এপ্রিল ফুল দিবস প্রতিবছর এপ্রিল মাসের প্রথম দিন পালিত হওয়া একটি দিবস। মাঝে মাঝে একে সকলকে বোকা বানানোর দিন বলে উদযাপন করা হয়।

এপ্রিল ফুল দিবস
Aprilsnar 2001.png
২০০১ সালে ডেনামার্কের কোপেনহেগেনে এপ্রিল ফুল দিবস উপলক্ষে রাস্তায় সৃষ্টি করা একটি স্থাপত্য।
অন্য নামসকলকে বোকা বানানোর দিন
ধরনসাংস্কৃতিক
পালনকৌতুক
তারিখ১লা এপ্রিল

উদ্ভবসম্পাদনা

 
লন্ডনের টাওয়ার অব লন্ডনে অনুষ্ঠিতব্য “লায়ন্স ওয়াশিং” নামে একটি অনুষ্ঠানের ১৮৫৭ সালের একটি টিকেট যে অনুষ্ঠানটি আসলে কাল্পনিক ছিল।

এই দিন প্রতিবেশীদের উপর কৌতুক করার জন্য একটি দিন হিসাবে সর্বত্র স্বীকৃত।[১] এপ্রিল ফুলস ডে এর কিছু প্রিকার্সর হলো, এটি রোমান হিলারিয়া উৎসব,[২]ভারতের হোলি উৎসব,[৩] এবং এর মধ্যযুগীয় ফুল ফিস্ট জড়িত। [৪] চসারের ক্যান্টারবারি টেলস (১৩৯২) ও এর সাথে জড়িত। এটি দুই ভাগে ছিল Nun's Priest's Tale এবং Syn March was gon[৫] আধুনিক পণ্ডিতদের বিশ্বাস এই পান্ডুলিপি অর্থাৎ আসলে চসার যা লিখেছিলেন, Syn March was gon তা অনুসরন করা এক ধরনের পথভ্রষ্টতা[৬]

হিলারিয়া ও বোকাদের ভোজসম্পাদনা

পারস্যের সিজদাহ বে-দারসম্পাদনা

বাইবেলের কাহিনিসম্পাদনা

চসারের ক্যান্টারবারি টেলসসম্পাদনা

জুলীয় ও গ্রেগোরীয় বর্ষপঞ্জিসম্পাদনা

ইরানে পার্সি ক্যালেন্ডার অনুসারে নববর্ষের ১৩তম দিনে আনন্দ মজা করা হয়। এই দিন গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে ১লা এপ্রিল ও ২রা এপ্রিল সদৃশ্য। ঐতিহাসিকদের মতে, ১৫৬৪ সালে ফ্রান্সে নতুন ক্যালেন্ডার চালু করাকে কেন্দ্র করে এপ্রিল ফুল ডে'র সুচনা হয়। ঐ ক্যালেন্ডারে ১লা এপ্রিলের পরিবর্তে ১লা জানুয়ারীকে নতুন বছরের প্রথম দিন হিসেবে গণনার সিদ্ধান্ত নেয়া হলে কিছু লোক তার বিরোধিতা করে। যারা পুরনো ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী ১লা এপ্রিলকেই নববর্ষের ১ম দিন ধরে দিন গণনা করে আসছিল, তাদেরকে প্রতি বছর ১লা এপ্রিলে বোকা উপাধি দেয়া হতো। ফ্রান্সে পয়সন দ্য আভ্রিল(poisson d'avril) পালিত হয় এবং এর সাথে সম্পর্ক আছে মাছের। এপ্রিলের শুরুর দিকে ডিম ফুটে মাছের বাচ্চা বের হয়। এই শিশু মাছগুলোকে সহজে বোকা বানিয়ে ধরা যায়। সেজন্য তারা ১ এপ্রিল পালন করে পয়সন দ্য এভ্রিল অর্থাৎ এপ্রিলের মাছ। সে দিন বাচ্চারা অন্য বাচ্চাদের পিঠে কাগজের মাছ ঝুলিয়ে দেয় তাদের অজান্তে। যখন অন্যরা দেখে তখন বলে ওঠে পয়সন দ্য আভ্রিল বলে চিৎকার করে। কবি চসারের ক্যান্টারবারি টেইলস(১৩৯২) বইয়ের নানস প্রিস্টস টেইল এ এই দিনের কথা খুজে পাওয়া যায়।

দীর্ঘ স্থায়ী প্রথাসম্পাদনা

যুক্তরাজ্যসম্পাদনা

যুক্তরাজ্যে এপ্রিল ফুলের দিন প্রাপককে অর্থাৎ যিনি এপ্রিলের বোকা হন তাকে "এপ্রিল ফুল!" বলে হাসি তামাশা ও চিৎকার করে প্রকাশ করা হয়।

আয়ারল্যান্ডসম্পাদনা

পোল্যান্ডসম্পাদনা

নরডিক দেশসম্পাদনা

এপ্রিল ফিশসম্পাদনা

ভারতসম্পাদনা

এপ্রিল ফুল দিবসের কৌতুকসম্পাদনা

অতুলনীয় কৌতুকের দিনসম্পাদনা

সমাদরসম্পাদনা

সাংস্কৃতিক তথ্যসূত্রসম্পাদনা

আরো দেখুনসম্পাদনা

আরো পড়ুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Bonner, John; Curtis, George William; Alden, Henry Mills; Samuel Stillman Conant; John Foord; Montgomery Schuyler; John Kendrick Bangs; Richard Harding Davis; Carl Schurz; George Brinton McClellan Harvey; Henry Loomis Nelson; Norman Hapgood (১৯০৮)। Harper's Weekly। Harper's Magazine Company। পৃষ্ঠা 6। 
  2. "April Fools' Day"Encyclopædia Britannica। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৩ 
  3. Brand, John (১৭২৫)। Brand's Popular Antiquities of Great Britain। Volume I (R&T, 1905 সংস্করণ)। London: Reeves and Turner। পৃষ্ঠা 12। 
  4. Santino, Jack (১৯৭২)। All around the year: holidays and celebrations in American lifeUniversity of Illinois Press। পৃষ্ঠা 97। আইএসবিএন 978-0-252-06516-3 
  5. The Canterbury Tales, "The Nun's Priest's Tale" - "Chaucer in the Twenty-First Century", University of Maine at Machias, 21 September 2007
  6. Carol Poster, Richard J. Utz, Disputatio: an international transdisciplinary journal of the late middle ages, ২য় ভলিয়ম, পৃষ্ঠা ১৬-১৭ (১৯৯৭)।

বহিঃসংযোগসম্পাদনা