আকাদেমিক লোমনোসোভ

আকাদেমিক লোমনোসভ (রাশিয়ান: Академик Ломоносов) একটি স্ব-চালিত শক্তি ছাড়া বার্জ, যা প্রথম রাশিয়ান ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র হিসাবে কাজ করে। জাহাজটির নামকরণ করা হয় একাডেমিশার মিখাইল লোমনোসভের নামে।

Спуск ПАТЭС на воду 20190823.jpg
আকাদেমিক লোমনোসভকে মুরমানস্ক থেকে পরিবহন করা হচ্ছে (২৩ আগস্ট ২০১৯)
ইতিহাস
নাম: আকাদেমিক লোমনোসোভ
নামকরণ: মিখাইল লোমনোসভ
স্বত্তাধিকারী: রোসাতম
নিবন্ধনকৃত বন্দর: ২০১৯ সালের পরে: সেন্ট পিটার্সবার্গ,  রাশিয়া
নির্মাতা:
মোট খরচ: ৬ বিলিয়ন রুবেল
ইয়ার্ড নম্বর: ০৫৭১০
নির্মাণের সময়: ১৫ এপ্রিল ২০০৭
অভিষেক: ৩০ জুন ২০১০[১]
সম্পন্ন: ২০১৮
অর্জন: ৪ জুলাই ২০১৯
কার্যসময়: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯
শনাক্তকরণ:
অবস্থা: পরিষেবায় নিযুক্ত
সাধারণ বৈশিষ্ট্য
প্রকার ও শ্রেণী: পারমাণবিক শক্তি জাহাজ (বার্জ)
ওজন: ২১,৫০০ টন
দৈর্ঘ্য: ১৪৪.৪ মি (৪৭৪ ফু)
প্রস্থ: ৩০ মি (৯৮ ফু)
উচ্চতা: ১০ মি (৩৩ ফু)
ড্রাফট: ৫.৬ মি (১৮ ফু)
নাবিক: ৬৯
টীকা: ২ টি পরিবর্তিত কেএলটি-৪০এস পারমাণবিক চুল্লী (আইসব্রেকার টাইপ) ৩৫x২ মেগাওয়াট বৈদ্যুতিক বা ১৫০x২ মেগাওয়াট তাপ উৎপাদন করে

ইতিহাসসম্পাদনা

আকাদেমিক লোমোনোসভের তলাটি ২০০৭ সালের ১৫ এপ্রিল স্থাপন করা হয়ে।[২] সেভেরোডভিনস্কে সেভমাশ সাবমেরিন-বিল্ডিং প্ল্যান্টে নির্মাণ শুরু হয়ে। এটির জন্য ৬ বিলিয়ন রুবেল (২৩২ মিলিয়ন ডলার) ব্যয় হয়।[৩] অনুষ্ঠান উদযাপনের সময়ে রাশিয়ার প্রথম উপ-প্রধানমন্ত্রী সের্গেই ইভানভ এবং রোসাটমের প্রধান সের্গেই কিরিয়েনকো উপস্থিত ছিলেন।[৪] মূলত, আকাদেমিক লোমোনসভের সেভেরোডভিনস্ক শহর এবং সেভমাশে বিদ্যুৎ সরবরাহ করার কথা ছিল। তবে, ২০০৮ সালের আগস্টে রুশ সরকার সেভমাশ থেকে সেন্ট পিটার্সবার্গের বাল্টিক শিপইয়ার্ডে কাজ স্থানান্তরকে অনুমোদন দেয়।[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Baltiysky Shipyard launches the Akademik Lomonosov, part of nuclear powered plant"Portnews। ৩০ জুন ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুলাই ২০১০ 
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; wnn-0708094 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  3. "Russia relocates construction of floating power plant" 
  4. Kukushkin, Mikhail (১৬ এপ্রিল ২০০৭)। "Плавучие АЭС готовят к экспорту" [Floating NPS are ready for export] (Russian ভাষায়)। Vremya Novostey। সংগ্রহের তারিখ ৮ নভেম্বর ২০০৮ 
  5. "Russia relocates construction of floating power plant"World Nuclear News। ১১ আগস্ট ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৩০ ডিসেম্বর ২০০৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা