সিমাস ফ্রেডেরিক ম্যালন (/ˈʃməs ˈmælən/; ১৭ আগস্ট ১৯৩৬ – ২৪ জানুয়ারি ২০২০) একজন উত্তর আইরিশ রাজনীতিবিদ যিনি ১৯৯৯ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত উত্তর আয়ারল্যান্ডের ডেপুটি ফার্স্ট মিনিস্টার এবং ১৯৭৯ থেকে ২০০১ পর্যন্ত সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক অ্যান্ড লেবার পার্টির ডেপুটি লিডার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

সিমাস ম্যালন
Seamus Mallon speaking at John Hewitt International Summer School 2017.png
উত্তর আয়ারল্যান্ডের ডেপুটি ফার্স্ট-মিনিস্টার
কাজের মেয়াদ
১ জুলাই, ১৯৯৮ – ৬ নভেম্বর, ২০০১
সহকর্মী
  • ডেভিড ট্রিম্বল
  • রেগ এমপে
পূর্বসূরীOffice established
উত্তরসূরীমার্ক ডারকান
আইনসভার সদস্য
নিউরো ও আর্মাগ অ্যাসেম্বলি
কাজের মেয়াদ
২৫ জুন, ১৯৯৮ – ২৬ নভেম্বর, ২০০৩
পূর্বসূরীConstituency established
উত্তরসূরীডোমিনিক ব্রেডলে
সংসদ সদস্য
নিউরো ও আরমাগ লোকসভা
কাজের মেয়াদ
২৪ জানুয়ারি, ১৯৮৬ – ১১ এপ্রিল, ২০০৫
পূর্বসূরীজিম নিকোলসন
উত্তরসূরীকনোর মার্ফি
সিনেটর
কাজের মেয়াদ
১৮ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮২ – ২৪ নভেম্বর, ১৯৮২
Taoiseachচার্লস হাগেই
সংসদীয় এলাকাসিনেট মনোনীত
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মসিমাস ফ্রেডেরিক ম্যালন
(১৯৩৬-০৮-১৭)১৭ আগস্ট ১৯৩৬
মার্কেথিল, উত্তর আয়ারল্যান্ড
মৃত্যু২৪ জানুয়ারি ২০২০(2020-01-24) (বয়স ৮৩)
মার্কেথিল, উত্তর আয়ারল্যান্ড
রাজনৈতিক দলসোশ্যাল ডেমোক্রেটিক এন্ড লেবার পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গীজের্ট্রুড কুশ (মৃত্যু: ২০১৬)
সন্তান
প্রাক্তন শিক্ষার্থীসেন্ট মেরিস ইউনিভার্সিটি কলেজ
জীবিকাশিক্ষক
ধর্মরোমান ক্যাথলিজম

শৈশব ও শিক্ষাজীবনসম্পাদনা

সিমাস ম্যালন মার্কেথিলের প্রোটেস্ট্যান্ট সংখ্যাগরিষ্ঠ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং নিউরির সেন্ট অ্যাবি ক্রিশ্চান ব্রাদার্স গ্রামার স্কুলে ও আরমাগের সেন্ট প্যাট্রিক্স গ্রামার স্কুলে পড়াশোনা করেছিলেন। ক্যারিয়ার হিসাবে তিনি (তাঁর বাবার মতো) শিক্ষকতাকে বেছে নিয়েছিলেন এবং মার্কেথিলের সেন্ট জেমস প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত হন।[১] ম্যালন আরমাগের হয়ে গ্যালিশ ফুটবল খেলে গ্যালিশিয়াল অ্যাথলেটিক অ্যাসোসিয়েশনের (জিএএ) সাথেও জড়িত ছিলেন। তিনি ১৯৫০ এর দশকে মিডলটাউনের হয়ে প্রথমে ক্লাব ফুটবল খেলেন তারপরে কেডি ডোয়ার্স, কুইন্স ইউনিভার্সিটি এবং ক্রসমেগলেন রেঞ্জার্সের সাথে।[২]

তিনি অপেশাদার নাটকের সাথেও জড়িত ছিলেন এবং একটি নাটক লিখেছিলেন যা অল-আয়ারল্যান্ড অপেশাদার নাট্য পুরস্কার অর্জন করে।[৩]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

ম্যালনের স্ত্রী গের্ট্রুড (Née Cush) ২০১৬ সালের অক্টোবরে মারা যান।[৪] তাদের কন্যা অর্লা বিবাহিত হওয়ায় ম্যালন অবসর গ্রহণের পরে মার্কেথিলে একাই থাকতেন।[৫]

ম্যালন ৮৩ বছর বয়সে ২৪ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে মার্কেথিলে নিজ বাড়িতে মারা যান। মৃত্যুর আগে তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন।[৬][৭]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Key players"The Daily Telegraph। ২৫ অক্টোবর ২০০১। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০১০ 
  2. "Seamus Mallon"Oral History। ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১১। 
  3. "Gerry Moriarty, The Two Big Beasts of the SDLP"irishtimes.com 
  4. "Hundreds of mourners at funeral of Seamus Mallon's wife Gertrude"newsletter.co.uk 
  5. "Seamus Mallon has hope for party he gave his life to"The Irish Times 
  6. "Former NI deputy first minister Seamus Mallon dies aged 83"RTÉ। ২৪ জানুয়ারি ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০২০ 
  7. O'Loughlin, Ed (২৭ জানুয়ারি ২০২০)। "Seamus Mallon, Advocate for Peace in Northern Ireland, Dies at 83"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০২০