কল্যাণজী-আনন্দজী

কল্যাণজী-আনন্দজী হল ভারতীয় সুরকার যুগল। তারা দুজন হলেন কল্যাণজী বীরজী শাহ (৩০ জুন ১৯২৮ - ২৪ আগস্ট ২০০০) এবং আনন্দজী বীরজী শাহ (জ. ২ মার্চ ১৯৩৩)। এই যুগল বলিউডের অসংখ্য চলচ্চিত্রে তাদের সঙ্গীত পরিচালনা ও সুরারোপের জন্য প্রসিদ্ধ।

কল্যাণজী-আনন্দজী
কল্যাণজী-আনন্দজী.jpg
প্রাথমিক তথ্য
জন্মকল্যাণজী: (১৯২৮-০৬-৩০)৩০ জুন ১৯২৮
আনন্দজী: (1933-03-02) ২ মার্চ ১৯৩৩ (বয়স ৮৭)
কচ্ছ জেলা, গুজরাত, ভারত
মৃত্যুকল্যাণজী: ২৪ আগস্ট ২০০০(2000-08-24) (বয়স ৭২)
ধরনচলচ্চিত্রের সুর
পেশাসুরকার, সঙ্গীত পরিচালক
কার্যকাল১৯৫৬-১৯৯৪

তাদের উল্লেখযোগ্য কাজ হল সরস্বতীচন্দ্র (১৯৬৮), সফর (১৯৭০), কোরা কাগজ (১৯৭৫), ডন (১৯৭৮), মুকাদ্দর কা সিকান্দর (১৯৭৮), কুরবানি (১৯৮০), লাওয়ারিস (১৯৮১)। তারা সরস্বতীচন্দ্র (১৯৬৮) চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন এবং কোরা কাগজ (১৯৭৫) চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অর্জন করেন।

কর্মজীবনসম্পাদনা

তারা ১৯৬৮ সালের সরস্বতীচন্দ্র চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। তারা ১৯৭৫ সালের কোরা কাগজ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৭৮ সালে তারা ডনমুকাদ্দর কা সিকান্দর এবং ১৯৮০ সালে কুরবানি চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা ও সুরারোপ করেন।

লাওয়ারিস (১৯৮১) চলচ্চিত্রে তাদের সুরকৃত "আপনি তো জ্যায়সে ত্যায়সে" গানটির রিমিক্স সংস্করণ ২০১০ সালের হাউজফুল চলচ্চিত্রে ব্যবহৃত হয়।[১] এই চলচ্চিত্রে অমিতাভ বচ্চনের গাওয়া "মেরে অঙ্গনে মেঁ তুমহারা ক্যায়া কাম হ্যায়" গানটি জনপ্রিয়তা অর্জন করে। পাশাপাশি এই গানের নারী সংস্করণে কণ্ঠ দিয়ে বলিউডে আগমন করেন অলকা ইয়াগনিক[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. লালওয়ানি, ভিকি (১ মে ২০১০)। "Court(ing) trouble for Housefull"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০২০ 
  2. ঝা, সুভাষ কে. (৯ নভেম্বর ২০১২)। "'Kalyanji-Anandji named me Angana Yagnik'"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০২০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা