স্বাধীনতা পুরস্কার বিজয়ীদের তালিকা (১৯৮০–৮৯)

১৯৮০-এর দশকের স্বাধীনতা পুরস্কার বিজয়ীদের তালিকা
(স্বাধীনতা পুরস্কার (১৯৮০–১৯৮৯) থেকে পুনর্নির্দেশিত)

স্বাধীনতা পুরস্কার বাংলাদেশের জাতীয় এবং “সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার”।[১] দেশ ও জাতির কল্যাণে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি প্রদানের উদ্দেশ্যে ১৯৭৭ সাল থেকে এই পুরস্কার প্রদাণ করা হচ্ছে।[২] এই তালিকাটি ১৯৮০ সাল থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন ক্ষেত্রে স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্তদের সম্পর্কিত সার-সংক্ষেপণ।

স্বাধীনতা পুরস্কার
প্রথম পুরস্কৃত১৯৭৭
সর্বশেষ পুরস্কৃত২০২৪

১৯৮০ সালে ৭ জন ব্যক্তিত্বকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; যাদের মধ্যে ৪ জনকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[৩]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
  মরহুম ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ শিক্ষা মরণোত্তর বিজয়ী
মওলানা আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ
(শর্ষিণার পীর)
শিক্ষা
মরহুম আলহাজ্জ্ব জহির উদ্দিন জনসেবা মরণোত্তর বিজয়ী
  মরহুম কবি ফররুখ আহমদ সাহিত্য মরণোত্তর বিজয়ী
  শহীদ অধ্যাপক মুনীর চৌধুরী সাহিত্য মরণোত্তর বিজয়ী
ড. খোন্দকার আমীর হাসান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
  সোহরাব হোসেন সংস্কৃতি
(সঙ্গীত)

১৯৮১ সালে ৮ জন ব্যক্তিত্বকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; যাদের মধ্যে ৫ জনকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[৪]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
  মরহুম মওলানা মুহাম্মদ আকরাম খাঁ সাংবাদিকতা মরণোত্তর বিজয়ী
  মরহুম আব্বাস উদ্দিন আহমদ সংস্কৃতি
(সঙ্গীত)
মরণোত্তর বিজয়ী
মরহুম মেজর আবদুল গনি জনসেবা মরণোত্তর বিজয়ী
75px মরহুমা বেগম সামসুন্নাহার মাহমুদ সমাজসেবা মরণোত্তর বিজয়ী
মরহুম আব্বাস মির্জা ক্রীড়া মরণোত্তর বিজয়ী
  জাতীয় অধ্যাপক দেওয়ান মোহাম্মদ আজরফ সাহিত্য
ওয়ালিউল্লাহ পাটোয়ারী শিক্ষা
  ওস্তাদ খাদেম হোসেন খান সংস্কৃতি
(সঙ্গীত)

১৯৮২ সালে ৫ জন ব্যক্তিত্বকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; যাদের মধ্যে ৪ জনকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[৫]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
  মরহুম ড. আবদুর রশীদ শিক্ষা মরণোত্তর বিজয়ী
মরহুম কাজী মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন জনসেবা মরণোত্তর বিজয়ী
  মরহুম সৈয়দ মুর্তাজা আলী সাহিত্য মরণোত্তর বিজয়ী
মরহুম আনোয়ারুল হক সংস্কৃতি
(চিত্রকলা)
মরণোত্তর বিজয়ী
ফিরোজা বারী সমাজসেবা

১৯৮৩ সালে ৩ জন ব্যক্তিত্ব ও ১টি প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; যার মধ্যে ১ জনকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[৬]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
কবি আবদুল কাদের সাহিত্য
ড. মুহম্মদ এনামুল হক শিক্ষা মরণোত্তর বিজয়ী
ড. সিরাজুল হক শিক্ষা
  বারডেম চিকিৎসাবিদ্যা

১৯৮৪ সালে ৬ জন ব্যক্তিত্ব এবং ২টি প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; যাদের মধ্যে ৩ জনকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[৭]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
  ড. মুহম্মদ কুদরাত-এ-খুদা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মরণোত্তর বিজয়ী
  মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন সাংবাদিকতা
  অধ্যাপক মুহম্মদ মনসুর উদ্দিন সাহিত্য
শাহ আবুল হাসনাৎ মোহাম্মদ ইসমাইল সাহিত্য
ওস্তাদ আয়েত আলী খাঁ সংস্কৃতি
(সঙ্গীত)
মরণোত্তর বিজয়ী
  বুলবুল চৌধুরী সংস্কৃতি
(নৃত্য)
মরণোত্তর বিজয়ী
দীদার সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন সমবায় সমিতি পল্লী উন্নয়ন
কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট সমাজসেবা

১৯৮৫ সালে ১ জন ব্যক্তিত্বকে জাতীয় জীবনে তার অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; তাকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[৮]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
  মরহুম জেনারেল মোহাম্মদ আতাউল গণি ওসমানী সমাজসেবা মরণোত্তর বিজয়ী

১৯৮৬ সালে ২ জন ব্যক্তিত্ব এবং ১টি প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়।[৯]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
  বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, কুমিল্লা পল্লী উন্নয়ন
অধ্যাপক মফিজ উদদীন আহমেদ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
মোঃ মোশাররফ হোসেন খাঁন ক্রীড়া

১৯৮৭ সালে ৩ জন ব্যক্তিত্ব এবং ১টি প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; যাদের মধ্যে ১ জনকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[১০]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
মরহুম এম হোসেন আলী জনসেবা মরণোত্তর বিজয়ী
  অধ্যাপক সৈয়দ আলী আহসান সাহিত্য
  প্রফেসর মোহাম্মদ ইউনুস পল্লী উন্নয়ন
এএফআইপিটি চিকিৎসাবিজ্ঞান

১৯৮৮ সালে ২ জন ব্যক্তিত্বকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়; যাদের মধ্যে ১ জনকে “মরণোত্তর” সম্মাননা প্রদান করা হয়।[১১]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
আমিনুল ইসলাম সংস্কৃতি
(চিত্রকলা)
মরহুম মোঃ নূরুল আলম জনসেবা মরণোত্তর বিজয়ী

১৯৮৯ সালে ২ জন ব্যক্তিত্বকে জাতীয় জীবনে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য “স্বাধীনতা পুরস্কার” সম্মাননায় ভূষিত করা হয়।[১২]

প্রতিকৃতি প্রাপক ক্ষেত্র মন্তব্য
অধ্যাপক ডাঃ মোঃ মুস্তাফিজুর রহমান চিকিৎসা বিজ্ঞান ও জনসেবা
নিয়াজ মোর্শেদ ক্রীড়া

আরও দেখুন

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. সানজিদা খান (জানুয়ারি ২০০৩)। "জাতীয় পুরস্কার: স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার"। সিরাজুল ইসলামবাংলাপিডিয়াঢাকা: এশিয়াটিক সোসাইটি বাংলাদেশআইএসবিএন 984-32-0576-6। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৭স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার। 
  2. "স্বাধীনতা পদকের অর্থমূল্য বাড়ছে"কালেরকন্ঠ অনলাইন। ২ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৬ অক্টোবর ২০১৭ 
  3. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮০"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  4. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮১"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  5. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮২"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  6. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮৩"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  7. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮৪"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  8. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮৫"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  9. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮৬"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  10. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮৭"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  11. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮৮"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 
  12. "পুরস্কার প্রাপ্তির সাল: ১৯৮৯"cabinet.gov.bdমন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২৩ 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা