যাদি।[১] কামারদের কারখানা ক্ষুদ্রশিল্পের আওতায় পড়ে। কামারের কর্মস্থলকে বলে কামারশালা। কামারশালায় হাপর দিয়ে কয়লার আগুন-কে উস্কে রাখা হয়। এই আগুনে লোহা গরম করে তাকে পিটিয়ে বিভিন্ন আকারের জিনিস তৈরি হয়।[২] বাংলাদেশের অধিকাংশ কামারই বৈষ্ণব হলেও কিছু শাক্তধর্ম ধর্মালম্বী কামারও দেখা যায়।

নিজ কামারশালায় একজন কামার, ঢাকা, ২০০৯৤
বাংলাদেশের একটি কামারশালায় হাপর

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. [১][স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]/উইকিপিডিয়া
  2. "Online Etymology Dictionary"। Etymonline.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০২-২৭