প্রধান মেনু খুলুন

উচ্চ সুবনসিরি জেলা

অরুণাচল প্রদেশের জেলা

উচ্চ সুবনসিরি জেলা হল ভারতের অরুণাচল প্রদেশ রাজ্যের একটি জেলা। ১৯৮৭ সালে সুবনসিরি জেলা জেলা ভেঙে উচ্চ ও নিম্ন সুবনসিরি জেলা গঠিত হয়।[২]

উচ্চ সুবনসিরি জেলা জেলা
অরুণাচল প্রদেশের জেলা
অরুণাচল প্রদেশে উচ্চ সুবনসিরি জেলার অবস্থান
অরুণাচল প্রদেশে উচ্চ সুবনসিরি জেলার অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যঅরুণাচল প্রদেশ
সদরদপ্তরদপোরিজো
আয়তন
 • মোট৭০৩২ কিমি (২৭১৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৮৩,২০৫[১]
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৬৪%[১]
 • লিঙ্গানুপাত৯৮২[১]
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

ভূগোলসম্পাদনা

দপোরিজো হল উচ্চ সুবনসিরি জেলার সদর শহর। এই জেলার আয়তন ৭,০৩২ বর্গকিলোমিটার (২,৭১৫ মা)।[৩] আয়তনে এই জেলা যুক্তরাজ্যের ইস্ট ফকল্যান্ডের প্রায় সমান।[৪] দপোরিজো, দুমপোরিজো, তালিহা, নাচো, সিয়ুম ও মারো এই জেলার উল্লেখযোগ্য শহর।

অর্থনীতিসম্পাদনা

২০০৬ সালে ভারত সরকার উচ্চ সুবনসিরি জেলাকে ভারতের ২৫০টি সবচেয়ে অনগ্রসর জেলার তালিকাভুক্ত করেছে।[৫] এটিই অরুণাচল প্রদেশের একমাত্র জেলা যেটি অনগ্রসর অঞ্চল অনুদান তহবিল কর্মসূচির অধীনে অনুদান পেয়ে থাকে।[৫]

বিভাগসম্পাদনা

অরুণাচল প্রদেশ বিধানসভার পাঁচটি আসন এই জেলার অন্তর্গত: নাচো, তালিহা, দপোরিজা, রাগা ও দুমপোরিজো। এই আসনগুলির সবকটিই অরুণাচল পশ্চিম লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত।[৬]

জনপরিসংখ্যানসম্পাদনা

২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে, উচ্চ সুবনসিরি জেলার জনসংখ্যা ৮৩,২০৫।[১] এই জনসংখ্যা অ্যানডোরা রাষ্ট্রের জনসংখ্যার প্রায় সমান।[৭] আয়তনের হিসেবে ভারতের ৬৪০টি জেলার মধ্যে এই জেলার স্থান ৬২১তম।[১] জেলার জনঘনত্ব ১২ জন প্রতি বর্গকিলোমিটার (৩১ জন/বর্গমাইল) ।[১] ২০০১-২০১১ দশকে জেলায় জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ৫০.৩৪%।[১] এই জেলার লিঙ্গানুপাতের হার প্রতি ১০০০ পুরুষে ৯৮২ জন নারী।[১] সাক্ষরতার হার ৬৩.৯৬%।[১]

এই জেলার অধিবাসীরা মূলত টাগিন, হিল মিরি ও গালো উপজাতির মানুষ।

ভাষাসম্পাদনা

তাগিন এই জেলার প্রধান ভাষা। সিনো-তিব্বতীয় ভাষাগোষ্ঠীর দুটি ভাষা। হিলস মিরি বা ন্যিশি ও গালো ভাষা জেলার পূর্বাঞ্চলে কিছু মানুষের ভাষা।[৮]

পাদটীকাসম্পাদনা

  1. "District Census 2011"। Census2011.co.in।  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "districtcensus" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  2. Law, Gwillim (২৫ সেপ্টেম্বর ২০১১)। "Districts of India"Statoids। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-১১ 
  3. Srivastava, Dayawanti et al. (ed.) (২০১০)। "States and Union Territories: Arunachal Pradesh: Government"। India 2010: A Reference Annual (54th সংস্করণ)। New Delhi, India: Additional Director General, Publications Division, Ministry of Information and Broadcasting (India), Government of India। পৃষ্ঠা 1113। আইএসবিএন 978-81-230-1617-7 
  4. "Island Directory Tables: Islands by Land Area"United Nations Environment Program। ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-১১East Falkland 7,040km2  horizontal tab character in |উক্তি= at position 14 (সাহায্য)
  5. Ministry of Panchayati Raj (৮ সেপ্টেম্বর ২০০৯)। "A Note on the Backward Regions Grant Fund Programme" (PDF)। National Institute of Rural Development। ৫ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  6. "Assembly Constituencies allocation w.r.t District and Parliamentary Constituencies"। Chief Electoral Officer, Arunachal Pradesh website। ১৩ আগস্ট ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১১ 
  7. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-০১198 Andorra 84,825 July 2011 est.  line feed character in |উক্তি= at position 4 (সাহায্য)
  8. "Galo: A language of India"Ethnologue: Languages of the World (16th edition সংস্করণ)। Dallas, Texas: SIL International। ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-২৮  অজানা প্যারামিটার |4168 editor= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)

বহিঃসংযোগসম্পাদনা