আজওয়ান সালেহ

ব্রুনাইয়ান ফুটবলার

আজওয়ান বিন মোহাম্মদ সালেহ (জন্ম: ৬ জানুয়ারি ১৯৮৮) হচ্ছেন ব্রুনাইয়ের একজন ফুটবল খেলোয়াড়, যিনি ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাবেমধ্যমাঠের খেলোয়াড় এবং রক্ষণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলে থাকেন।[১] তার নাম কখনও কখনও ভুল করে "সাল্লেহ"ও লেখা হয়।

আজওয়ান সালেহ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম আজওয়ান বিন মোহাম্মদ সালেহ
জন্ম (1988-01-06) ৬ জানুয়ারি ১৯৮৮ (বয়স ৩৫)
জন্ম স্থান ব্রুনাই
উচ্চতা ১.৬৮ মিটার (৫ ফুট ৬ ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান মধ্যমাঠের খেলোয়াড়,
রক্ষণভাগের খেলোয়াড়
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান দল
ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব
জার্সি নম্বর
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
২০০৫–২০০৬ কিউএএফ ফুটবল ক্লাব
২০০৬– ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব (৯)
২০১০–২০১১ইন্দেরা সিএস (ধার)
জাতীয় দল
২০০৬– ব্রুনাই ২৬ (২)
২০০৭ ব্রুনাই অনূর্ধ্ব ২১ (০)
২০১১ ব্রুনাই অনূর্ধ্ব ২৩ (০)
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে এবং ৩ এপ্রিল ২০১৭ তারিখ অনুযায়ী সকল তথ্য সঠিক।
‡ জাতীয় দলের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা ১৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

ক্লাব ক্যারিয়ারসম্পাদনা

এএফএল চ্যালেঞ্জ কাপ এবং এএফএফ চ্যাম্পিয়নশীপের আঞ্চলিক বাছাইপর্ব টুর্নামেন্টের জন্য জাতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য আজওয়ান সালেহ প্রথমবারের মতো বি লীগ প্রিমিয়ার আইতে কিউএএফ ফুটবল ক্লাবের হয়ে ক্লাব ফুটবল খেলেন।[২] অতঃপর ২০০৭ সালে তিনি ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাবের অনূর্ধ্ব ২১ দলে স্থানান্তরিত হন, সেখানে তিনি প্রথমে স্ট্রাইকার হিসেবে খেলা শুরু করেন।[৩] ২০০৭–০৮ মৌসুমে তিনি মিডফিল্ডে গভীরভাবে খেলেছিলেন, যা মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাবের শেষ মৌসুম ছিল।[৪] ২০০৯ সালে তিনি সিঙ্গাপুরের এস লীগের সাথে তার ক্লাবের সাথে অগ্রসর হন, তিনি ভিজরান সিমুনিচের জন্য একজন প্রধান খেলোয়াড় হয়ে উঠেছিলেন। তাকে ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাবের মিডফিল্ডের বাম পাশে (লেফট-ব্যাক) নিয়োগ করা হয়েছিল।[৫] ফিফার স্থগিতাদেশের কারণে লীগ কাপ জেতার আগেই তাদের মৌসুম শেষ হয়ে যায়।[৬]

২০১০ সালে যখন তার পুরানো ক্লাবটির এস. লীগে খেলতে বাধা দেওয়া হয়েছিল, আজওয়ান সালেহকে ইন্দেরা সিএসের কাছে ধারে দেওয়া হয়েছিল।[৭] ২০১২ সালে উক্ত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয় এবং ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব তাদের প্রথম খেলায় টাম্পিনস রোভার্সের বিপক্ষে জয়লাভ করে।[৮] তারা তাদের লিগ কাপের সাফল্যের প্রতিলিপি করে ফাইনালে উঠে আসে, উক্ত খেলায় আজওয়ান সালেহ সরাসরি ফ্রি কিক থেকে একটি গোল করে যা সকলের নজর কেড়েছিল।[৯]

২০১৪ সালে তার মতো প্রায় একই নামধারী আজওয়ান আলি রহমানের উত্থানের ফলে, আজওয়ান সালেহ আরও সুরক্ষিত ভূমিকায় চলে যায়, ২০১৫ সাল থেকে তিনি ৭ নম্বর শার্ট পরিধান করা শুরু করেন।[১০] তিনি উক্ত মৌসুমে প্রায় ১৫টি ম্যাচ খেলেছিলেন, এবং তাদের দলের প্রায় অর্ধেক খেলোয়াড় উক্ত মৌসুমে ক্লাবের হয়ে খেলেনি, তবুও ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব এস লীগে তাদের প্রথম শিরোপা জয়লাভ করতে সক্ষম হয়েছিল। ৫ই আগস্ট তিনি তার দুর্বল ডান পা দিয়ে দীর্ঘ দূরত্ব থেকে গেইলং ইন্টারন্যাশনালের বিরুদ্ধে তার ৩ বছরের ক্যারিয়ারে নিজের প্রথম লিগ গোল করেন।[১১]

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারসম্পাদনা

আজওয়ান সালেহ তার নিজের দেশে অনুষ্ঠিত ২০০৭ সালে হাসানুল বোলিয়াকাহ ট্রফির জন্য ব্রুনাই অনূর্ধ্ব ২১-এর সদস্য ছিলেন। তিনি ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠিত ২০১১ সালের সিএ গেমসে ব্রুনাই অনূর্ধ্ব ২৩-এর সদস্য ছিলেন।

আজওয়ান সালেহ ব্রুনাই জাতীয় ফুটবল দলের হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলা খেলোয়াড়ে পরিণত হয়েছেন, তিনি এ পর্যন্ত জাতীয় দলের হয়ে ২৬টি ম্যাচ খেলেছেন। বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত ২০০৬ সালের এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপে শ্রীলঙ্কা জাতীয় ফুটবল দলের বিপক্ষে ০–১ গোলে হেরে যাওয়ার ম্যাচে তিনি অভিষেক করেন। তিনি এএফএফ সুজুকি কাপের বাছাইপর্বের দুটি টুর্নামেন্টে গোল করেছেন, একটি হচ্ছে ২০০৮ সালে পূর্ব তিমুরের বিপক্ষে এবং অন্যটি হচ্ছে ২০১২ সালে কম্বোডিয়া জাতীয় ফুটবল দলের বিরুদ্ধে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Azwan Saleh"। Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৫ 
  2. "QAF FC For AFF Challenge"Borneo Bulletin। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০০৭। ১ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ এপ্রিল ২০১৬ 
  3. "Tricky trip for injury-plagued DPMM"। The Brunei Times। ১০ মার্চ ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ 
  4. "Penang force DPMM draw"। The Brunei Times। ৬ এপ্রিল ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ 
  5. "DPMM FC out to maul Lions"। The Brunei Times। ১৬ মে ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ 
  6. "Wardun saves the day as DPMM FC win League Cup"। The Brunei Times। ২০ জুন ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ 
  7. "Indera rely on DPMM FC connection"। The Brunei Times। ২ এপ্রিল ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৫ 
  8. "DPMM FC vs 'Barca'"। The Brunei Times। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ 
  9. "Azwan Salleh - Brunei's own free-kick specialist"। The Brunei Times। ১৩ আগস্ট ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ 
  10. "Azwan, Shahrazen adjusts to life on the bench"। The Brunei Times। ৭ মার্চ ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৫ 
  11. "DPMM FC top table"। The Brunei Times। ৬ আগস্ট ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা