২০১১ কমনওয়েলথ যুব গেমসে বাংলাদেশ

২০১১ সালের ৭ হতে ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আইল অব ম্যানে অনুষ্ঠিত ২০১১ কমনওয়েলথ যুব গেমসে বাংলাদেশ অংশগ্রহণ করে; যা দাপ্তরিকভাবে ৪র্থ কমনওয়েলথ যুব গেমস নামে পরিচিত। কমনওয়েলথ যুব গেমসে এটি ছিলো বাংলাদেশের দ্বিতীয়বারের মতো অংশগ্রহণ। বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে দেশটি এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়, যারা কমনওয়েলথ গেমস এবং কমনওয়েলথ যুব গেমসে দেশের হয়ে প্রতিযোগী ও প্রতিনিধি প্রেরণ করে থাকে।

কমনওয়েলথ যুব গেমসে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ
বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা

সিজিএ কোড  BAN
জাতীয়
ফেডারেশন
বাংলাদেশ অলিম্পিক সংস্থা[১]
২০১১ কমনওয়েলথ যুব গেমস
আইল অব ম্যান
প্রতিযোগী ৩টি ক্রীড়ায় ৪ জন
কর্মকর্তাগণ
পদক:
স্থান: ২৩
স্বর্ণ
রৌপ্য
ব্রোঞ্জ
মোট

বাংলাদেশ দলে ছিলেন চারজন কর্মকর্তা ও চারজন প্রতিযোগী। দুইজন পুরুষ ও দুজন মহিলা ক্রীড়াবিদ নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ দল অ্যাথলেটিক্স, মুষ্টিযুদ্ধ এবং সাঁতার - এই তিনটি ভিন্ন ক্রীড়ায় অংশ নেয় (পূর্ববর্তী গেমসে বাংলাদেশ দলে ছিলেন দশজন পুরুষ ক্রীড়াবিদ)। এতে বাংলাদেশ দল কোন পদক জয়ে ব্যর্থ হয়। পাপিয়া রানী সরকার মহিলাদের ১০০ মি. দৌড়ে সেমিফাইনালে পর্যায়ে ষষ্ঠ হন; ব্যান্টমওয়েট মুষ্টিযোদ্ধা রিয়াদ হোসেন একটি 'বাই' পেয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলেও জাম্বিয়ার প্রতিযোগী ওবেদি মুতাপার কাছে পরাজিত হন। অপরদিকে, সাঁতারের বাছাই পর্বে সোনিয়া আক্তার ৫০ মি. বাটারফ্লাইয়ে ১৯ তম ও ৫০ মি. ব্যাকস্ট্রোকে ২২ তম স্থান এবং অনিক ইসলাম ১০০ মি. বাটারফ্লাইয়ে ১৪ তম ও ৫০ মি. বাটারফ্লাইয়ে ১২ তম স্থান লাভ করেন।

পটভূমিসম্পাদনা

 
কমনওয়েলথ যুব গেমসের পদক-মানচিত্র। বাংলাদেশ এবং অন্যান্য যেসকল দেশ কোন পদক জয় করতে পারেনি তাদেরকে সবুজ বর্ণে দেখানো হয়েছে।

বাংলাদেশ ১৯৭২ কমনওয়েলথ অব নেশনস-এ যোগ দেয় এবং ১৯৯০ সালে নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ গেমসে প্রথম অংশগ্রহণ করে।[১] বাংলাদেশের জাতীয় অলিম্পিক কমিটি 'বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন' কমনওয়েলথ গেমস এবং কমনওয়েলথ যুব গেমসে দেশের অংশগ্রহণ করার দায়িত্ব পালন করে থাকে।[১] ২০০০ সালে এডিনবরায় অনুষ্ঠিত ১ম ২০০০-এর কমনওয়েলথ যুব গেমস এবং ২০০৪ সালে বেনডিগোতে অনুষ্ঠিত ২য় কমনওয়েলথ যুব গেমসে বাংলাদেশ অংশগ্রহণ করেনি।[২] ২০০৮ সালে ভারতের পুনেতে অনুষ্ঠিত ৩য় কমনওয়েলথ যুব গেমসে সর্বপ্রথম বাংলাদেশের ১০ জন পুরুষ প্রতিযোগী এ্যাথলেটিক্স, মুষ্টিযুদ্ধ এবং শুটিং-এ অংশ নেয় এবং ভারোত্তলনে একটি ব্রোঞ্জ পদক জয় করে।[৩][৪][৫] ৬৩ জাতির অংশগ্রহণে ২০১১ সালের ৭ থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আইল অব ম্যানে অনুষ্ঠিত ৪র্থ কমনওয়েলথ যুব গেমসে বাংলাদেশও যোগ দেয়, যা কমনওয়েলথ যুব গেমসে তাদের ২য় বারের মতো অংশ নেয়া[৬] এবং এতে বাংলাদেশসহ ৩১টি দেশ কোন পদক জয়ে ব্যর্থ হয়।[৭]

অংশগ্রহণকারীসম্পাদনা

কমনওয়েলথ যুব গেমসে প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীর বয়স চৌদ্দ থেকে আঠারো বছরের মধ্যে হতে হয়।[৮] প্রতিটি ক্রীড়া সংস্থা এক হাজার জন পর্যন্ত প্রতিযোগী প্রেরণ করতে পারেন।[৮] বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন চারজন কর্মকর্তা এবং চারজন প্রতিযোগী নিয়ে গঠিত একটি প্রতিনিধি দল ২০১১ কমনওয়েলথ যুব গেমসে প্রেরণ করে।[৯] ব্যান্টমওয়েট মুষ্টিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী রিয়াদ হোসেনই[৩] ছিলেন আগের গেমসে অংশ নেয়া একমাত্র প্রতিযোগী[১০] এবং পাপিয়া রানী সরকার ছিলেন এ্যাথলেটিক্সে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী একমাত্র বাংলাদেশী প্রতিযোগী। প্রতিনিধিদলের দুই সাঁতারু সোনিয়া আক্তার এবং অনিক ইসলাম প্রত্যেকে দুটি করে ইভেন্টে অংশগ্রহণ করেন। প্রতিনিধি দলের প্রধান হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন এ. কে. সরকার।[৯][১১]

Athletics pictogram.svg অ্যাথলেটিক্সসম্পাদনা

অ্যাথলেটিক্স ইভেন্টটি 'ন্যাশনাল স্পোর্টস্‌ সেন্টার এ্যাথলেটিক্স স্টেডিয়াম'-এ অনুষ্ঠিত হয়।[১২] পাপিয়া রাণী সরকার ৯ সেপ্টেম্বর তারিখ অনুষ্ঠিত মেয়েদের ১০০ মি. দৌড়ে বাংলাদেশ দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। তিনি ১২.৬৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেমি-ফাইনালের জন্য বাছাইয়ে উত্তীর্ণ হন। এবং ১২.৬৩ সেকেন্ড সময় নিয়ে ১ম সেমি-ফাইনালে ষষ্ঠ স্থান লাভ করেন। চূড়ান্ত প্রতিযোগীতায় এই ইভেন্টে ১১.৫৩ সেকেন্ড সময় নিয়ে স্বর্ণ পদক জয় করেন ইংল্যান্ডের সোফি পাপ্স।[১৩]

প্রতিযোগী ইভেন্ট বাছাই ৩ সেমি-ফাইনাল ফাইনাল
সময় স্থান সময় স্থান সময় স্থান
পাপিয়া রাণী সরকার মেয়েদের ১০০ মি. ১২.৬৬ সে. কো. ১২.৬৩ সে. অনুত্তীর্ণ
  • উ. = পরবর্তী পর্যায়ে উত্তীর্ণ

Boxing pictogram.svg মুষ্টিযুদ্ধসম্পাদনা

বাংলাদেশের মুষ্টিযুদ্ধ দলটিতে একমাত্র প্রতিযোগী ছিলেন মো. রিয়াদ হোসেন, যিনি ব্যান্টমওয়েট শ্রেণীতে লড়েছিলেন। তিনি প্রথম পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় 'বাই' পেয়ে কোয়ার্টার-ফাইনাল পর্যায়ে উত্তীর্ণ হলেও সেখানে জাম্বিয়ার প্রতিদ্বন্দী ওবেদি মুতাপার নিকট ১৫-৫ পয়েন্টে পরাজিত হন।[১৪]

প্রতিযোগী ইভেন্ট শেষ ১৬ কোয়ার্টার ফাইনাল সেমিফাইনাল ফাইনাল
বিপক্ষে
ফলাফল
বিপক্ষে
ফলাফল
বিপক্ষে
ফলাফল
বিপক্ষে
ফলাফল
স্থান
মো. রিয়াদ হোসেন ব্যান্টমওয়েট *বাই ওবেদি মুতাপা (জাম্বিয়া)
হার (৫–১৫ পয়েন্ট ব্যবধান)
অগ্রবর্তী হয়নি
  • বাই = বাই পেয়েছেন।

Swimming pictogram.svg সাঁতারসম্পাদনা

বাংলাদেশ থেকে সোনিয়া আক্তার এবং অনিক ইসলাম সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। সোনিয়া ৫০ মি. বাটারফ্লাই, ৫০ মি. ব্যাকস্ট্রোক এবং ৫০ মি. ব্রেস্টস্ট্রোক ইভেন্টে প্রতিদ্বন্দিতা করেন। তিনি ৫০ মি. বাটারফ্লাই ইভেন্টের প্রাথমিক বাছাই পর্বে ৩২.৭৮ সে. সময় নিয়ে ১৯ তম হন এবং চূড়ান্ত পর্যায়ে উঠতে ব্যর্থ হন।[১৫] তিনি ৫০ মি. ব্যাকস্ট্রোক ইভেন্টের প্রাথমিক বাছাই পর্বে ৩৬.০০ সে. সময় নিয়ে ২২ তম হন;[১৬] এবং ৫০ মি. ব্রেস্টস্ট্রোক ইভেন্টটি শুরুই করেননি।[১৭] মো. অনিক ইসলাম ৫০ মি. এবং ১০০ মি. বাটারফ্লাই ইভেন্টে অংশ নেন; তিনি ৫০ মি. বাটারফ্লাই সাঁতারে ২৬.৯৭ সে. সময় নিয়ে ১৪ তম[১৫] এবং ১০০ মি. বাটারফ্লাই সাঁতারে ৫৮.৪১ সে. সময় নিয়ে ১২ তম হন।[১৮]

প্রতিযোগী ইভেন্ট বাছাই চূড়ান্ত
সময় স্থান সময় স্থান
সোনিয়া আক্তার ৫০ মি. বাটারফ্লাই ৩২.৭৮ ১৯ অনুত্তীর্ণ
৫০ মি. ব্যাকস্ট্রোক ৩৬.০০ ২২ অনুত্তীর্ণ
৫০ মি. ব্রেস্টস্ট্রোক অন অন অনুত্তীর্ণ
মো. অনিক ইসলাম ১০০ মি. বাটারফ্লাই ৫৮.৪১ ১২ অনুত্তীর্ণ
৫০ মি. বাটারফ্লাই ২৬.৯৭ ১৪ অনুত্তীর্ণ
  • অন. = অংশ নেয়নি।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Countries – Bangladesh" (ইংরেজি ভাষায়)। thecgf.com. Commonwealth Games Federation। ১৪ অক্টোবর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১১ 
  2. "Bangladesh to take part in CYG in Pune" (ইংরেজি ভাষায়)। The Financial Express। ২১ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ১২ আগস্ট ২০১২ 
  3. "Bangladesh – Athletes List" (ইংরেজি ভাষায়)। cygpune2008.com. 2008 Commonwealth Youth Games Organising Committee। ৫ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১১ 
  4. "Overall Medal Standings" (ইংরেজি ভাষায়)। results.cygpune2008.com. 2008 Commonwealth Youth Games Organising Committee। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১১ 
  5. "Medal Standings for Bangladesh" (ইংরেজি ভাষায়)। results.cygpune2008.com. 2008 Commonwealth Youth Games Organising Committee। ৫ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১১ 
  6. "Commonwealth Youth Games Results – Isle of Man, 2011" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০১১ 
  7. "Medal Table" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  8. "Commonwealth Youth Games" (ইংরেজি ভাষায়)। thecgf.com. Commonwealth Games Federation। ৫ মে ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১১ 
  9. "Bangladesh contingent for Commonwealth Youth Games returns home on Wednesday"। Priyo news। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯। ১২ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  10. "Event Entries" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০১১ 
  11. "Papiya reaches 100 m sprint semis in CYG"। Priyo news। ১১ সেপ্টেম্বর ২০০৯। ১২ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  12. "Sports – Athletics" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011.com. CYG 2011 Organising Committee। ১৬ অক্টোবর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০১১ 
  13. "Athletics – 100 m Women" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  14. "Boxing – Bantamweight" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  15. "Swimming  – 50 m Butterfly" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  16. "Swimming  – 50 m backstroke" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  17. "Swimming  – 50 m breaststroke" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 
  18. "Swimming  – 100 m butterfly" (ইংরেজি ভাষায়)। cyg2011results.com. CYG 2011 Organising Committee। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১১ 

বহি:সংযোগসম্পাদনা

টেমপ্লেট:Nations at the 2011 Commonwealth Youth Games