প্রধান মেনু খুলুন

২০০৮ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে সাঁতার – মহিলাদের ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইল

২০০৮ অলিম্পিক গেমসে মহিলাদের ৪০০মিটার ফ্রিস্টাইল বিভাগের প্রতিযোগিতা আগস্টের ১০১১ তারিখের মধ্যে বেইজিং ন্যাশনাল অ্যাকুয়াটিক সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। সাঁতারের এই বিভাগ একটি ফ্রিস্টাইল সাঁতার প্রতিযোগিতা, মানে এখানে সাঁতারকাটার পদ্ধতির ( যেমন ব্যাকস্ট্রোক, ব্রেস্টস্ট্রোক ও বাটারফ্লাই বিভাগ)কোনো বাধ্যবাধকতা থাকে না। প্রায় সব সাঁতারুই ফ্রন্ট ক্রল বা তার কোনো বিকল্প পদ্ধতির প্রয়োগ করে থাকে। যেহেতু, অলিম্পিকে সাঁতারের পুলের দৈর্ঘ্য ৫০মিটার হয়, এই প্রতিযোগিতায় পুলটি আটবার পার করতে হয়।

XXIX অলিম্পিয়াড খেলায়
মহিলাদের ৪০০মিটার ফ্রিস্টাইল
স্থানবেইজিং ন্যাশনাল অ্যাকুয়াটিক সেন্টার
তারিখ১০ই আগস্ট (হিট)
১১ই আগস্ট (ফাইনাল)
প্রতিযোগী ৪২জন প্রতিযোগী
পদকবিজয়ী
স্বর্ণ পদক   গ্রেট ব্রিটেন
রৌপ্য পদক   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
ব্রোঞ্জ পদক   গ্রেট ব্রিটেন
«২০০৪২০১২»
২০০৮ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে
সাঁতারের বিভাগসমূহ
প্রতিযোগিতার নমুনাচিত্র (বেসরকারী)
ফ্রিস্টাইল
৫০মিটার   পুরুষ   মহিলা
১০০মিটার পুরুষ মহিলা
২০০মিটার পুরুষ মহিলা
৪০০মিটার পুরুষ মহিলা
৮০০মিটার মহিলা
১৫০০মিটার পুরুষ
ব্যাকস্ট্রোক
১০০মিটার পুরুষ মহিলা
২০০মিটার পুরুষ মহিলা
ব্রেস্টস্ট্রোক
১০০মিটার পুরুষ মহিলা
২০০মিটার পুরুষ মহিলা
বাটারফ্লাই
১০০মিটার পুরুষ মহিলা
২০০মিটার পুরুষ মহিলা
ব্যক্তিগত মেডলি
২০০মিটার পুরুষ মহিলা
৪০০মিটার পুরুষ মহিলা
ফ্রিস্টাইল রিলে
৪×১০০মিটার পুরুষ মহিলা
৪×২০০মিটার পুরুষ মহিলা
মেডলি রিলে
৪×১০০মিটার পুরুষ মহিলা
ম্যারাথন
১০কিমি পুরুষ মহিলা

সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ছাড়া সর্বমোট ছয়টি হিট অনুষ্ঠিত হয় এবং প্রায় প্রতিটিতেই সর্বোচ্চ সংখ্যক সাঁতারু (আটজন) অংশগ্রহণ করেন। একক হিটের ফলের ওপর একজন সাঁতারুর অগ্রবর্তী হওয়া নির্ভর করে না। সামগ্রিক ভাবে সেরা সময় করা প্রথম ৮জনকে নিয়ে ফাইনাল হিট হয়। সেখানে অবশেষে এই আটজন প্রতিযোগী পদকের উদ্দেশ্যে প্রতিদ্বন্দ্ব্ব্বিতা করে।

২০০৮ গেমসে যোগ্যতা অর্জনের মাপকাঠি ছিল ৪:১১.২৬সেকেন্ড(A মান) এবং ৪:২০.০৫সেকেন্ড (B মান)। যে সকল NOC-এর দুই বা ততোধিক সাঁতারু A মানের তারা যে কোনো দুজন A মানের প্রতিযোগীকে পাঠাতে পারে; অন্যথায়, তারা একজন B মানের সাঁতারুকে পাঠাতে পারে।

রেকর্ডসম্পাদনা

এই প্রতিযোগিতার আগে বিশ্ব ও অলিম্পিক রেকর্ড নিচে দেওয়া হল।

বিশ্ব রেকর্ড   ফেডেরিকা পেলেগ্রিনি (ITA) ৪:০১.৫৩ আইন্দহোভেন, নেদারল্যান্ডস ২৪শে মার্চ ২০০৮ [১]
অলিম্পিক রেকর্ড   জ্যানেট ইভান্স (USA) ৪:০৩.৮৫ সিউল, দক্ষিণ কোরিয়া ২২শে সেপ্টেম্বর ১৯৮৮

এই অলিম্পিকে যে সব রেকর্ড গড়া হয় সেগুলি নিচে দেওয়া হল।

তারিখ বিভাগ নাম দেশ সময় OR WR
১০ই আগস্ট হিট ৫ কেটি হফ   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪:০৩.৭১ OR
১০ই আগস্ট হিট ৬ ফেডেরিকা পেলেগ্রিনি   ইতালি ৪:০২.১৯ OR

হিটসম্পাদনা

ক্রম হিট লেন নাম দেশ সময় টিকা
ফেডেরিকা পেলেগ্রিনি   ইতালি ৪:০২.১৯ Q, OR
রেবেকা অ্যাডলিংটন   গ্রেট ব্রিটেন ৪:০২.২৪ Q, CR
কেটি হফ   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪:০৩.৭১ Q, OR
জোয়ান জ্যাকসন   গ্রেট ব্রিটেন ৪:০৩.৮০ Q
ব্রন্ট ব্যারাট   অস্ট্রেলিয়া ৪:০৪.১৬ Q, OC
কোরেলি বামি   ফ্রান্স ৪:০৪.২৫ Q
ক্যামেলিয়া অ্যালিনা পোটেক   রোমানিয়া ৪:০৪.৫৫ Q
লরি মানাউদৌ   ফ্রান্স ৪:০৪.৯৩ Q
ওটিলিয়া জেড্রেজাক   পোল্যান্ড ৪:০৫.৫০
১০ লিন্ডা ম্যাকেঞ্জি   অস্ট্রেলিয়া ৪:০৫.৯১
১১ স্টেফানি হর্নার   কানাডা ৪:০৭.৪৫
১২ ওয়েন্ডি ট্রট   দক্ষিণ আফ্রিকা ৪:০৮.৩৮ AF
১৩ লোট ফ্রিস   ডেনমার্ক ৪:০৮.৪৭
১৪ কেট জিগলার   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪:০৯.৫৯
১৪ ফ্লাভিয়া রিগামন্টি   সুইজারল্যান্ড ৪:০৯.৫৯
১৬ জর্ডিস স্টেইনেগার   অস্ট্রিয়া ৪:০৯.৭২
১৭ মেলিসা কর্ফ   দক্ষিণ আফ্রিকা ৪:১০.৫৪
১৮ গ্যাব্রিয়েলা ফাগুন্ডেজ   সুইডেন ৪:১১.৪০
১৯ সাভানা কিং   কানাডা ৪:১১.৪৯
২০ সুসানা এস্কোবার   মেক্সিকো ৪:১১.৯৯
২১ মোনিক ফেরেইরা   ব্রাজিল ৪:১২.২১
২২ ট্যান মিয়াও   চীন ৪:১২.৩৫
২৩ এরিকা ভিলাসিজা   স্পেন ৪:১৪.২৫
২৪ হোই শুন স্টেফানি আউ   হংকং ৪:১৪.৮২
২৫ জানা এমকে   জার্মানি ৪:১৫.১৫
২৬ লি মো   চীন ৪:১৫.৫০
২৭ এলেফথেরিয়া ইভজেনিয়া এফস্টাথিয়োউ   গ্রিস ৪:১৫.৭৮
২৮ দারিয়া বেলিয়াকিনা   রাশিয়া ৪:১৬.২১
২৯ বোগলার্কা কাপাস   হাঙ্গেরি ৪:১৬.২২
৩০ লিনেট লিম   সিঙ্গাপুর ৪:১৭.৬৭
৩১ আই শিবাটা   জাপান ৪:১৭.৯৬
৩২ ইয়ানেল আন্দ্রেইনা পিন্টো পেরেজ   ভেনেজুয়েলা ৪:১৮.০৯
৩৩ নাতালিয়া খুদিয়াকোভা   ইউক্রেন ৪:১৮.৩৪
৩৪ সেসিলিয়া এলিজাবেথ বিয়াজিওলি   আর্জেন্টিনা ৪:১৯.৮৫
৩৫ ইভা লেটোনেন   ফিনল্যান্ড ৪:২০.০৭
৩৬ ক্রিস্টিনা লেনক্স-সিলভা   পুয়ের্তো রিকো ৪:২০.১৭
৩৭ জিউন লি   দক্ষিণ কোরিয়া ৪:২১.৫৩
৩৮ কাই লিন খু   মালয়েশিয়া ৪:২৩.৩৭
৩৯ গোল্ডা মার্কাস   এল সালভাদোর ৪:২৩.৫০
৪০ চিন-কুয়েই ইয়াং   চীনা তাইপেই ৪:২৪.৭৮
৪১ শ্রোন অস্টিন   সেশেল ৪:৩৫.৮৬
৪২ নাথানন জুংক্রাজং   থাইল্যান্ড DNS

ফাইনালসম্পাদনা

যুক্তরাজ্যের হয়ে ৪৮বছর পরে রেবেকা অ্যাডলিংটন প্রথম মহিলা সাঁতারু হিসাবে সাঁতারে স্বর্ণপদক লাভ করেন। প্রাক-প্রতিযোগিতা সময়ের সম্ভাব্য বিজয়ী কেটি হফকে পিছনে ফেলে এই সাফল্য অর্জন করেন।

প্রথম ১৫০মিটার লরি মানাউদৌ এগিয়ে ছিলেন, কিন্তু চতুর্থ পর্যায়ে হফকে আগে রেখে ক্যারোলি বামিফেডেরিকা পেলিগ্রিনি এগিয়ে যান, যদিও সবাই খুবই কাছাঁকাছি সাঁতার কাটছিলেন। ২০০মিটার ১:৫৯.৬০ সময়ে ও ৩০০মিটার ৩:০১.৯১ সময়ে প্রথমেই থাকেন ও শেষ ১০০মিটারে তিনি নিজের শরীরের দৈর্ঘ্যের সমান দূরত্ব এগিয়ে ছিলেন। শেষের আগের পর্যায়ে জোয়ান জ্যাকসন দ্বিতীয় স্থানে চলে আসেন, কিন্তু অ্যাডলিংটন শেষ ২৫মিটারে ঝড়ের গতিতে চতুর্থ স্থান থেকে প্রথম স্থানে চলে আসে। শেষ ৫ মিটারে তিনি হফকে টপকে প্রথম স্থানে আসেন আর জ্যাকসন হন তৃতীয়।

ক্রম লেন নাম দেশ সময় টিকা
  রেবেকা অ্যাডলিংটন   গ্রেট ব্রিটেন ৪:০৩.২২
  কেটি হফ   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪:০৩.২৯
  জোয়ান জ্যাকসন   গ্রেট ব্রিটেন ৪:০৩.৫২
ক্যারোলি বামি   ফ্রান্স ৪:০৩.৬০
ফেডেরিকা পেলিগ্রিনি   ইতালি ৪:০৪.৫৬
ক্যামেলিয়া অ্যালিনা পোটেক   রোমানিয়া ৪:০৪.৬৬
ব্রন্ট ব্যারাট   অস্ট্রেলিয়া ৪:০৫.০৫
লরি মানাউদৌ   ফ্রান্স ৪:১১.২৬
  • Q = যোগ্যতাঅর্জনকারী (Qualified), DNS = শুরু করেননি (Did Not Start)
  • WR = বিশ্ব রেকর্ড (World Record); OR = অলিম্পিক রেকর্ড (Olympic Record)
  • OC = ওশেনিয়া রেকর্ড (Oceania Record), AF = আফ্রিকান রেকর্ড (African Record)
  • CR = কমনওয়েল্থ রেকর্ড (Commonwealth Record), NR = জাতীয় রেকর্ড (National Record); PB = ব্যক্তিগত সেরা (Personal Best)

নতুন রেকর্ডসম্পাদনা

তারিখ রাউন্ড প্রতিযোগী দেশ রেকর্ড টাইপ
১০ই আগস্ট, ২০০৮ হিট ৫ কেটি হফ   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪:০৩.৭১ অলিম্পিক রেকর্ড
১০ই আগস্ট, ২০০৮ হিট ৫ ব্রন্ট ব্যারাট   অস্ট্রেলিয়া ৪:০৪.১৬ ওশেনিয়া রেকর্ড
১০ই আগস্ট, ২০০৮ হিট ৫ ওয়েন্ডি ট্রট   দক্ষিণ আফ্রিকা ৪:০৮.৩৮ আফ্রিকান রেকর্ড
১০ই আগস্ট, ২০০৮ হিট ৬ ফেডেরিকা পেলিগ্রিনি   ইতালি ৪:০২.১৯ অলিম্পিক রেকর্ড
১০ই আগস্ট, ২০০৮ হিট ৬ রেবেকা অ্যাডলিংটন   গ্রেট ব্রিটেন ৪:০২.২৪ কমনওয়েল্থ রেকর্ড

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Veldhuis and Pellegrini set world records at Euro swimming championships"International Herald Tribune। ২০০৮-০৩-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৮-০৬