আল বাসুল ইসলামি

দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামার মাসিক আরবি ম্যাগাজিন

আল বাসুল ইসলামি (আরবি: البعث الإسلامي‎‎) দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামা থেকে প্রকাশিত একটি আন্তর্জাতিক মাসিক আরবি ম্যাগাজিন।[১][২] ১৯৫৫ সালে এটি প্রতিষ্ঠা করেন সৈয়দ মুহাম্মদ আল হাসানি। ম্যাগাজিনটির বর্তমান সম্পাদক সাঈদুর রহমান আজমি নদভি। প্রকাশের অল্প সময়ের ব্যবধানে ম্যাগাজিনটি জনপ্রিয়তা অর্জন করে। ভারতে আরবি সাহিত্যের প্রচার, আরব বিশ্ব ও ভারতের মধ্যে সেতুবন্ধন সহ সমগ্র বিশ্বে ইসলামি চিন্তাধারার প্রচার-প্রসারে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।[৩]

আল বাসুল ইসলামি  
আল বাসুল ইসলামি- ডিসেম্বর ২০২১ সংখ্যার প্রচ্ছদ.jpg
ডিসেম্বর’২০২১ সংখ্যার প্রচ্ছদ
বিষয়ইসলাম
ভাষাআরবি
সম্পাদকসাঈদুর রহমান আজমি নদভি
প্রকাশনা বিবরণ
প্রকাশক
সংযোগ
আল বাসুল ইসলামির লোগো

প্রথমে ম্যাগাজিনটির কার্যালয় ছিল সৈয়দ মুহাম্মদ আল হাসানির বাসায় এবং সম্পাদনা পরিষদের সদস্য ছিল মাত্র ৪ জন। সৈয়দ মুহাম্মদ আল হাসানি, সাঈদুর রহমান আজমি নদভি, মুহাম্মদ ইজতেবা নদভি ও ড. রশিদ নদভি। ১৯৬০ সালে এর কার্যালয় দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামার ক্যাম্পাসে স্থানান্তরিত হয় এবং তারপর থেকে এটি নিয়মিত প্রকাশিত হয়ে আসছে।[৩]

লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসম্পাদনা

ম্যাগাজিনটির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হল:[৪]

  • নতুন প্রজন্মের মধ্যে ধর্মীয় সচেতনতা সৃষ্টি করা এবং এর জন্য সম্ভাব্য সকল প্রচেষ্টা চালানো।
  • মুসলিম সম্প্রদায়কে প্রকৃত আকিদা গ্রহণের আমন্ত্রণ জানানো।
  • ইসলাম সম্পর্কে ভাল এবং দরকারী তথ্য প্রদান করা।
  • সমালোচনা পশ্চিমা বা অন্যদের থেকে হোক না কেন সম্ভাব্য সব উপায়ে ইসলামকে রক্ষা করা।
  • এই পত্রিকাটি সর্বদাই কাফের প্রথা ও মতাদর্শের সমালোচনা করে আসছে।
  • পশ্চিমা সংস্কৃতির অনুপ্রবেশ রোধ করা এবং তাদের ষড়যন্ত্র প্রকাশ করা।
  • ইসলামি বিশ্বের প্রধান খবর সংক্ষেপে এবং বিশ্লেষণ সহ উপস্থাপন করা।
  • ভারতে আরবি ভাষা ও সাহিত্যের প্রচার করা এর আগ্রহ সৃষ্টি করা।
  • ইসলামি ব্যক্তিত্বদের পরিচয় করিয়ে দেওয়া এবং তাদের উদ্ভাবন ও প্রচেষ্টা নিয়ে আলোচনা করা।
  • নদওয়াতুল উলামার দাওয়াহ প্রচার ও প্রসার করা।

বৈশিষ্ট্যসম্পাদনা

এই ম্যাগাজিনটির বৈশিষ্ট্য:[৫]

  • আল বাসুল ইসলামি মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব করে।
  • এই পত্রিকার লেখাগুলিতে কার্যকরী শৈলী, সমসাময়িক সমস্যা এবং বর্তমান বিষয়গুলির প্রতি মনোযোগ দেওয়া হয়।
  • পত্রিকাটির সম্পাদকীয়তে সমসাময়িক বিষয়গুলো বেশির ভাগই বিবেচনা করা হয়।
  • ইখওয়ানুল মুসলিমীন হিসেবে আরব দেশগুলির ইসলামি আন্দোলনের প্রতিরক্ষা এবং তাদের মতাদর্শ প্রচার।
  • আরব দেশগুলির সাথে সম্পর্কিত খবরগুলিতে বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হয়।
  • পত্রিকাটি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ প্রকাশ করেছে।

মূল্যায়নসম্পাদনা

ভারত ও আরবের বিভিন্ন শিক্ষিত গোষ্ঠীতে ম্যাগাজিনটির মান ও জনপ্রিয়তার কারণে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করেছে। নদওয়াতুল উলামা থেকে সবসময় আরবিতে দক্ষ ও চমৎকার লেখকদের এখানে নিয়োগ করা হয়। ম্যাগাজিনটি ভাষা বোঝার অভাব এবং সাংস্কৃতিক বন্ধন দ্বারা উৎপাদিত ভারত এবং আরব দেশগুলির মধ্যে ব্যবধান সফলভাবে পূরণ করেছে। প্রকাশের পরপরই এটি ইরাক এবং লিবিয়া প্রভৃতি আরব দেশ জুড়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। এটি আরবদের শিক্ষিত শ্রেণীর মধ্যে সাফল্য অর্জন করেছে।[৬]

মক্কার আর রাবেতাহ আল ইসলামিয়া পত্রিকার সম্পাদক আল বাসুল ইসলামি সম্পর্কে লিখেন,

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

উদ্ধৃতিসম্পাদনা

  1. আলংগদন, আনিস (২০১৪)। Relocating Arabic language and literature with reference to Arabic journalism in India 1950 to 2000 [১৯৫০ থেকে ২০০০ ভারতে আরবি সাংবাদিকতার উল্লেখ সহ আরবি ভাষা ও সাহিত্যের বিকাশ] (গবেষণাপত্র)। ভারত: মহাত্মা গান্ধী বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ১৬৮–১৮০। hdl:10603/30548 
  2. নদভী, সরওয়ার আলম (২০০০)। Development of Arabic journalism in India after independence [স্বাধীনতার পর ভারতে আরবি সাংবাদিকতার বিকাশ] (গবেষণাপত্র)। ভারত: আরবি বিভাগ, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ১৮২–২০১। hdl:10603/57825 
  3. আহমেদ, ফরিদ উদ্দিন (জুলাই ২০১৯)। "Arabic Journalism in India: its growth and development" [ভারতে আরবি সাংবাদিকতা : এর বৃদ্ধি এবং বিকাশ] (PDF)প্রতিধ্বনি (১): ৩০৯–৩১০। আইএসএসএন 2278-5264। ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ 
  4. দেসাই, আহমদ (২০১৫)। Development Of Indo Arabic Literature And The Contribution Of Dr Sayeedur Rahman Al A Zmi Al Nadwi To Al Baas Al Islami [ইন্দো আরবি সাহিত্যের বিকাশ এবং আল বাসুল ইসলামিতে ডক্টর সাঈদুর রহমান আল আজামি আন নদভীর অবদান] (গবেষণাপত্র)। ভারত: গৌহাটি বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ১৪৭–১৪৮। hdl:10603/93172 
  5. দেসাই ২০১৫, পৃ. ১৪৮–১৪৯।
  6. দেসাই ২০১৫, পৃ. ১৪৯–১৫০।

গ্রন্থপঞ্জিসম্পাদনা

  • রেহমান, শীবা (২০০৮)। Contribution of Darul Uloom Nadwatul to the Development of Arabic Journalism in India [ভারতে আরবি সাংবাদিকতার বিকাশে দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামার অবদান] (PDF) (গবেষণাপত্র)। ভারত: আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ৫৪–৬০। 
  • আরবি, জিকরুল্লাহ (২০১৯)। Contribution of Darul Uloom Deoband to Arabic Journalism With Special Reference of Al-Die [আদ দাঈ-এর বিশেষ উল্লেখ সহ আরবি সাংবাদিকতায় দারুল উলুম দেওবন্দের অবদান] (গবেষণাপত্র)। ভারত: আরবি বিভাগ, মাওলানা আজাদ জাতীয় উর্দু বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ৩২। hdl:10603/337869 
  • জুবাইলিয়া, পি. (২০২০)। Darul Uloom Nadwathul Ulama its Contributions to the Development of Arabic Language and Literature an analytical study [আরবি ভাষা ও সাহিত্যের বিকাশে দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামার অবদান: একটি বিশ্লেষণমূলক গবেষণা]। পশ্চিমবঙ্গ, ভারত: কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। hdl:10603/306944 
  • সিদ্দিকী, মুহাম্মদ শুয়াইব (১৯৯৩)। Nadwa Movement, Contribution, Development, Arabic Language, Literature, India [নদওয়া আন্দোলন, অবদান, উন্নয়ন, আরবি ভাষা, সাহিত্য, ভারত] (গবেষণাপত্র)। ভারত: আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়। hdl:10603/56142 
  • হাবিব, শহিদুল ইসলাম (৩১ ডিসেম্বর ২০১৪)। The Role Of Darul Uloom Nadwatul Ulema In The Field Of Arabic Journalism In India A Study [ভারতে আরবি সাহিত্যে দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামার ভূমিকা নিয়ে একটি অধ্যয়ন]। ভারত: আরবি বিভাগ, গৌহাটি বিশ্ববিদ্যালয়। hdl:10603/114360 
  • সামাদ, আব্দুস (২০১৮)। العلماء البارزون من دار العلوم لندوة العلماء الذين حصلوا على الجائزة التقديرية لنشر اللغة العربية وآدابها [আরবি ভাষা ও সাহিত্যে প্রশংসিত দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামার বিশিষ্ট আলেমগণ] (গবেষণাপত্র)। ভারত: মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ৫১–৫৬। hdl:10603/229374