২০১৬ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ত্রি-দেশীয় সিরিজ

২০১৬ ওয়েস্ট ইন্ডিজে ত্রি-দেশীয় সিরিজ একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট টুর্নামেন্ট যা ২০১৬ সালের জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত হয়। এটি ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়াদক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার একটি ত্রিদেশীয় সিরিজ ছিল। সবগুলো খেলাই দিবারত্রি ছিল, এবারই প্রথমবার ক্যারিবীয় একটি সিরিজের সব ম্যাচ দিবারাত্রির ম্যাচ হিসেবে খেলা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া ফাইনালে ৫৮ রানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ পরাজিত করে বিজয়ী হয়।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে ত্রি-দেশীয় সিরিজ
তারিখ৩ জুন – ২৬ জুন ২০১৬
অবস্থানওয়েস্ট ইন্ডিজ
ফলাফল অস্ট্রেলিয়া ২০১৬ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ত্রি-দেশীয় সিরিজ জয় করে
সিরিজ সেরাজোশ হজলউড (অস্ট্রেলিয়া)
দলসমূহ
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ  অস্ট্রেলিয়া  দক্ষিণ আফ্রিকা
অধিনায়ক
জেসন হোল্ডার স্টিভ স্মিথ এবি ডি ভিলিয়ার্স
সর্বাধিক রান
মারলন স্যামুয়েলস (২৫৮) স্টিভ স্মিথ (২৬৪) হাশিম আমলা (২৪১)
সর্বাধিক উইকেট
সুনীল নারাইন (১২) জোশ হজলউড (১১) ইমরান তাহির (১৩)

দলীয় সদস্যসম্পাদনা

  ওয়েস্ট ইন্ডিজ   অস্ট্রেলিয়া   দক্ষিণ আফ্রিকা

পয়েন্ট টেবিলসম্পাদনা

দল
খেলা বি টা খেহ বোপ নেরারে
  অস্ট্রেলিয়া ১৫ +০.৩৮৩
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩ –০.৪৬০
  দক্ষিণ আফ্রিকা ১২ +০.১৫৫

     ফাইনালের জন্য যোগ্য


খেলাসম্পাদনা

১ম ওডিআইসম্পাদনা

৩ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা  
১৮৮ (৪৬.৫ ওভার)
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১৯১/৬ (৪৮.১)
রাইলি রুশো ৬১ (৮৩)
সুনীল নারাইন ৬/২৭ (৯.৫ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪ উইকেটে জয়ী
প্রভিডেন্স স্টেডিয়াম, জর্জটাউন, গায়ানা
আম্পায়ার: রিচার্ড ইলিংওয়ার্থ (ইংল্যান্ড) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: সুনীল নারাইন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • কুইন্টন ডি ককহাশিম আমলা ওয়ানডে ম্যাচে ৫০তম বারের মত দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিংয়ের শুরু করেন।

২য় ওডিআইসম্পাদনা

৫ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
১১৬ (৩২.৩ ওভার)
  অস্ট্রেলিয়া
১১৭/৪ (২৫.৪ ওভার)
জনসন চার্লস ২২ (৪০)
অ্যাডাম জাম্পা ৩/১৬ (৫.৩ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৬ উইকেটে জয়ী
প্রভিডেন্স স্টেডিয়াম, জর্জটাউন, গায়ানা
আম্পায়ার: গ্রিগোরি ব্রেদওয়েট (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও নাইজেল লং (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: নাথান লায়ন (অস্ট্রেলিয়া)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • মাঠ ভেজা থাকার কারণে ম্যাচ শুরু হতে ১০ মিনিট বিলম্বিত হয়।
  • পয়েন্ট: অস্ট্রেলিয়া ৫, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ০।

৩য় ওডিআইসম্পাদনা

৭ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা  
১৮৯/৯ (৫০ ওভার)
  অস্ট্রেলিয়া
১৪২ (৩৪.২ ওভার)
অ্যারন ফিঞ্চ ৭২ (১০৩)
কাগিসো রাবাদা ৩/১৩ (৭ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসে ২০ মিনিটের জন্য খেলা বন্ধ থাকে।
  • তাব্রাইজ শামসী (দক্ষিণ আফ্রিকা) তার ওডিআই অভিষেক হয়।
  • পয়েন্ট: দক্ষিণ আফ্রিকা ৫, অস্ট্রেলিয়া ০।

৪র্থ ওডিআইসম্পাদনা

১১ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া  
২৮৮/৬ (৫০ ওভার)
  দক্ষিণ আফ্রিকা
২৫২ (৪৭.৪ ওভার)
ডেভিড ওয়ার্নার ১০৯ (১২০)
ইমরান তাহির ২/৪৫ (৯ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৩৬ রানে জয়ী
ওয়ার্নার পার্ক, বাসেতের, সেন্ট কিটস
আম্পায়ার: নাইজেল লং (ইংল্যান্ড) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ফাফ দু প্লেসিস (দক্ষিণ আফ্রিকা) এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে ৩,০০০ ওডিআই রান করেন।
  • পয়েন্ট: অস্ট্রেলিয়া ৪, দক্ষিণ আফ্রিকা ০।

