প্রধান মেনু খুলুন

আসবাবপত্র বলতে সেই সব বস্তুকে বোঝায় যা মানুষের বিভিন্ন কাজে(যেমন : শোয়া ,বসা) সাহায্য করে ও আরামদায়ক করে। তাছাড়া বিশেষ কিছু কাজ (যেমন:লেখা, পড়া) করার জন্য কোনো কিছুকে আনুভূমিক উচ্চতায় আনতে কিছু আসবাব সাহায্য করে।আবার ঘরের নানা সামগ্রি সাজিয়ে রাখতে আসবাব ব্যবহার করা হয় । কাঠ ,বাশ ,প্লাস্টিক ইত্যাদি উপাদান আসবাবপত্র তৈরি করতে প্রয়োজন। কারুকাজ এর মাধ্যমে আসবাবপত্র কে সুন্দর ও মনোরম করা হয়।[১]

ইতিহাসসম্পাদনা

একটি গবেষনায় বলা হয়েছে প্রায় ত্রিশ হাজার বছর আগ থেকে মানুষ কাঠ ,পাথর ইত্যাদির সাহায্য আসবাব তৈরি শিখেছে। স্কটল্যান্ডের ৫ হাজার বছর পুরোতন সভ্যতায় নানা ধরনের পাথরের আসবাব পাওয়া গেছে।প্রাচীন মিশরীয়রা যে নানারকম আসবাবপত্র ব্যবহার করত তার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

আসবাবপত্রের প্রকারসম্পাদনা

সাধারন আসবাবপত্রসম্পাদনা

  • বিছানা - মানুষের ঘুমানর জন্য তৈরি একটা আসবাব।এতে জাজিম বা তোষক দিয়ে তার উপর চাদর দিয়ে শোয়া হয় ।
  • চেয়ার - বসার জন্য এ আসবাব তৈরি হয়েছে।বর্তমানে কাঠ ও প্লাস্টিক দিয়ে চেয়ার তৈরি হয়।[২]
  • টেবিল - লেখা, পড়া, খাওয়া ইত্যাদি কাজের জন্য টেবিল তৈরি হয়েছে। কাজের সুবিধার জন্য এটি কোনো কিছু কে আনুভূমিক উচ্চতায় আনতে সাহায্য করে।

দেশি আসবাবপত্রসম্পাদনা

বাংলাদেশ বা বাংলা অঞ্চলে আসবাব বলতে সাধারণত বাংলার গ্রাম দেশের মানুষের নিজেদের জন্য তৈরি আসবাব। যেমন: খাট,বিছানা(কারুকাজ মন্ডিত )এগুলো বাংলার মানুষের সংস্কৃতির সঙ্গে জড়িয়ে থাকে।

কাঠের প্রকারসম্পাদনা

বিভিন্ন প্রকার উপাদান আসবাব তৈরিতে ব্যবহৃত হলেও কাঠই প্রধান উপাদান। প্রায় সব রকমের কাঠ আসবাব তৈরিতে ব্যবহার হয় । শক্ত ও নরম উভয় প্রকার কাঠ ব্যবহার উপযোগি। তবে শক্ত কাঠ বেশি ভাল । ওক, মেহগনি, চেরি ইত্যাদি গাছে শক্ত কাঠ পাওয়া যায়।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা