অ্যান্টার্কটিক মাইক্রোনেশনাল ইউনিয়ন

অ্যান্টার্কটিক মাইক্রোনেশনাল ইউনিয়ন (সংক্ষেপে এএমইউ) একটি আন্তঃক্ষুদ্ররাষ্ট্রীয় সংস্থা যা অ্যান্টার্কটিকার মাইক্রোন্যাশনাল বা ক্ষুদ্ররাষ্ট্রসম্পর্কিত বিষয়গুলিকে নিয়ন্ত্রণ করার লক্ষ্যে কাজ করে।[১][২][৩] এএমইউর উদ্দেশ্য হলো অন্যান্য দাবিদারদের বিরুদ্ধে সদস্যদের দাবি রক্ষা করা।[৪]

অ্যান্টার্কটিক মাইক্রোন্যাশনাল ইউনিয়ন
অ্যান্টার্কটিক মাইক্রোন্যাশনাল ইউনিয়নের জাতীয় পতাকা
পতাকা
অ্যান্টার্কটিক মাইক্রোন্যাশনাল ইউনিয়নের অবস্থান
দাপ্তরিক ভাষাসমূহইংরেজি
ধরনআন্তঃক্ষুদ্ররাষ্ট্রীয় সংস্থা
সদস্যপদ৯টি রাষ্ট্রীয় সদস্য
নেতৃবৃন্দ
• প্রশাসনিক-সাধারণ
ইয়ারোস্লাভ মার
প্রতিষ্ঠিত
• উদ্ভাবন
৬ ডিসেম্বর ২০০৮ (১২ বছর আগে) (2008-12-06)
• সংশোধিত
১৫ জানুয়ারি ২০১০ (১১ বছর আগে) (2010-01-15)
• পুনর্জাগরিত
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ (১৯ মাস আগে) (2020-02-24)
ওয়েবসাইট
www.amu.lostisland.org

ইতিহাসসম্পাদনা

এএমইউ ৬ ডিসেম্বর ২০০৮ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে ফিনিজমন্ড, মেরি স্টেট এবং ফিল্যান্ড্রেনসিসের গ্র্যান্ড ডুচির সমন্বয়ে গ্রুপো দেল অ্যাকুয়েরদো মাইক্রোনেশনাল আন্টার্ক্টিকো (গামা) হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল । গ্রেট মাইক্রোন্যাশনাল অ্যান্টার্কটিক যুদ্ধ হিসাবে পরিচিত ওয়েস্টার্কটিকার জোন লরেন্সের বিরুদ্ধে ফিনিজমন্ড, মেরি স্টেট এবং ফ্লানড্রান্সিসের মধ্যে বিরোধের ফলস্বরূপ গামা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই দ্বন্দ্বটি ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১০ এ নিরসন হয়েছিল, যখন ফ্লানড্রেনসিসের নিয়েলস এবং ওয়েস্টার্ক্টিকার প্রতিষ্ঠাতা ট্র্যাভিস ম্যাকহেনরি পশ্চিম-অ্যান্টার্কটিক চুক্তিতে স্বাক্ষর করে এএমইউতে যোগদান করেছিলেন।[২][৫][৬][৭]

বেশ কয়েকটি সংস্কার ও নিষ্ক্রিয়কালীন সময়কাল পার করার পর, এএমইউ ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২৪ ফেব্রুয়ারি তার বর্তমান অবস্থা পৌঁছে। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরের পর থেকে এএমইউয়ের প্রশাসনিক জেনারেল হন লস্টিসল্যান্ডের রাষ্ট্রপতি ইয়ারোস্লাভ মার, যিনি ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে নতুন মেয়াদে পুনরায় নির্বাচিত হন।[৮]

সদস্যসমূহসম্পাদনা

সংস্থার নিম্নলিখিত সদস্য রয়েছে:[৯]

  • অবিনেস্কা প্রজাতন্ত্র
  • ব্রায়েনিয়ার কিংডম
  • সেল্টিক ক্রসের মিশনারি অর্ডার
  • হর্টানিয়ান সাম্রাজ্য
  • কর্ণিয়া-রুথেনিয়ার সাম্রাজ্য
  • লস্টিসল্যান্ডের ফেডারেল প্রজাতন্ত্র
  • পাভলভের সাম্রাজ্য
  • ইউউপিস প্রজাতন্ত্র
  • ওয়েস্টার্কটিকার গ্র্যান্ড ডাচি

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Lonely Planet Kids (২০১৫)। You Rule!: Create Your Own Country (Lonely Planet Kids) (English ভাষায়)। Lonely Planet। পৃষ্ঠা 13। আইএসবিএন 978-1743607848 
  2. Mamchitz, Roman (আগস্ট ২৮, ২০১০)। "Родезийская война в Антарктиде"Chaskor.ru। Частный Корреспондент। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৮, ২০২০ 
  3. Sharukho I. N., Soroka A. V. (২০১৭)। Геополитика и современная политическая карта мира (Russian ভাষায়)। МГУ имени А. А. Кулешова। পৃষ্ঠা 71। আইএসবিএন 978-985-568-358-3 
  4. Kiptenko, V. K.; Lyashenko, M. Y. (২০১৪)। "Генетична типологія мікронацій (віртуальних держав)" (PDF) (Ukrainian ভাষায়): 173–184। 
  5. Harlamov, Sergey (আগস্ট ২৯, ২০১৭)। "Шутники, мошенники и отщепенцы: кто и зачем создает виртуальные государства"Ruposters.ru। Ruposters.ru। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৮, ২০২০ 
  6. Bahareth, Mohammad (২০১১)। Micronations: For Those Who Are Tired of Existing Incompetent Governments and Are Longing for Something New and Refreshing (English ভাষায়)। Lonely Planet। পৃষ্ঠা 2010। আইএসবিএন 978-1-4620-6926-2 
  7. Zhmilevski V. D. (২০১৭)। Специфические территории. Международная классификация (Russian ভাষায়)। Издательство «Бук»। পৃষ্ঠা 18। আইএসবিএন 978-5-906954-32-9 
  8. "History"Antarctic Micronational Union। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৪, ২০২০ 
  9. "Members"Antarctic Micronational Union। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৪, ২০২০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা