আত্মহত্যার পদ্ধতি

আত্মহত্যার পদ্ধতি বলতে বুঝায় এমন কোনও উপায় যার মাধ্যমে একজন ব্যক্তি তাদের জীবন শেষ করে । আত্মহত্যার চেষ্টা সব সময় সফল হয় না। ফলে মৃত্যু না হয়ে বরং ব্যর্থ আত্মহত্যার চেষ্টার ফলে গুরুতর শারীরিক আঘাত, দীর্ঘমেয়াদী স্বাস্থ্য সমস্যা এবং মস্তিষ্কের ক্ষতিজনিত রোগ হতে পারে। [১]

মনেটের "বন্দুকের গুলিতে আত্মহত্যার চিত্রকর্ম

বিশ্বব্যাপী প্রচলিত আত্মহত্যার বিভিন্ন পদ্ধতিগুলোর অন্যতম তিনটি পদ্ধতি হচ্ছেঃ ফাসি দিয়ে আত্মহত্যা, কীটনাশকের বিষক্রিয়া এবং আগ্নেয়াস্ত্র[২] অন্যান্য সাধারণ পদ্ধতিগুলি উচু জায়গা থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা, মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবন এবং পানিতে ডুবে যাওয়া । [৩] [৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Preventing Suicide |Violence Prevention|Injury Center|CDC"www.cdc.gov (ইংরেজি ভাষায়)। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২ অক্টোবর ২০১৯ 
  2. "Suicide: one person dies every 40 seconds"www.who.int (ইংরেজি ভাষায়)। 
  3. "Method Used in Completed Suicide"। HKJC Centre for Suicide Research and Prevention, University of Hong Kong। ২০০৬। ১০ সেপ্টেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৯-১০ 
  4. Conner, Andrew; Azrael, Deborah (৩ ডিসেম্বর ২০১৯)। "Suicide Case-Fatality Rates in the United States, 2007 to 2014": 885–895। ডিওআই:10.7326/M19-1324পিএমআইডি 31791066