৫ম ওডিআইসম্পাদনা

১৩ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া  
২৬৫/৭ (৫০ ওভার)
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ
২৬৬/৫ (৪৫.৪ ওভার)
  • ওয়েস্ট ইন্ডিজ টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ট্রাভিস হেড (অস্ট্রেলিয়া) তার ওডিআই অভিষেক হয়।
  • মারলন স্যামুয়েলস (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডেতে তার সর্বোচ্চ স্কোর করেন। পরে অবশ্য ৮ম ওডিআইতে তিনি এই স্কোর অতিক্রম করে ১২৫ রান করেন।
  • পয়েন্ট: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪, অস্ট্রেলিয়া ০।

৬ষ্ঠ ওডিআইসম্পাদনা

১৫ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
৩৪৩/৪ (৫০ ওভার)
  দক্ষিণ আফ্রিকা
২০৪ (৩৮ ওভার)
হাশিম আমলা ১১০ (৯৯)
কিরণ পোলার্ড ২/৬৪ (৯ ওভার)
জনসন চার্লস ৪৯ (৪১)
ইমরান তাহির ৭/৪৫ (৯ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ১৩৯ রানে জয়ী
ওয়ার্নার পার্ক, বাসেতের, সেন্ট কিটস
আম্পায়ার: গ্রিগোরি ব্রেদওয়েট (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও নাইজেল লং (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: ইমরান তাহির (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • ওয়েস্ট ইন্ডিজ টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • হাশিম আমলা (দক্ষিণ আফ্রিকা) দ্রুততম হিসেবে ২৩টি শতক করেন (১৩২ ইনিংস)।
  • ইমরান তাহির দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে দ্রুততম ১০০ ওয়ানডে উইকেট লাভ করেন ও দক্ষিণ আফ্রিকা খেলোয়াড় হিসেবে ওডিআইতে সেরা বোলিং করেন।
  • পয়েন্ট: দক্ষিণ আফ্রিকা ৫, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ০।

৭ম ওডিআইসম্পাদনা

১৯ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা  
৮/০ (১ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের ১ম ওভারের পর বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ হয়ে যায় এবং ম্যাচ শেষ পর্যন্ত আর শুরু করা সম্ভব হয়নি।
  • এবি ডি ভিলিয়ার্স দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে তাঁর ২০০তম ওয়ানডে ম্যাচ খেলেন। তিনি আফ্রিকান একাদশের হয়ে পাঁচটি ওয়ানডে খেলেছিলেন।
  • পয়েন্ট: অস্ট্রেলিয়া ২, দক্ষিণ আফ্রিকা ২।

৮ম ওডিআইসম্পাদনা

২১ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
২৮২/৮ (৫০ ওভার)
  অস্ট্রেলিয়া
২৮৩/৪ (৪৮.৪ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • শ্যানন গ্যাব্রিয়েল (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) তার ওডিআই অভিষেক হয়।
  • দিনেশ রামদিন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ২,০০০ ওডিআই রান অতিক্রম করেন।
  • এই ম্যাচের ফলাফলের ভিত্তিতে অস্ট্রেলিয়া ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে
  • পয়েন্ট: অস্ট্রেলিয়া ৪, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ০।

৯ম ওডিআইসম্পাদনা

২৪ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
২৮৫ (৪৯.৫ ওভার)
  দক্ষিণ আফ্রিকা
১৮৫ (৪৬ ওভার)
ড্যারেন ব্র্যাভো ১০২ (১০৩)
কাগিসো রাবাদা ৩/৩১ (১০ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০০ রানে জয়ী
কেনসিংটন ওভাল, ব্রিজটাউন, বার্বাডোস
আম্পায়ার: গ্রিগোরি ব্রেদওয়েট (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা)
সেরা খেলোয়াড়: ড্যারেন ব্র্যাভো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংসের খেলা ২০ মিনিটের জন্য বন্ধ থাকে।
  • ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জন করে, অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা প্রতিযোগিতা থেকে বিদায় নেয়
  • পয়েন্ট: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫, দক্ষিণ আফ্রিকা।

ফাইনালসম্পাদনা

২৬ জুন
১৩:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া  
২৭০/৯ (৫০ ওভার)
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ
২১২ (৪৫.৪ ওভার)
ম্যাথু ওয়েড ৫৭* (৫২)
জেসন হোল্ডার ২/৫১ (১০ ওভার)
জনসন চার্লস ৪৫ (৬১)
জোশ হজলউড ৫/৫০ (৯.৪ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৫৮ রানে জয়ী
কেনসিংটন ওভাল, ব্রিজটাউন, বার্বাডোস
আম্পায়ার: রিচার্ড ইলিংওয়ার্থ (ইংল্যান্ড) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: মিচেল মার্শ (অস্ট্রেলিয়া)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • মিচেল মার্শ (অস্ট্রেলিয়া) ১,০০০ ওডিআই রান অতিক্রম করেন।
  • অস্ট্রেলিয়া ২০১৬ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ত্রিদেশীয় সিরিজ জয় করে

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা