অ্যামি লাইন হার্টজলার একজন আমেরিকান গায়িকা, সঙ্গীত রচয়িতা ও ক্ল্যাসিক্যাল পিয়ানোবাদক যার জন্ম ১৯৮১ সালের ১৩ই ডিসেম্বর। তিনি সহকারী প্রতিষ্ঠাতা ও মূল গায়িকা রক ব্যান্ড ইভানেসেন্স-এর। তার সঙ্গীত ভুবনের অণুপ্রেরণা হলেন মোজার্ট থেকে আধুনিক কালের বজর্ক, টরি আমোস, ড্যানি ইলফ ম্যান[১] ও প্লাম্ব।[২]

অ্যামি লি
Amy Lee in São Paulo 2.jpg
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম নামঅ্যামি লাইন লি
উদ্ভবলিটল রক, আর্কান্সাস, আমেরিকা
ধরনঅল্টারনেটিভ মেটাল
পেশাসঙ্গীতশিল্পী, গায়িকা, গানলেখিকা, পিয়ানোবাদক
বাদ্যযন্ত্রসমূহভোকাল, পিয়ানো, অরগান
কার্যকাল১৯৯৫-বর্তমান
লেবেলউইন্ড-আপ রেকর্ডস
সহযোগী শিল্পীইভানেসেন্স
ওয়েবসাইটwww.Evanescence.com

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

তার বাবা জন লি ছিলেন একজন ডিস্ক জকি ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব ও মার নাম ছিল সারা কারগিল। ক্যারি ও লরি নামের তার দুইজন বোন ছিল ও রবি নামের একজন ভাই ছিল।একটি দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৯৮৭ সালে তার একটি ছোট বোন ৩ বছর বয়সে মারা যায়।[৩] হ্যালো গানটি যা ফলেন অ্যালবামের ও দ্যা ওপেন ডোর অ্যালবামের লাইক ইউ গান দু’টি তার বোনকে উদ্দেশ্য করে লেখা হয়।[৪] তিনি নয় বছর ধরে পিয়ানো শেখেন। তার পরিবার নানা স্থানে ভ্রমণ করে ফ্লোরিডা থেকে ইলিনোয়িস পর্যন্ত এবং আরকানাসের লিটল রকে তারা স্থায়ী হয়।[৫] তিনি মিডল টেনিসি স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ে গানের তত্ত্ব ও গঠন সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত শিক্ষা লাভ করেন এবং পরে ইভানেসেন্স ব্যান্ডে মনোযোগ দিতে গিয়ে পড়াশোনার ইতি টানেন।[৬]

 
ফ্লোরিডার মিয়ামীতে ২০০৭ সালে অ্যামি লি

বাগদান ও বিয়েসম্পাদনা

মাচ মিউজিক নামের একটি সরাসরি গানের অনুষ্ঠানে ২০০৭ সালের ৯ই জানুয়ারি তিনি স্বীকার করেন আগের দিন তিনি বাগদান সেরে ফেলেছেন। জোস হার্টজলার নামের একজন থেরাপিস্ট ও দীর্ঘদিনের বন্ধু তাকে প্রস্তাব করেন।[৭] পরে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন যে গুড এ্যানাফ ও ব্রিং মি টু দ্যা লাইফ গান ২টি তাকে উদ্দেশ্য করে করা হয়েছে।[৮] ৬ই জানুয়ারি ২০০৭ সালে তারা বিয়ে সম্পন্ন করেন ও তাদের মধুচন্দ্রিমা সম্পন্ন হয় বাহামা দ্বীপ পুঞ্জের কাছে।[৯] পরে তিনি বলেন এখন তিনি দাপ্তরিকভাবে মিসেস অ্যামি হার্টজলার।[১০]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Interview with Evanescence singer Amy Lee" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৪ নভেম্বর ২০০৬ তারিখে. gURL.com. Retrieved 2006-11-07.
  2. Farias, Andree (2006-04-10). "Pre-Evanescence". Christianity Today (Christianity Today International). Retrieved 2006-11-07.
  3. Odell, Michael (April 2004)."Survivor!" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৪ এপ্রিল ২০১০ তারিখে. Blender magazine. Retrieved 2006-10-18.
  4. "Evanescence: Amy Lee Explains the New Songs". VH1.com. 2006-10-08.
  5. "Amy's bio" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৮ নভেম্বর ২০০৬ তারিখে. OutoftheShadows.com. Retrieved 2006-11-07.
  6. Morse, Steve (May 23, 2003). "Evanescence is No Disappearing Act". The Boston Globe.
  7. "www.evthreads.com/showpost"। ২৮ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৮ 
  8. "Amy Lee: Back in Black"। ১৯ অক্টোবর ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ নভেম্বর ২০১০ 
  9. Evanescence Singer Amy Lee Gets Married
  10. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা