প্রধান মেনু খুলুন
চিত্রাদূর্গাতে ওনাকে ওবাভ্ভা গর্ত

ওনাকে ওবাভ্ভা ছিলেন একজন ভারতীয় নারী যোদ্ধা যিনি মহিশূরের সুলতান হায়দার আলীর সৈন্যদের সাথে কর্ণাটকের চিত্রাদূর্গায় একাই পেষণী দিয়ে লড়েছেন।[১] তার স্বামী চিত্রাদূর্গার একটি নজর ঘাঁটির প্রহরী ছিলেন। কর্ণাটকে তাকে অন্যান্য নারী বীর যোদ্ধা আবাক্কা রানী, কেলাদী চেন্নামা ও কিত্তুর চেন্নামার সাথে শ্রদ্ধার সহিত স্বরণ করা হয়।[২]

ওবাভ্ভার ঘটনাসম্পাদনা

চিত্রাদূর্গায় মাদাকারী নায়েকের শাসনামলে হায়দার আলী খান চিত্রদূর্গা আক্রমণের প্রস্তুতি নেন। পাশের একটি নজর ঘাঁটির এক পাশে একটি গর্ত ছিল যেখান দিয়ে হায়দার আলী খান তার সৈনদের দূর্গের ভেতরে প্রবেশের জন্য মনস্থির করেন। সে সময় নজর ঘাঁটিতে তার স্বামী কাহাল মুদ্দা হানুমা প্রহরায় ছিলেন। হানুমা দুপুরের খাবার খেতে যাওয়ার পর সৈনরা সেই গর্ত দিয়ে প্রবেশের সিদ্ধান্ত নেয়। ওবাভ্ভা সে সময় স্বামীর জন্য পানি আনতে গিয়ে দেখতে পান গর্ত দিয়ে সৈন্য প্রবেশ করছে।[৩] এরপর তিনি তার হাতে থাকা লোহার পিষুণী দিয়ে একে একে সৈন্যদের মাথায় আঘাত করেন এবং মৃতদেহ সরিয়ে নেন।

পরবর্তীতে তার স্বামী এসে দেখতে পান যে তার স্ত্রী সৈন্যদের মৃতদেহের পাশে রক্তাক্ত অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছেন। একই দিন ওবাভ্ভা মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যু সম্পর্কে প্রচলিত তথ্য হলো, হয় তিনি শক থেকে মৃত্যুবরণ করেছেন অথবা সৈন্যরা তাকে হত্যা করেছে। যদিও ১৭৭৯ সালে হায়দার আলী শেষ পর্যন্ত দূর্গটি দখলে নিতে সমর্থ হন। তিনি হুলিয়া সম্প্রদায়ের নারী।[৪]

জনপ্রিয় সংস্কৃতিতেসম্পাদনা

কান্নাডায় ওবাভ্ভাকে জনপ্রিয় একজন নারী যোদ্ধা হিসবে দেখা হয়। যে গর্ত দিয়ে হায়দার আলীর সৈন্যরা প্রবেশের চেষ্টা করেছিল সেই গর্তকে ওনাকে ওবাভ্ভা নামে অবহিত করা হয়। বিভিন্ন চলচ্চিত্রে তার বীরত্বের কাহিনী নিয়ে সঙ্গীত রচনা করা হয়েছে এবং তার নামে একটি ভাস্কর্য উন্মুক্ত করা হয়েছে।[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Cathy Spagnoli, Paramasivam Samanna। Jasmine and Coconuts: South Indian Tales (1999 সংস্করণ)। Englewood, USA: Greenwood Publishing Group। আইএসবিএন 9781563085765। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  2. "Why is BJP against Tipu Sultan, and was this always the case?" 
  3. March of Mysore Vol.3 (1966 সংস্করণ)। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  4. B.N, Sri Sathyan, সম্পাদক (১৯৬৭)। Mysore State Gazetteer - Chitradurga District। Vol.4। Bangalore: Govt. of Mysore। পৃষ্ঠা 393। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  5. Sarojini Shintri; Kurukundi Raghavendra Rao (১৯৮৩)। Women freedom fighters in Karnataka। Prasaranga, Karnatak University। পৃষ্ঠা 151। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৬-১৭