চ্যান্ডলার উটপাখি উৎসব যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনার চ্যান্ডলারে বার্ষিক একটি উৎসব যেখানে উটপাখির পিঠে চড়ে যুদ্ধ, জীবন্ত উটপাখির প্রদর্শনী, দেশ-বিদেশের বিরল জাতের পাখি প্রদর্শনী, শূকর দৌড়, সি লায়ন প্রদর্শনী, ম্যাজিক শো, সার্কাস ও ব্যান্ড সঙ্গীতের সঙ্গে নাচ-গান অনুষ্ঠিত হয়।। স্থানীয় ব্যক্তিদের কাছে এটি ‘চ্যান্ডলার অস্ট্রিচ ফেস্টিভ্যাল’ নামে পরিচিত।[১][২]

উটপাখির দৌড়ের চিত্র

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৮৯ সালে অ্যারিজোনার চ্যান্ডলারে প্রথমবারের মতো শুরু হয়েছিল উটপাখি মেলা। এর আয়োজক ছিল চ্যান্ডলার চেম্বার অ্যান্ড কমার্স। হিসাবে দেখা গেছে, চ্যান্ডলারের ফিনিক্স এলাকায় যুক্তরাষ্ট্রের অধিকাংশ উটপাখির বাস। ১৯১৪ সালে সেখানে ছয় হাজারের বেশি উটপাখি ছিল বলে জানা যায়। এখানকার অনেক মানুষের জীবিকা এই পাখির সঙ্গে জড়িত। অনেকের এক বা একাধিক খামার রয়েছে, যেখানে বাণিজ্যিকভাবে উটপাখির মাংস, ডিম, পালক, তেলসহ নানা জিনিস উৎপাদিত হয়। এরপর তা সরবরাহ করা হয় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যে। এই শহরের উটপাখির সমৃদ্ধ খামারের পুরোনো ঐতিহ্যকে ধরে রাখতেই এই ব্যবসার সঙ্গে জড়িত মানুষ প্রথম উটপাখির মেলা শুরু করেছিল।[১][২]

আকর্ষণীয় পর্বসম্পাদনা

চ্যান্ডলার উটপাখি উৎসবের আকর্ষণীয় পর্ব উটপাখির দৌড়। পাঁচ কিলোমিটারের এ দৌড় প্রতিযোগিতা চলে প্রায় ৫০ মিনিট ধরে। এই মেলায় সুস্বাদু খাবারের মধ্যে থাকে উটপাখির মাংস ও ডিম।[১][২]

পর্যটনসম্পাদনা

শুরুতে উৎসবটি তেমন সাড়া জাগাতে না পারলেও প্রতিবছরই আয়োজিত হতে থাকে উটপাখি মেলা। ১৯৯৫ সালে এই উৎসব নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মিত হয় হলিউডে। ২০০৫ ও ২০০৬ সালে এ মেলার সঙ্গে যুক্ত হয় বিখ্যাত টিভি চ্যানেল ইএসপিএন। এসব কারণে এ মেলার পরিধি দিন দিন বড় হতে থাকে। যোগ দিতে থাকেন দেশি-বিদেশি পর্যটকেরা। এই উৎসবে যোগ দিতে দেশ-বিদেশ থেকে চ্যান্ডলারে আসে প্রায় সাড়ে তিন লাখ লোক।[১][২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. উৎসবটা ছিল উটপাখিদের নিয়ে ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৮ মে ২০১৮ তারিখে,আবুল বাসার, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ১৫-০৩-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  2. আজব উৎসব উটপাখির দৌড়,ফাহমিদা হক, দৈনিক কালের কণ্ঠ। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২৩ জুন ২০১১ খ্রিস্টাব্দ।