স্পেয়ার (ইংরেজি: Spare) হল প্রিন্স হ্যারি, ডিউক অফ সাসেক্সের একটি আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ যা ১০ জানুয়ারী ২০২৩ এ প্রকাশিত হয়[১]। বইটি প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্যের পেঙ্গুইন র‍্যান্ডম হাউস। ৪১৬ পৃষ্ঠার বইটি ১৬টি ভাষায় ও অডিওবুক হিসেবে পাওয়া যাচ্ছে।[২][৩]

স্পেয়ার
লেখকপ্রিন্স হ্যারি, ডিউক অফ সাসেক্স
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরেজি
ধরনআত্মজীবনী
প্রকাশিত২০২৩
আইএসবিএন৯৭৮০৫৯৩৫৯৩৮০৬

বইটি প্রকাশের আগেই যথেষ্ট আলোচনার জন্ম দেয় এবং যুক্তরাষ্ট্রযুক্তরাজ্যে চারটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হয়।[২] হ্যারি তার শৈশব এবং তার মা, ডায়ানা, প্রিন্সেস অফ ওয়েলসের মৃত্যুর গভীর প্রভাবের সাথে সাথে তার কষ্টের কিশোর বয়স এবং পরবর্তীকালে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর সাথে আফগানিস্তানে মোতায়েন সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা করেছেন। একই সাথে রাজপরিবারের সঙ্গে দ্বন্দ্বের কথা প্রকাশ করে অনেক বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন ব্রিটিশ রাজা তৃতীয় চার্লসের কনিষ্ঠ পুত্র হ্যারি।[৪]

বিবিসির এক পর্যালোচনাতে এই বইটিকে ব্রিটিশ রাজপরিবারের কেউ লেখা সবচেয়ে অদ্ভুত বই হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।[৫]

প্রকাশনা

সম্পাদনা

সমালোচনামূলক প্রতিক্রিয়া

সম্পাদনা

সত্যতা

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. জনকণ্ঠ, দৈনিক। "বাজারে এসেছে প্রিন্স হ্যারির স্মৃতিকথা 'স্পেয়ার'"দৈনিক জনকণ্ঠ || Daily Janakantha (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০১-১১ 
  2. রয়টার্স। "হ্যারির আত্মজীবনী প্রকাশ, পাঠকের ব্যাপক আগ্রহ"Prothomalo। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০১-১১ 
  3. "প্রিন্স হ্যারির 'স্পেয়ার' কিনতে ব্যাপক ভিড়"দৈনিক ইত্তেফাক। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০১-১১ 
  4. ডেস্ক, নিউজ। "প্রিন্স হ্যারির 'স্পেয়ার': রাজপরিবারের রহস্যের পর্দা উন্মোচন"bdnews24। ২০২৩-০১-১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০১-১১ 
  5. "Spare review: The weirdest book ever written by a royal"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২৩-০১-১০। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০১-১১