উদস্থিতিবিজ্ঞান

প্রবাহী বলবিজ্ঞানের শাখা

উদস্থিতিবিজ্ঞান (ইংরেজি: Hydrostatics) বা প্রবাহী স্থিতিবিজ্ঞান (ইংরেজি: Fluid statics) প্রবাহী বলবিজ্ঞানের একটি শাখা যেখানে জল, তরল পদার্থ বা প্রবাহী পদার্থের স্থিতি ও স্থিতিশীল অবস্থায় এর অভ্যন্তরস্থ চাপ এবং নিমজ্জিত কোনও বস্তুর উপর জল, তরল বা প্রবাহী পদার্থের প্রযুক্ত চাপ নিয়ে অধ্যয়ন করা হয়।[১]

১৭২৪ সাইক্লোপিডিয়া থেকে হাইড্রোলিকস এবং হাইড্রোস্ট্যাটিকসের সারণী

যেসব শর্তের অধীনে প্রবাহী বা তরল পদার্থ স্থিতিতে থাকে, সেগুলি উদস্থিতিবিজ্ঞানের গবেষণার আওতাভুক্ত। এর বিপরীতে বিজ্ঞানের যে শাখায় গতিশীল প্রবাহী বা তরল পদার্থ নিয়ে অধ্যয়ন করা হয়, তাকে প্রবাহী গতিবিজ্ঞান বলে। উদস্থিতিবিজ্ঞান বা জলস্থিতিবিজ্ঞানকে প্রবাহী স্থিতিবিজ্ঞানের একটি শাখা হিসেবে শ্রেণীকরণ করা যায়।

উদস্থিতিবিজ্ঞান নামক ক্ষেত্রটি উদপ্রবাহবিজ্ঞান (Hydraulics) ক্ষেত্রের ভিত্তিস্বরূপ; উদপ্রবাহবিজ্ঞানে প্রবাহী বা তরল পদার্থ (বিশেষত জল বা জলীয় তরল) মজুদকরণ ও পরিবহন সংক্রান্ত প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা করা হয়। অধিকন্তু উদস্থিতিবিজ্ঞানের তত্ত্বগুলি ভূ-পদার্থবিজ্ঞান (যেমন ভূত্বকীয় পাত সঞ্চালন তত্ত্ব, পৃথিবীর অভিকর্ষ বলের অস্বাভাবিকতা), নভোপদার্থবিজ্ঞান, আবহবিজ্ঞান (উচ্চতার সাথে বায়ুমণ্ডলীয় চাপের পরিবর্তন), চিকিৎসাবিজ্ঞান (রক্তচাপ), এবং আরও বহুসংখ্যক বৈজ্ঞানিক ক্ষেত্রের জন্য তাৎপর্যপূর্ণ।

দৈনন্দিন জীবনের অনেক ঘটনার ব্যাখ্যা উদস্থিতিবিজ্ঞান থেকে পাওয়া সম্ভব, যেমন কাঠ ও তেল কেন পানিতে ভাসে, স্থির পানির পৃষ্ঠতল কেন সর্বদা সমতল থাকে, ইত্যাদি।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Hydrostatics"Merriam-Webster। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 

আরও দেখুনসম্পাদনা