সেন্ট জন্‌স, অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা

সেন্ট জন্‌স (ইংরেজি: St. John's) উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের ক্যারিবীয় সাগরে অবস্থিত পশ্চিম ভারতীয় দ্বীপপুঞ্জের রাষ্ট্র অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডার রাজধানী ও বৃহত্তম নগরী। এর জনসংখ্যা ২২,২১৯।[১] সেন্ট জন্‌স অ্যান্টিগুয়া দ্বীপের বাণিজ্যিক কেন্দ্র ও প্রধান সমুদ্র বন্দর।

সেন্ট জন্‌স, অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা
নগরী
সেন্ট জন্‌স (২০১৫)
সেন্ট জন্‌স (২০১৫)
সেন্ট জন্‌স, অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডার অবস্থান
সেন্ট জন্‌স, অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ১৭°০৭′ উত্তর ৬১°৫১′ পশ্চিম / ১৭.১১৭° উত্তর ৬১.৮৫০° পশ্চিম / 17.117; -61.850
দেশ Antigua and Barbuda
দ্বীপঅ্যান্টিগুয়া
প্যারিশসেন্ট জন
উপনিবেশ স্থাপন১৬৩২
আয়তন
 • মোট১০ বর্গকিমি (৪ বর্গমাইল)
উচ্চতা০–৫৯ মিটার (০–১৯৪ ফুট)
জনসংখ্যা (2011)
 • মোট২২,২১৯
 • জনঘনত্ব৩,১০০/বর্গকিমি (৮,০০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলAST (ইউটিসি-4)
বিমানবন্দরভি.সি. বার্ড আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

ইতিহাসসম্পাদনা

সেন্ট জন্‌স লোকালয় ১৬৩২ সালে অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডাতে উপনিবেশ স্থাপনের শুরু থেকে এটির প্রশাসনিক কেন্দ্র। ১৯৮১ সালে দেশটি স্বাধীনতা লাভ করলে এটি নবগঠিত দেশটির রাজধানীতে পরিণত হয়।

অর্থনীতিসম্পাদনা

সেন্ট জন্‌স ক্ষুদ্রতর অ্যান্টিল দ্বীপপুঞ্জের সবচেয়ে উন্নত ও বিশ্বজনীন নগরীগুলির একটি। নগরীতে প্রচুত কেনাকাটার বিপণীবিতান (শপিং মল) ও ছোট বিশেষায়িত দোকান (বুটিক) ছড়িয়ে আছে, যেগুলিতে উঁচু দরের গহনা ও পোশাক বিক্রি করা হয়।

সেন্ট জন্‌সের অবকাশ যাপনকেন্দ্রগুলিতে বহু পর্যটক ঘুরতে আসে। প্রতি সপ্তাহে একাধিকবার এটির পোতাশ্রয়ের হেরিটেজ কে ও রেডক্লিফ কে নামের ঘাটগুলিতে প্রমোদতরীগুলি নোঙর ফেলে।

শহরের বিনিয়োগ ব্যাংকিং খাতটি বেশ শক্তিশালী। এখানে বিশ্বের প্রধান আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলির কার্যালয় আছে।

শহরের দক্ষিণ-পশ্চিম প্রান্তে একটি বাজারে টাটকা শাকসবজি, মাংস ও তাজা মাছ প্রতিদিন কিনতে পাওয়া যায়।

সিটাডেল এলাকায় অবস্থিত অ্যান্টিগুয়ার রাম (এক ধরনের মদ্যপানীয়) চোলাই কারখানাটি দ্বীপটির একমাত্র এরকম কারখানা।

জনপরিসংখ্যানসম্পাদনা

সেন্ট জন্‌সের সিংহভাগ অধিবাসীই অ্যান্টিগুয়ার বাকি অংশের মত, তারা মূলত আফ্রিকান ও মিশ্র ইউরোপীয়-আফ্রিকান বংশোদ্ভূত। এছাড়া একটি শ্বেতাঙ্গ ইউরোপীয় সম্প্রদায় আছে, যাদের মধ্যে ব্রিটিশ ও পর্তুগিজরা উল্লেখ্য। এছাড়া এখানে লেভান্তীয় খ্রিস্টান আরবদের একটি সম্প্রদায় বাস করে।

 
সেন্ট জন্‌সের শহরকেন্দ্র

প্রশাসনসম্পাদনা

পূর্ব ক্যারিবীয় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের প্রধান কার্যালয়টি সেন্ট জন্‌সের ফ্যাক্টরি রোড সড়কে অবস্থিত।[২]

সেন্ট জন্‌স ইংল্যান্ডের লন্ডনের অন্তর্ভুক্ত ওয়ালটহ্যাম ফরেস্ট বরো-র (Borough) যমজ শহর।

সংস্কৃতিসম্পাদনা

সেন্ট জন্‌সে অনেক জাদুঘর আছে, যাদের মধ্যে অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা জাদুঘর ও সামুদ্রিক শিল্পকলা জাদুঘর দুইটি উল্লেখ্য। শেষোক্ত জাদুঘরে জীবাশ্মবিশিষ্ট সমুদ্রতলদেশীয় শিলা, আগ্নেয় প্রস্তরখণ্ড, প্রস্তরীভূত কাঠ, প্রায় ১০ হাজারেরও বেশি ঝিনুকের সংগ্রহ এবং ইংল্যান্ডের জাহাজডুবির ধ্বংসাবশেষ রক্ষিত আছে।

সেন্ট জন্‌স শহরের ঠিক পূর্বে নর্থ সাউন্ড এলাকায় স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়াম নামক একটি বহুমুখী স্টেডিয়াম আছে। এটিকে মূলত ক্রিকেট ম্যাচ খেলার জন্য তৈরি করা হয়েছিল। এখানে ২০০৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের কিছু ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডার জাতীয় স্টেডিয়াম, অ্যান্টিগুয়া রিক্রিয়েশন গ্রাউন্ড, সেন্ট জন্‌সে অবস্থিত।

ভূগোলসম্পাদনা

সেন্ট জন্‌সের নিকটবর্তী গ্রাম ও বসতির মধ্যে সেন্ট জনস্টন উল্লেখ্য।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা