প্রধান মেনু খুলুন
মানুষের পায়ের পাতার হাড়

হাড় বা অস্থি মেরুদন্ডী প্রাণীর শরীরে অন্তঃকঙ্কাল গঠনকারী এক ধরনের কঠিন অঙ্গ। প্রাণীদেহের নানান শারীরিক ক্রিয়াকলাপে এটি ব্যবহৃত হয়। শরীরের কাঠামো সৃষ্টিতে, গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গসমূহ রক্ষা করতে, লোহিতশ্বেত রক্তকণিকা সৃষ্টিতে এবং খনিজ পদার্থ সংরক্ষণে এটি ব্যবহৃত হয়।[১] হাড়ের কলা এক ধরনের কঠিন যোজক কলা। এটি শক্ত কিন্তু হালকা। হাড়ের আকার বিভিন্ন রকম এবং এর অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক গঠনও বিভিন্ন। হাড় প্রধানত অস্থি কলা দিয়ে গঠিত। এ কলা হাড়কে কাঠিন্য দেয় এবং এর অভ্যন্তরে প্রবালের মত ত্রিমাত্রিক ফাঁপা গঠন এনে দেয়। এছাড়াও হাড়ের মধ্যে অস্থি মজ্জা, তরুণাস্থি, রক্তনালিকা, স্নায়ু প্রভৃতির কলা পাওয়া যায়। একটি সদ্যোজাত মানবশিশুর শরীরে মোট ২৭০টিরও বেশি হাড় থাকে[২], কিন্তু তার বৃদ্ধির সাথে সাথে কিছু হাড় জোড়া লেগে একক হাড়ে পরিণত হয়। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের শরীরে মোট হাড়ের সংখ্যা ২০৬টি। মানবদেহের বৃহত্তম হাড়ের নাম ফিমার, যা মূলত পায়ের হাড় আর ক্ষুদ্রতম হাড় হল কানের অভ্যন্তরের হাড় স্টেপিস

হাড়ের কাজসম্পাদনা

১.দেহের ভারবহন করা।

২.দেহের নির্দিষ্ট আকৃতি বজায় রাখা।

৩.রক্তকণিকা তৈরী করা।

৪.দেহের নরম ও নাজুক অংশ ( ফুসফুস , হৃৎপিন্ড ইত্যাদি) কে বাইরের যেকোনো আঘাত থেকে সুরক্ষিত রাখে।

৫.চলনে সহায়তা করে।

[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. G. Donald Whedon। "Bone (anatomy)"। Encyclopedia Britannica। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০১৩ 
  2. Steele, D. Gentry; Claud A. Bramblett (১৯৮৮)। The Anatomy and Biology of the Human Skeleton। Texas A&M University Press। পৃষ্ঠা 4। আইএসবিএন 0-89096-300-2 
  3. Schmiedeler, Edgar; Mary Rosa McDonough (১৯৩৪)। Parent and Child: An Introductory Study of Parent Education। D. Appleton-Century। পৃষ্ঠা 31। 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা