হোসেন শাহী রাজবংশ

হোসেন শাহী রাজবংশ ১৪৯৪ থেকে ১৫৩৮ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যবর্তী সময়ে বাংলা শাসন করে।

আলাউদ্দিন হোসেন শাহসম্পাদনা

এই বংশের শ্রেষ্ঠ সুলতান ছিলেন আলাউদ্দিন হোসেন শাহ। তার রাজত্বকালে বাংলায় এক সাংস্কৃতিক নবজাগরণ দেখা যায়। তিনি কামরূপ, কামতা ও উড়িষ্যার জাজনগর অধিকার করেছিলেন। তার রাজ্য চট্টগ্রাম পর্যন্ত প্রসারিত ছিল। আলাউদ্দিন হুসেন শাহের রাজত্বকালেই চট্টগ্রামে পর্তুগিজ বণিকদের আনাগোনা শুরু হয়। তার আমলে বর্তমান বাংলাদেশ-র ভারত সীমান্তবর্তী চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা-র শিবগঞ্জ উপজেলা-র ছোট সোনা মসজিদ নির্মিত হয়।

নাসিরউদ্দিন নুসরাত শাহসম্পাদনা

বাবরের ভারত অভিযানকালে নাসিরউদ্দিন নুসরাত শাহ আফগান নেতাদের আশ্রয় দিয়েছিলেন। যদিও তিনি নিজে নিরপেক্ষ থাকেন। নুসরত শাহ বাবরের সঙ্গে চুক্তি করে বাংলাকে বাবরের অভিযানের হাত থেকে রক্ষা করেন।

গিয়াসউদ্দিন মাহমুদ শাহসম্পাদনা

গিয়াসুদ্দিন মামুদ শাহ এই বংশের শেষ সুলতান যিনি গৌড় থেকে রাজ্যশাসন করতেন। উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত অঞ্চলে তাকে আফগান শক্তির সঙ্গে যুদ্ধ করতে হয়। ১৫৩৮ সালে আফগানরা গৌড় অধিকার ও লুণ্ঠন করে। এরপর মুঘল আগ্রাসনের পূর্বে কয়েক দশক তারা গৌড়েই বসবাস করেছিলেন।[১]

শাসকবৃন্দসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা